সিংড়ায় গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ || শশুর-শ্বাশুড়ী ও ননদ পলাতক

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৭, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

নাটোর অফিস


নাটোরের সিংড়ায় মলি খাতুন নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ করেছে স্বজনরা। গতকাল বুধবার সকালে উপজেলার বলিয়াবাড়ি এলাকায় শশুর ফজলুর রহমানের বাড়ি থেকে মলি খাতুনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত মলি খাতুন উপজেলার কালিনগর গ্রামের মকলেসুর রহমানের মেয়ে ও একই উপজেলার বলিয়াবাড়ি গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে প্রবাসী আলমগীর হোসেনের স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে নিহত মলি বেগমের শশুর, শ্বাশুড়ী ও ননদ পলাতক রয়েছেন।
নিহত মলি বেগমের বাবা মকলেসুর রহমান জানান, গত প্রায় ৬ বছর আগে উপজেলার বলিয়াবাড়ি গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে আলমগীর হোসেনের সঙ্গে তার মেয়ে মলি খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর মলির স্বামী আলমগীর হোসেন সিঙ্গাপুরে চাকরি নিয়ে চলে যান। নিঃসন্তান মলি খাতুন তার শশুর বাড়িতে শশুর-শ্বাশুড়ি ও ননদের সঙ্গে বসবাস করে আসছিলেন। গত মঙ্গলবার রাতে প্রতিদিনের মতো তার শ্বাশুড়ির সঙ্গে ঘুমাতে যায় মলি। রাতের কোন একসময় শশুর বাড়ির লোকজন তার মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। তবে হত্যাকাণ্ডের কারণ জানাতে পারেন নি তিনি।
প্রতিবেশী জিল্লুর রহমান ও বাতেন মিয়া জানান, রাত একটার দিকে মলির মৃত্যু সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে তাদের বলা হয় গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে মলি খাতুন আত্মহত্যা করেছে। গতকাল বুধবার সকালে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে মলির শশুর-শাশুড়ী ও ননদ মৃতদেহ রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।
এ বিষয়ে সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুুল্লা আল মামুন জানান, প্রাথমিক সুরতহালে মৃতদেহের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায় নি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।