শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে তামাকপণ্য বিক্রি শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় রাসিক এর উদ্যোগ চাই

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯, ১:১০ পূর্বাহ্ণ

স্কুল-কলেজসহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আশপাশের ১০০ গজের মধ্যে তামাকজাতদ্রব্য বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। আগামী ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এ সব তামাকের দোকান অপসারণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। স্থানীয় পত্রিকায় গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের এই উদ্যোগ অত্যন্ত সময়োপযোগী এবং প্রশংসনীয়। এই উদ্যোগ রাজশাহী মহানগরবাসীর জন্য উৎসাহব্যঞ্জক। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ক্ষেত্রে এমন দাবি মাদকবিরোধী কর্মিরা করে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে।
সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আশপাশে তামাকজাতদ্রব্য বিক্রি হলে তা শিক্ষার্থীদের জন্য সহজলভ্য হয় এবং ধুমপানের উৎসাহিত করে। স্কুলের ক্লাস ফাঁকি দিয়ে ধূমপানে অভ্যস্থ শিক্ষার্থীদের হরহামেশাই দেখা যায়।
‘বিগ টোব্যাকো টাইনি টার্গেট’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, ৯০ দশমিক ৫ শতাংশ স্কুল ও খেলার মাঠের ১০০ মিটারের মধ্যে তামাকজাত দ্রব্য বা সিগারেট বিক্রির দোকান পাওয়া গেছে। ৮১ দশমিক ৮৭ শতাংশ দোকানে তামাকজাত দ্রব্যের প্রদর্শন শিশুদের দৃষ্টির ১ মিটারের মধ্যে দেখা যায়। চকোলেট এবং খেলনার পাশে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি করতে দেখা যায় ৬৪ দশমিক ১৯ শতাংশ দোকানে। স্কুল ও খেলার মাঠের পাশে বিভিন্ন দ্রব্য বিক্রির দোকানগুলোতে ৮২ দশমিক ১৭ শতাংশ তামাকের বিজ্ঞাপন দেখা যায়।
তামারবিরোধী সংগঠন ও বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞার সাম্প্রতিক এক গবেষণা তথ্যমতে রাজধানী ঢাকার প্রাথমিক স্কুলে পড়ুয়া ৯৫ শতাংশ শিশুর দেহে উচ্চমাত্রার নিকোটিন পাওয়া গেছে, যার মূল কারণ পরোক্ষ ধূমপান।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১০০ মিটারের মধ্যে সিগারেটের দোকান থাকার ফলে শিক্ষার্থীদের একদিকে ধুমপানে উৎসাহিত করে, অন্যদিকে শিক্ষার্থীরা পরোক্ষ ধুমপানের শিকারও হয়। উভয়ই উদ্বেগজনক।
ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইনের ৫ ধারায় বলা হয়, ১৮ বছরের কম বয়সী কেউ তামাকজাত দ্রব্য বিক্রি বা ক্রয় করতে পারবে না। কিন্তু এই আইন কোনো দোকানি মানেন না। এ ক্ষেত্রে আইনের প্রয়োগের ক্ষেত্রে দুর্বলতাও লক্ষ্য করা যায়।
স্বাস্থ্য সুরক্ষায় তামাকবিরোধী আন্দোলনে ব্যক্তি ও সংস্থার উদ্যোগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তামাকের বিরুদ্ধে সামজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। রাজশাহী সিটি করপোরেশন এ ক্ষেত্রে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেÑ যা চট্টগাম সিটি করপোরেশন বাস্তবায়নে উদ্যোগি হয়েছে। আমাদেরও প্রত্যাশা নাগরিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে রাজশাহী সিটি করপোরেশন স্কুল-কলেজের ১০০ মিটিরের মধ্যে তামাকজাতপণ্য বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা করবে। মাননীয় মেয়র এ ব্যাপারে উদ্যোগি হলে আমাদের শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার অগ্রাধিকারের বিষয়টিই গুরুত্ব পাবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ