শুধু সরকার গঠন নয়, সর্বক্ষেত্রে ভোটের গুরুত্ব অনেক : মেয়র লিটন

আপডেট: মার্চ ২, ২০১৯, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


শিল্পকলা অ্যাকাডেমিতে জাতীয় ভোটার দিবস উদযাপনের আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন-সোনার দেশ

সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামীলীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, ভোটের গুরুত্ব অনেক। ভোট কোনো হাসি-তামাশা ও ছেলেখেলার বিষয় না। একটা রায়ের মাধ্যমে জনগণ সবকিছু ওলটপালট করে দিতে পারে। এক্ষেত্রে অস্ত্রেরও দরকার পড়ে না। একজন রাষ্ট্রপতির ভোটের যে মূল্য, একজন সাধারণ মানুষের ভোটের ওই একই মূল্য। মতামত প্রদানের সুন্দর পন্থা হচ্ছে ভোট। নির্বাচনে শুধু সরকার গঠন নয়, সর্বক্ষেত্রে ভোটের মূল্য অনেক।
জাতীয় ভোটার দিবস উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার সকালে জেলা শিল্পকলা অ্যাকাডেমিতে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার এবং আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে জেলা প্রশাসক এস এম আব্দুল কাদেরের নেতৃত্বে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড় থেকে শুরু হয়ে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে শেষ হয়।
তরুণ ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, সারা বাংলাদেশে যারা নতুন ভোটার হবেন, তারা যেন সুচিন্তিতভাবে সত্য, ন্যায় ও উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেয়। কারণ বাংলাদেশ যে উন্নয়নের মহাসড়কে উঠে গেছে, এই যাত্রা যেন থেমে না যায়। এজন্য নতুন ভোটারদের উন্নয়নের পক্ষে রায় প্রদানের আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, ধীরে ধীরে তিল তিল করে রাজশাহীকে সাজিয়ে তুলছি। মাদকমুক্ত, বসবাসযোগ্য ও কর্মচাঞ্চল্যমুখর রাজশাহী গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। রাজশাহীতে ব্যাপক উন্নয়নে ইতোমধ্যে চায়নার বিখ্যাত কোম্পানি পাওয়ার চায়নার সাথে আমার আলোচনা হয়েছে। তারা মাস্টারপ্ল্যান করে উন্নয়ন করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। পাওয়ার চায়নার বিনিয়োগে মাধ্যমে দেশের সবার আগে সর্বক্ষেত্রে চমৎকার শহর হবে রাজশাহী। প্রধানমন্ত্রী দেশের সর্বক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন করছেন। বতর্মান সরকারের উন্নয়ন দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।
অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আনওয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন নগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহীন আকতার রেনী, জেলা প্রশাসক এসএম আবদুল কাদের, নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার সুয়াজেত হোসেন। প্রধান আলোচক ছিলেন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম।