‘সিটি নির্বাচনে সংশ্লিষ্ট এলাকার এমপি প্রচারে নামতে পারবেন না’

আপডেট: জুন ৫, ২০১৮, ১:৪৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সংশ্লিষ্ট এলাকার সংসদ সদস্যদের প্রচারের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে আচরণবিধি সংশোধনের প্রস্তাব আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।
ইসি কর্মকর্তারা জানান, কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সংসদ সদস্যদের ‘সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি’র তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। বিধির ২ (১৩) এ সংজ্ঞায় এ পরিবর্তন আনা হয়েছে। তাতে সংসদ সদস্যদের প্রচারণার সুযোগ উন্মুক্ত হবে। কিন্তু প্রধান নির্বাচন কমিশনারের বক্তব্যের পর বিধির ২২ ধারায় ‘সরকারি সুবিধাভোগী অতিগুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও সরকারি কর্মকর্তা বা কর্মচারীর নির্বাচনী প্রচারণা এবং সরকারি সুযোগ-সুবিধা সংক্রান্ত বাধা-নিষেধ’ এ নতুন করে সংযোজন করা হয়েছে।
বিধিতে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট এলাকার (সিটি করপোরেশন) সংসদ সদস্যরা নির্বাচনপূর্ব সময়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বা তার পক্ষে প্রচারণা চালাতে পারবেন না ও সরকারি সুবিধা ব্যবহার করতে পারবেন না।
এক্ষেত্রে সিটি করপোরেশন নির্বাচনী এলাকার বাইরের এমপিদের প্রচারে নামতে কোনো বাধা থাকবে না বলে ইতোমধ্যে জানিয়েছেন সিইসি কে এম নুরুল হুদা।
এমপিদের স্থানীয় সরকারের নির্বাচনে প্রচারণায় সুযোগ করে দেওয়ার সমালোচনার মুখে এক ধাপ পিছিয়ে শুধু স্থানীয় এমপিদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইসি।
আগামী ২৬ জুন গাজীপুরে এবং ৩০ জুলাই বরিশাল, সিলেট ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনে নির্বাচন হবে। গাজীপুরে সম্ভব না হলেও নতুন সংশোধিত আচরণবিধি পরবর্তী তিন সিটি নির্বাচনে কার্যকর হতে পারে বলে জানান ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।
আইন মন্ত্রণালয় ইসির প্রস্তাবিত সংশোধনীতে ‘ভেটিং’ এ ভিন্নমত পোষণ করলে বা ইসির কাছে পুনর্বিবেচনার জন্য ফেরত পাঠালে বিধি সংশোধন বিলম্ব হতে পারে। কিন্তু দ্রুততার সঙ্গে মন্ত্রণালয়ের মতামত ও সম্মতি পেলেই ইসি তা গেজেট আকারে প্রকাশের অনুমোদন দেবে বলে জানান ইসি কর্মকর্তারা।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি