বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

রুদ্ধশ্বাস জয়ে সোনা জিতলেন সালমারা

আপডেট: December 9, 2019, 1:36 am

সোনার দেশ ডেস্ক


পুঁজি ছিল অল্প। তবে বোলাররা মেলে ধরলেন নিজেদের। রোমাঞ্চকর ফাইনালে ম্যাচ গড়াল শেষ বলে। শ্রীলঙ্কাকে ২ রানে হারিয়ে এসএ গেমস মেয়েদের ক্রিকেটে সোনা জিতল বাংলাদেশ।
পোখরায় রোববার আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৮ উইকেটে ৯১ রান করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ৮৯ রানে থামে শ্রীলঙ্কা।
জয়ের জন্য শেষ ওভারে শ্রীলঙ্কার দরকার ছিল ৭ রান। দেশসেরা পেসার জাহানারা আলম খরচ করেন মাত্র ৪ রান।
টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের শুরুটা ভালো হয়নি। দলীয় ১৬ রানে হারায় মুর্শিদা খাতুনকে। ৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ১ উইকেটে ৩৬। এরপরই ধস নামে ইনিংসে।
সপ্তম ওভারে বাংলাদেশ হারায় চার-চারটি উইকেট! কোনো রান না দিয়েই এই ওভারে আয়েশা রহমান, সানজিদা ইসলাম, ফারজানা হক ও রিতু মনির উইকেট তুলে নেন শ্রীলঙ্কার অফ স্পিনার উমেশা থিমাশিনি। হ্যাটট্রিকটাই শুধু হয়নি!
একটু পর অধিনায়ক সালমা খাতুনও ফিরলে বাংলাদেশের স্কোর হয়ে যায় ৭ উইকেটে ৪২! সেখান থেকে বাংলাদেশ একশর কাছাকাছি পুঁজি পায় মূলত নিগার সুলতানার কল্যাণে।
শেষ পর্যন্ত ২৮ বলে ২ চার ও এক ছক্কায় ২৯ রানে অপরাজিত ছিলেন নিগার। ফাহিমা খাতুন করেন ১৫ রান। সানজিদার ব্যাট থেকেও আসে ১৫ রান। শ্রীলঙ্কার উমেশা থিমাশিনি চার ওভারে ৮ রানে নেন ৪ উইকেট।
ছোট পুঁজি নিয়ে বোলিংয়ে বাংলাদেশের শুরুটা হয় ভালো। দ্বিতীয় ওভারে দলকে প্রথম সাফল্য এনে দেন অধিনায়ক সালমা।
এরপর নাহিদা আক্তার ফেরান উমেশা থিমাশিনিকে। খাদিজা তুল কুবরার শিকার সত্য সন্দ্বীপানি। তখন ১৪ রানে ৩ উইকেট নেই শ্রীলঙ্কার। একটু পর কাভিশা দিলহারির রান আউটে স্কোর হয়ে যায় ৪ উইকেটে ৩০।
পঞ্চম উইকেট জুটিতে শ্রীলঙ্কাকে এগিয়ে নিয়েছেন অধিনায়ক হার্শিথা মাধবী ও লিহিনি আপসোরা। ৩২ রান করা মাধবীকে ফিরিয়ে ২৩ রানের জুটি ভাঙেন সালমা।
এরপর আরও দুই ব্যাটারকে হারালেও শ্রীলঙ্কার আশা বাঁচিয়ে রাখেন আপসোরা। শেষ ওভারে ৭ রানের সমীকরণের সময় আপসোরা ব্যাট করছিলেন ২৩ রানে।
জাহানারার প্রথম বলে আপসোরা নেন এক রান। পরের দুই বলে জাহানারা দেন আরও এক রান। চতুর্থ বলে দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে রান আউটে কাটা পড়েন আপসোরা।
দুই বলে দরকার ৪। পঞ্চম বলে আসে এক রান। আর শেষ বলে ৩ রানের সমীকরণে রান আউট হয়ে যান রানাথুঙ্গা। সোনা জয়ের উৎসবে মাতে বাংলাদেশের মেয়েরা।
চার ওভারে ৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের সেরা বোলার নাহিদা। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে একটি করে উইকেট নেন জাহানারা, সালমা ও খাদিজা। এই শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েই আসর শুরু করেছিল বাংলাদেশ। একমাত্র অপরাজিত দল হিসেবে ফাইনালে উঠেছিল সালমা খাতুনের দল। ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে আবার হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে সোনার পদক নিজেদের করে নিল বাংলাদেশের মেয়েরা।