সাঁথিয়ায় বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসার অবরুদ্ধ || অফিস ভাঙচুর, আটক ১

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭, ১:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সাঁথিয়া প্রতিনিধি


পাবনার সাঁথিয়ার বোয়াইলমারী উচ্চবিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে নির্বাচনে বহিরাগত উচ্ছঙ্খল যুবকদের ছুরিকাঘাতে মাসুদ রানা মাছিম নামের এক সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন। পরে ওই সদস্যকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
সন্ধ্যায় সেখানেও একদল সন্ত্রাসী তার উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে। পরে ভয়ে মাছিম অজ্ঞাত স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে তার আত্নীয় স্বজন জানান। এ ছাড়া প্রিজাইডিং অফিসারকে অবরুদ্ধ করে রাখে সন্ত্রাসীরা। এসময় তারা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষ ভাঙচুর করে। এ ঘটনায় এক ছাত্রলীগ নেতাকে করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার দুপুরে।
জানা যায়, সাঁথিয়া উপজেলার নন্দনপুর ইউনিয়নের বোয়াইলমারী উচ্চবিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি নুর মোহাম্মদ ও স্থানীয় সমাজ সেবক আবু বকর সভাপতি প্রার্থী হন। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার আশঙ্কায় দুই গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে কে বা কারা অভিভাবক সদস্য ও ভোটার মাসুদ রানা মাছিমকে (৩৭) ছুরিকাঘাত করে। মূহুর্তের মধ্যে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন ত্রাসের রাজত্বে পরিনত হয়।
এসময় প্রধান শিক্ষকের কক্ষে থাকা ল্যাপটপ, কম্পিউটার, চেয়ার- টেবিলসহ ব্যাপক ভাঙচুর করে যুবকরা। শিক্ষার্থীরা কান্নাকাটি ও আতঙ্কে দিকবিদিক ছুটাছুটি করতে থাকে। বহিরাগত উশঙ্খল যুবকদের মারমুখি অবস্থানে সাঁথিয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার সিদ্দিকুর রহমান ও সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার আবদুর রাজ্জাক অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে জীবন রক্ষার্থে তারা টয়লেটে আশ্রয় নেন। সাঁথিয়া থানার ওসি হাসান ইনামকে মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানানো হলে পুলিশ ঘটনাস্থল এসে তাদের উদ্ধার করে।
স্থানীয়রা আহত মাছিমকে উদ্ধার করে পাবনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। পুলিশ নন্দনপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক আহব্বায়ক সরোয়ার হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, মামলা হলে দোষিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বোয়াইলমারী উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইকবাল হোসেন বলেন, এটা অনাকাঙ্খিত ও ন্যাক্কারজনক ঘটনা, প্রকৃত দোষীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।
এ ব্যাপারে সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান ইনাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মামলা হলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।