রামেক হাসপাতালে সিজারের পরে গর্ভবতী নার্সের মৃত্যু : কর্মরত নার্সদের বিক্ষোভ

আপডেট: জুন ১৭, ২০১৯, ১২:৪৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


সিজারিয়ান অপারেশনের পর মৃত নার্সকে নিয়ে স্বজনদের আহাজারি-সোনার দেশ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে সিজার করার সময় এক গর্ভবতী নার্সের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে হাসপাতালে বিক্ষোভ করেছে কর্মরত সকল নার্স এবং মৃত নার্সের আত্মীয়স্বজনরা। গতকাল রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার সময় এ ঘটনা ঘটে। মৃত নার্স দিলারা খাতুন (২৮) রাজশাহীর জেলার বাঘা উপজেলার নওটিকা গ্রামের মিঠুন আলী স্ত্রী এবং রামেক হাসপাতালের দায়িত্বরত নার্স।
হাসপাতালের সূত্র জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ১৩ জুন তিনি গাইনি বিভাগে ভর্তি ছিলেন। সিজারের পরে তার অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। পরে তাকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। আজ রোববার তিনি মারা যান। তার অপারেশন করেছিলেন গাইনি বিভাগে কর্মরত ডা. কামরুন্নাহার জলি। দিলারা খাতুনের মৃত্যুর খবরে হাসপাতালের কর্মরত নার্সরা পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। পরে পরিচালকের আশ্বাসে নার্সরা তাদের দায়িত্বে ফিরে যান। এ ঘটনায় তদন্তের জন্য ৬ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।
মৃত নার্স দিলারা খাতুনের ভাই ইসমাইল হোসেন পাভেল জানান, বর্তমানে বাচ্চা জীবিত আছে কিন্তু বাচ্চার মা মারা গেল! গত বৃহস্পতিবার আমার বোনকে ওটিতে নিয়ে যাওয়ার পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। রক্ত বন্ধ না হওয়ায় বার বার রক্ত দেয়া হয়। সে সময় দায়িত্বরত চিকিৎসকরা বলেছিলেন, ‘৭২ ঘণ্টার মধ্যে কিছু বলা যাবে না, এখন রোগীর অবস্থা খারাপ। এর পরে আইসিইউতে নেবার পরে আমাদের পরিবারের কাউকে সেখানে যেতে দেয়া হয়নি। আজ সন্ধ্যায় আমরা এই বিষয়ে জোরাজুরি করলে তারা জানায় রোগী মারা গেছে। এই তিন দিন কেন তারা আমাদের জানালো না যে রোগী মারা গেছে?’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ