রাস্তার বন্ধুতা

আপডেট: জানুয়ারি ৫, ২০১৮, ১২:২৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


বেলা গড়িয়ে দুপুর। তিন বন্ধুর সঙ্গে মিলেছে আর এক জন। চার জনে চলছে তুমুল আড্ডা। এক দিকে চলছে নানা গল্প, সাথে হাতের কাজ। কাজ বলতে বেলুন ফোলানো। বেলুন ফুলিয়ে প্লাস্টিকের কাঠিতে লাগিয়ে তা ফেরি করে বিক্রি করা তিন বন্ধুর কাজ। সাহেববাজার থেকে নিউ মার্কেট এলাকায় তারা এই কাজ করে। বেলুনের দাম কতো? সূর্য জানায় ১৫ টাকা। তবে যার কাছে যা পাওয়া যায়, তেমনটিই নেয়া হয়। সূর্য, হাসান ও হোসেন মূলত এই কাজ করে। প্রতিবন্ধি অন্তর সাধারণত ভিক্ষা করে। যখন সময় পায় তখন এখানে এসে গল্প গুজব করে। কখনো তাদের সঙ্গে হাত লাগায়। বেলুন ফুলিয়ে দেয়। যা আয় হয় তা দিয়ে সবাই মিলে মিশে খাওয়া দাওয়া করে। হাসান ও হোসেন দুই ভাই, থাকে সিরোইল বৌ বাজার এলাকায়। তাদের বাবা শাহ আলম মাদকাসক্ত। সূর্যর বাড়ি নওদাপাড়া এলাকায়। তার বাবা সফিকুলও মাদকাসক্ত। সংসারে মায়ের পাশে দাঁড়াতেই বেলুন বিক্রির কাজ করে। প্রতিবন্ধি অন্তরের বাঁ হাতে শক্তি নেই। পরিবারের লোকজন তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। এখন থাকে রাজশাহী রেল স্টেশনে। চারজনের যা আয় তাতে সবার ভালো ভাবে চলে যায়। চার জনের গলায় গলায় বন্ধুত্ব। জানালো খুব ভালো আছি আমরা।