শেয়ারবাজার : ভালোই গেল ঈদের পরের প্রথমদিন

আপডেট: আগস্ট ১৯, ২০১৯, ১:১০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ঈদুল আজহা উপলক্ষে টানা ৯ দিন বন্ধ থাকার পর প্রথম কার্যদিবসেই ঊর্ধ্বমুখী দেশের শেয়ারবাজার। রোববার (১৮ আগস্ট) প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচক বেড়েছে।
ঈদের আগের শেষ কার্যদিবস ৮ আগস্টও (বৃহস্পতিবার) ঊর্ধ্বমুখী ছিল দেশের শেয়ারবাজার। এর মাধ্যমে ঈদের আগের শেষ কার্যদিবসের মতো ঈদের পরের প্রথম কার্যদিবসও ভালোই কাটলো শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারীদের জন্য।
পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে গত ৯ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত টানা ৯ দিন শেয়ারবাজারে লেনদেন বন্ধের পর রোববার লেনদেনের শুরুতেই শেয়ারবাজারের মূল্য সূচক ঊর্ধ্বমুখীর আভাস দেয়। লেনদেন শুরুর ২০ মিনিটেই ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ২০ পয়েন্ট বেড়ে যায়। তবে আধা ঘণ্টার মধ্যে নি¤œমুখী হয়ে পড়ে সূচক। এক পর্যায়ে দুপুর ১২টার দিকে ডিএসইএক্স ঋণাত্মকও হয়ে পড়ে। তবে শেষ ঘণ্টার লেনদেনের প্রভাবে মূল্য সূচক ঊর্ধ্বমুখী থেকেই শেষ হয় দিনের লেনদেন।
দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইএক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ১৫ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ২১৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। প্রধান মূল্য সূচকের পাশাপাশি ডিএসইর-৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৮৪১ পয়েন্টে ওঠে এসেছে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৯৭ পয়েন্টে।
মূল্য সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৮৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১২৩টির এবং দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির।
এদিকে মূল্য সূচক ও বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বাড়লেও ডিএসইতে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩২৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা। ঈদের আগের শেষ কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪১০ কোটি ৫৬ লাখ টাকার। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ৮৬ কোটি ৮৬ লাখ টাকা।
এ দিন বাজারটিতে টাকার পরিমাণে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে খুলনা পাওয়ার কোম্পানির শেয়ার। কোম্পানিটির ২৪ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা জেএমআই সিরিঞ্জের ১৩ কোটি ৭৯ লাখ টাকার লেনদেনে হয়েছে। ১২ কোটি ৯ লাখ টাকার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে ওঠে এসেছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন।
এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে- বিকন ফার্মাসিউটিক্যাল, মুন্নু সিরামিক, কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজ, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স, ডরিন পাওয়ার, ফরচুন সুজ এবং বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস।
দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৬০ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৯৫৭ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ৫ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ২৪৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ১২৭টির, কমেছে ৭৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির।