শিরোপায় চোখ তাজিকিস্তান-ফিলিস্তিনের

আপডেট: অক্টোবর ১২, ২০১৮, ১:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


আর মাত্র একটি ম্যাচ। এরপরই পর্দা নামবে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টের। আজ শুক্রবার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে তাজিকিস্তান ও ফিলিস্তিন। দুটি দল গ্রুপ পর্বে একই গ্রুপে ছিল (‘এ’ গ্রুপে)। ফিলিস্তিন গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ও তাকিজিস্তান গ্রুপ রানার্স-আপ হয়ে সেমিফাইনালে ওঠে। সেখানে তাজিকিস্তান প্রতিপক্ষ ফিলিপাইনকে ও ফিলিস্তিন স্বাগতিক বাংলাদেশকে হারিয়ে ফাইনালে নাম লেখায়।
গ্রুপ পর্বের দেখায় তাজিকিস্তানকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল ফিলিস্তিন। তবে এবার আর একই ফল হতে দিতে চায় না তাজিকরা। ফিলিস্তিনকে হারিয়ে শিরোপা জিততে চায় তারা। গতকাল বৃহস্পতিবার ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে তাজিকিস্তানের কোচ আরিশার টুকতাভেত বলেন, ‘গ্রুপপর্বে আমরা ফিলিস্তিনের কাছে ২-০ ব্যবধানে হেরেছিলাম। সেটার আর পুনরাবৃত্তি হতে দিতে চাই না। একই ভুল দ্বিতীয়বার করতে চাই না। ফাইনালে জয় তুলে নিয়ে আমরা শিরোপা জিততে চাই।’
দলে কোনো ইনজুরি সমস্যা আছে কিনা জানতে চাইলে কোচ বলেন, ‘ফিলিস্তিনের ম্যাচে আমাদের একজন খেলোয়াড় মাথায় আঘাত পেয়েছিল। আর একজন ইনজুরিতে পড়েছিল। তারা দুজনেই সেরে উঠেছে। এছাড়া আর কোনো ইনজুরি সমস্যা নেই। ফাইনালে আমরা সেরা একাদশই মাঠে নামাতে পারব।’
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে তাজিকিস্তানের রয়েছে সুখস্মৃতি। ২০০৬ সালে এই স্টেডিয়ামেই এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তাজিকরা। সেটা মনে করিয়ে দিলে তাজিকিস্তানের কোচ আরিশার বলেন, ‘সেটা আসলে ইতিহাস। সময় বদলে গেছে অনেক। তবে তেমন কিছু ঘটলে নিঃসন্দেহে দারুণ কিছু হবে। তবে ফিলিস্তিন বেশ শক্তিশালী দল। ফাইনালে কোনো দলই দুর্বল নয়। তাদের বিপক্ষে জিততে হলে লড়াই করতে হবে। ছেলেরা লড়াই করতে প্রস্তুত।’
এদিকে শিরোপা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী ফিলিস্তিনও। এবারের এই আসরে এখন পর্যন্ত অপরাজিত তারা। তাছাড়া ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা সবচেয়ে এগিয়ে। ফিলিস্তিন রয়েছে ১০০তম অবস্থানে। আর তাজিকিস্তান রয়েছে ১২০তম স্থানে। পাশাপাশি শারীরিকভাবে ফিলিস্তিনের ফুটবলরার এই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া যেকোনো দলের চেয়ে এগিয়ে। তাই ফাইনালে ফিলিস্তিনই ফেভারিট। তবে ফাইনালের আগে তারা সময় পেয়েছে মাত্র একদিন।
বুধবার সেমিফাইনাল খেলে শুক্রবারই তাদের ফাইনাল খেলতে মাঠে নামতে হচ্ছে। তার উপর রয়েছে বৈরি আবহাওয়ার কারণে ফ্লাইট ডিলের ভোগান্তি। ফাইনালকে সামনে রেখে এ বিষয়ে ফিলিস্তিনের কোচ আইলাদ আলী নরুদ্দিনি বলেন, ‘গতকাল আমরা সেমিফাইনাল খেলেছি। আজ ফিরেছি ঢাকায়। কালকেই আমাদের ফাইনাল খেলতে মাঠে নামতে হবে। এতো অল্প সময়ে দলকে প্রস্তুত করা সহজ নয়। তারপরও আমরা আত্মবিশ্বাসী ফাইনালে ভালো খেলে জয় তুলে নেওয়ার ব্যাপারে। ছেলেরাও ফাইনালে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত। তাজিকিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে আমরা জয় পেয়েছি। সেটা মানসিকভাবে আমাদের এগিয়ে রাখবে। তাছাড়া কৌশলগত ও শারীরিকভাবে তাদের চেয়ে আমরা এগিয়ে। যদিও ফাইনাল ম্যাচ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়, তারপরও আমরা জিততে চাই।’ ফাইনাল ম্যাচটি শুরু হবে শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়। যা সরাসরি সম্প্রচার করবে মাছরাঙা টেলিভিশন ও বিটিভি। এছাড়া বাংলাদেশ বেতারে চলতি ধারাবিবরণী শোনা যাবে। ফাইনাল শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুরস্কার বিতরণ করবেন বলে বাফুফের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। রাইজিংবিডি