সাপাহারে ৭বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ || অভিযুক্ত বৃদ্ধ আটক

আপডেট: February 20, 2020, 1:22 am

সাপাহার প্রতিনিধি


নওগাঁর সাপাহারে ৭ বছরের শিশুকে জোরপূর্বক ধর্ষণ চেষ্টার অপরাধে আবদুল ওয়াহেদ (৫৭) নামে এক বৃদ্ধকে আটক করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে সাপাহার থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। আটক আবদুল ওয়াহেদ উপজেলার দিঘীর হাট মিরা পাড়ার মৃত শেখ মোহাম্মাদ নাদুর ছেলে। একই গ্রামের মিরপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অপরাধে মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে পুলিশ তাকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয়।
থানায় দায়েরকৃত মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে নির্যাতিত শিশুটির পরিবারের সঙ্গে আবদুল ওয়াহেদের ভালো সম্পর্ক থাকার ফলে সে ওই শিশুটিকে পার্শবর্তী একটি মাদ্রাসায় জালসা (ধর্মীয় সভা) শুনতে নিয়ে যাবে বলে তার মাকে জানায়।
এ সময় নির্যাতিত শিশুটি জালসা শুনতে যাবে বলে বায়না ধরলে তার মা আবদুল ওয়াহেদের সঙ্গে মেয়েকে জালসা শুনতে পাঠায়। জালসাবাড়ি নিয়ে গিয়ে ওই বৃদ্ধ শিশুটিকে নানান ধরণের খেলনা কিনে দেয়। পরে বাড়ি ফেরার পথে মেয়েটিকে মাঠের মধ্যে পাশবিক নির্যতন চালিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় আবদুল ওয়াহেদ। এসময় নির্যাতিত শিশুটি কাঁদতে থাকলে ও বাসায় তার মাকে বলে দিবে বলে জানালে আবদুল ওয়াহেদ তাকে ফুসলিয়ে আরো নানান খেলনা কিনে দেয়ার কথা বলে বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভুলিয়ে দেয়। বাসায় ফিরে কিছু না বললেও পরবর্তী সময়ে নির্যাতিত শিশুটির শারিরীক সমস্যা দেখা দিলে সে বাড়িতে তার মাকে বিষয়টি জানায়। এক সপ্তাহ পরে নির্যাতিত শিশুটির মা ঘটনাটি জানতে পেরে ১৮ ফেব্রুয়ারি গত মঙ্গলবার সকালে নওগাঁ সদর হাসপাতালে বাচ্চাটিকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। ঘটনা জানতে পেরে পুলিশ ওই দিনই আবদুর ওয়াহেদকে সন্ধ্যার দিকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয় এবং রাতেই তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করে বুধবার সকালে তাকে নওগাঁ জেলহাজতে পাঠায়।
এ ব্যাপারে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুল হাই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত ওয়াহেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে এবং তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।