সিপিএলে আবারও ব্যর্থ লিটন

আপডেট: অক্টোবর ৫, ২০১৯, ১:১৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


নিজের ব্যর্থতা। দলের পরাজয়। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) লিটন দাসের অভিষেক ছিল ভুলে যাওয়ার মতো। শেষটাও মনে রাখার মতো কিছু হলো না। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের দুই ম্যাচের ক্যারিবিয়ান অভিযান তাই ব্যর্থতায় মোড়ানোই থাকল।
জ্যামাইকাস তালাওয়াহসের হয়ে বৃহস্পতিবার লিটন আউট হয়েছেন ২৫ বলে ২১ রান করে। প্রথম ম্যাচেও করেছিলেন ২১ বলে ২১ রান। শেষ চারের লড়াই থেকে আগেই ছিটকে পড়া জ্যামাইকা শেষ ম্যাচে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের কাছে হেরেছে ৭৭ রানে।
আগের ম্যাচের মতো এ দিনও লিটন ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন চার নম্বরে। ১৫৭ রান তাড়ায় জ্যামাইকা ইনিংসের প্রথম বলেই হারায় ক্রিস গেইলকে। তিনে নামা চাডউইক ওয়ালটন ফেরেন ৮ রানে। লিটন নেমেও খুব ভালো কিছু করতে পারেনি।
চাপের মধ্যে নেমে লিটন নিজেও ছিলেন একটু গুটিয়ে। দুটি চার মেরেছেন বটে, তবে ছন্দ সেভাবে পাচ্ছিলেন না। ১৮ রানে ক্যাচ দিয়েও বেঁচে যান। কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি নতুন জীবন। কিমো পলের যে বলে আউট হলেন, সেটি ছিল মারার মতোই। কিন্তু লিটন সোজা ক্যাচ তুলে দিলেন শর্ট মিড উইকেটে।
লিটনের মতো বিবর্ণ ছিল তার দলও। অথচ শুরুটা ছিল জ্যামাইকার দুর্দান্ত। ম্যাচের প্রথম ওভারেই ওশেন টমাস নেন ২ উইকেট। পরের ওভারে দুটি নেন দারভাল গ্রিন। দ্বিতীয় ওভারে ৮ রানের মধ্যে গায়ানা হারায় ৪ উইকেট।
সেখান থেকে গায়ানাকে টেনে তোলেন শোয়েব মালিক ও শেরফেইন রাদারফোর্ড। ৪৫ বলে ৭৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন মালিক। রাদারফোর্ড করেন ৪৩ বলে ৪৫। গায়ানা ২০ ওভারে তোলে ১৫৬।
জ্যামাইকা রান তাড়ায় পথে ছিল না কখনোই। লিটন দাস ও ওপেনার গ্লেন ফিলিপসের ২১ রান দলের সর্বোচ্চ। গুটিয়ে যায় তারা কেবল ৭৯ রানেই।
সিপিএলের দুই বারের চ্যাম্পিয়ন, আগের কোনো আসরেই প্লে অফের আগে ছিটকে না পড়া জ্যামাইকা এবার টুর্নামেন্ট শেষ করল পয়েন্ট টেবিলের তলানীতে থেকে। ১০ ম্যাচে তাদের জয় ছিল কেবল দুটি।