সরকারের পদক্ষেপে আম নিয়ে শংকার আঁধার কেটেছে চাষি ব্যবসায়ী উভয়ই হাসে

আপডেট: June 30, 2020, 12:13 am

চলতি মৌসুমে আমের উৎপাদন ও বিপণন নিয়ে দুশ্চিন্তা ছিল আমচাষি ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে। প্রথমত করোনাভাইরাসের প্রভাবে লকডাউন ও সাধারণ ছুটির কারণে আমের বাজারজাতের প্রশ্নটি সামনে চলে আসে। দ্বিতীয়ত ঝড় আম্ফান ও মৌসুমী ঝড়ে আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এ রকম মন্দা পরিস্থিতিতে রাজশাহীর আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা ভীষণ দুর্ভাবনার মধ্যে পড়েন। কিন্তু সরকারের সময়োচিত পদক্ষেপের কারণে প্রতিকূল পরিস্থিতির মুখোমুখি দাঁড়াতে হয় নি আমচাষি ও ব্যবসায়ীদের। বরং অন্যান্য বছর স্বাভাবিক ব্যবসার মধ্যে এতাটা সুফল পাওয়া যায় নি- যা চলতি মৌসুমে আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা পেলেন। স্বাভাবিকভাবেই এখন পর্যন্ত তারা আম কেনাবেচায় বেশ খুশি। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে এমনই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।
সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্যমতে ঝড়বৃষ্টি আর করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বাগানের আম বিক্রি করে লগ্নির অর্থ তোলা যাবে কিনা তা নিয়ে এবার দুশ্চিন্তায় ছিলেন চাষি থেকে বিক্রেতা সবাই; তবে সেই শঙ্কা সত্যি হয়নি। পাইকারি বাজার, খুচরা ফলের দোকান থেকে শুরু করে অলিগলি- সবখানেই মিলছে গ্রীষ্মের সুস্বাদু এই ফল। বিশেষ করে মহামারির কারণে অনলাইনে বেশ জমিয়ে চলছে আমের বেচাকেনা। অনলাইনে কলেজ- বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আম কেনাবেচায় জড়িত হয়েছে এবং তারা সফল ও সুনাম কুড়িয়েছে।
তবে আম কেনাবেচায় সরকারের পদক্ষেপ আমের বিকিকিনিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। সরকারের এই উদ্যোগ প্রশংসিত হয়েছে এবং এর সুফল আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা ভোগ করেছেন। আমচাষিরা আমের দামও পেয়েছে। কৃষক বান্ধব বিশেষ ট্রেন চালু করা সরকারের একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত ছিল। আর একটি সিদ্ধান্ত ছিল ডাকবিভাগ বিনামূল্যে কৃষকের আম রাজধানীতে পৌঁছে দিচ্ছে। এর ফলে আমচাষি ও ব্যবসায়ীদের অর্থ যেমন সাশ্রয় হয়েছে তেমনি হয়রানি ও বিড়ম্বনা থেকে মুক্ত থেকেছেন। সরকারের এই পদক্ষেপ এখনো অব্যাহত আছে।
সরকারের পক্ষ থেকে উদার সহযোগিতা ও সহমর্মিতা না থাকলে পরিস্থিতিটা কেমন হতো? আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা যে ধরনের আশংকা করছিলেন ঠিক তেমনটিই হতে পারতো। সরকারের সিদ্ধান্তের ফলে আম নিয়ে মধ্যসত্ত্বভোগীরা বাড়তি বিড়ম্বনা তৈরি করতে পারে নি। স্বাভাবিকভাবেই আম বাজারজাতকরণে হয়রানি ও প্রতারণার মুখে পড়তে হয় নি তাদের। মাঠ প্রশাসন ও পুলিশের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পুরো ব্যবসা প্রক্রিয়াকে আরো সহজ ও গ্রহণযোগ্য করে তুলেছে। সারা দেশ জুড়েই আম কেনাবেচায় সুষ্ঠু অর্থনৈতিক লেনেদেনের বিষয়টি এবার লক্ষ্য করা গেল। অর্থাৎ সরকারের উদ্যোগ সৎ হলে পরিস্থিতির আমূল পরিবর্তন যে হয় সেটা বেশ উপলব্ধি করা গেছে। করোনাভাইরাসের ফলে যে বিপর্যস্থ অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে মাঠপর্যায়ে সারা দেশজুড়ে আমব্যবসা প্রথম সাহসী ও সফল কর্মকাণ্ড। যেটা অন্যান্য অন্যান্য ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে পথ-নির্দেশনা হতে পারে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ