শারদীয় দুর্গোৎসবের সপ্তমী পূজা অনুষ্ঠিত

আপডেট: অক্টোবর ৬, ২০১৯, ১:২৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নাটোর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁয় অঞ্জলী প্রদানের মধ্য দিয়ে সনাতন ধর্ম্বালম্বীদের শারদীয় দূর্গা পূজার দ্বিতীয় দিনে সপ্তমী বিহিত পূজা শুরু হয়। গতকাল শনিবার সকালে মন্দিরগুলোতে ভক্তবৃন্দ ভীড় জমাতে থাকে। শঙ্খ ধ্বনী আর ঢাকের শব্দে মুখরিত হয়ে উঠে পূজা মণ্ডপগুলো। অঞ্জলী, ভক্তদের মধ্যে প্রসাদ বিতরণ, সন্ধ্যায় আরতিসহ নানা বিভিন্ন ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সপ্তমী পুজা সম্পন্ন হয়।
নাটোর প্রতিনিধি জানায়, শারদীয় দুর্গোৎসব শহরের মন্দিরগুলো মনোরম সাজে সাজানো হয়েছে যা সহজেই দর্শকদের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হয়েছে। রাতের আলোকসজ্জা মন্দিরগুলোতে এক মোহময় দৃশ্যের সৃষ্টি করছে। যারা পুজো দেখতে আসছেন তারাও আকৃষ্ট হচ্ছেন এই বর্নিল সাজে। সনাতন ধর্মাবলম্বী ছাড়াও সকলেই মুগ্ধ হচ্ছেন এই সাজ সজ্জায়। ভক্তবৃন্দ প্রতিমা দর্শনের সঙ্গে সঙ্গে দেবির কাছে প্রার্থনা করছেন যেন দেশ থেকে সকল অনিয়ম, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ দূর হয়ে দেশে শান্তি স্থাপিত হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি জানায়, শনিবার দিনভর মহাসপ্তমীর মধদিয়ে চন্ডি পাঠে মুখরিত ছিল প্রতিটি মণ্ডপ। বিকেলের পর থেকেই মণ্ডপে মণ্ডপে দর্শনার্থীদের ভীড় লক্ষ করা যায়, আয়োজকরা বলছেন এই ভিড় আরো বাড়বে। পঞ্জিকামতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার মর্ত্যলোকে আসবেন ঘোটকে চড়ে আর বিজয়া দশমীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দেবী স্বর্গলোকে বিদায় নেবেন ঘোটকে চড়ে।
শহরের গুড়িপাড়া ঝংকার সংঘের পূজা কমিটির সম্পাদক অপূর্ব কুমার সরকার জানান, প্রতিবছরই নতুনত্ব আনা হয় এ মণ্ডপে। তাদের মণ্ডপ এলাকায় এবার গাছ দিয়ে সাজানো হয়েছে এবং আলোকসজ্জায় থাকছে নতুনত্ব।
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রণব কুমার পাল জানান, জেলায় এবার ১৩৬ টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সদরে রয়েছে ৫৫, শিবগঞ্জে ৩৭, গোমস্তাপুরে ২৯, নাচোলে ১২ ও ভোলাহাটে ৩টি পুজা মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শারদীয় দুর্গোৎসব।
শুক্রবার দুর্গা ষষ্ঠি, শনিবার সপ্তমী, রোববার মহাষ্টমী ও সন্ধি পূজা, সোমবার মহানবমী, মঙ্গলবার বিজয়া দশমী। প্রতিদিন পুজা শেষে ভক্তদের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হচ্ছে।
এ উৎসবকে কেন্দ্র করে হিন্দু ধর্মালম্বীদের যেন আনন্দের কমতি নেই। প্রতিটি মণ্ডপে এখন তাই মানুষের ভিড় বাড়ছে।
পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম জানান, প্রতিটি মণ্ডপে নিরাপত্তার বিষয়ে সার্বক্ষনিক সমন্বয়নের জন্য একজন পুলিশ অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রতিটি মণ্ডপে সুশৃঙ্খল পরিবেশ বজায় রাখতে পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি দায়িত্ব পালন করছে আনসার ও মণ্ডপের স্বেচ্ছাসেবকরা। সাদা পোষাকে রয়েছে গোয়েন্দা সদস্যদের নজরদারী। নিরাপত্তা নিশ্চিতে জেলার গুরুত্বপূর্ণ মণ্ডপগুলোতে সিসিটিভি ও প্রবেশ পথগুলোতে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশীর মাধ্যমেই প্রবেশ করতে পারবেন আগতরা।
এদিকে নওগাঁয় শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে অসহায় ও দুস্থদের মাঝে বস্ত্র বিরতণ করা হয়েছে। গত শুক্রবার বিকেলে নওগাঁ সদর থানার আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বস্ত্র বিরতণ করেন পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুুল মান্নান মিয়া বিপিএম। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) লিমন রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারজানা হোসেন, সহকারি পুলিশ সুপার সুরাইয়া খাতুন, সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি ) মো.সোহরাওয়ার্দী, ওসি তদন্ত ফায়সাল বিন আহসান, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিভাস মজুমদার গোপালসহ পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তা ও মানবাধিকার কর্মীবৃন্দ। পরে সাড়ে তিন শতাধিক অসহায় ও দুস্থদের মাঝে বস্ত্র হিসেবে শাড়ি বিতরণ করা হয়।
এছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যক্তি উদ্দ্যোগে বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করা হচ্ছে। গতকাল শনিবার শহরের কালিতলার সন্ন্যাসতলা পূজা মণ্ডপে ব্যক্তি উদ্দ্যোগে ২শ দরিদ্র মানুষের মাঝে বস্ত্র হিসেবে শাড়ী বিতরণ করেছেন নওগাঁ পৌর সভার ৫নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার ও ৫নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মো. মোজাম্মেল হক মজনু।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ৫নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিমাংশু, রাণীনগর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আশিষ কুমার ঘোষসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
বদলগাছী প্রতিনিধি জানায়, বদলগাছীতে দুর্গা পূজা উপলক্ষে দুস্থদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল সকাল ১১টায় উপজেলা কেন্দ্রীয় মন্দির ও আশ্রমের আয়োজনে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে জিতেন্দ্রনাথ মন্ডলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বদলগাছী মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মো. জবির উদ্দিন এফএফ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বদলগাছী সদর ইউপি চেয়ারম্যান আবদুস সালাম মন্ডল। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাবু রজত গোস্বামী, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুর রহিম বাবলু, সানজাদ রয়েল সাগর প্রমূখ। বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে ৭০ জন দুস্থ নারীকে শাড়ি প্রদান করা হয়।