সিরাজগঞ্জ্নে সড়কের কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতি নির্বাহী প্রকৌশলীকে প্রত্যাহার : রাজশাহী জোনের দুই প্রকৌশলীকে শো-কজ

আপডেট: আগস্ট ১০, ২০১৭, ১:৩০ পূর্বাহ্ণ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি


সিরাজগঞ্জের বিভিন্ন সড়কের কাজে অনিয়ম এবং দুর্নীতির অভিযোগে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু হেনা মোস্তফা কামালকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিভিন্ন সড়ক পরিদর্শন শেষে হাটিকুমরুল গোলচত্বরে এ প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন। এসময় মন্ত্রী রাজশাহী জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রওশন আলী ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হাবিবুর রহমানকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ১০ দিনের মধ্যে এসব সড়কের সব খানাখন্দ সংস্কারের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।
এসময় তিনি বলেন, সিরাজগঞ্জে মহাসড়ক সংস্কার করার জন্য ৬ কোটি টাকা রবাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিন্তু এ টাকায় ঠিকমতো কাজ হয়নি। এর ফলে জনগণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। আগামী ১০ দিনের মধ্যে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল গোলচত্বরসহ নগড়বাড়ি-বগুড়া মহাসড়ক সংস্কারের নির্দেশ দেন মন্ত্রী। অন্যথায় কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুশিয়ারি দেন তিনি।
জানা যায়, গত রোজার ঈদের আগে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল মোড়, নলকা সেতু, সিরাজগঞ্জ-বগুড়া মহাসড়ক, নাটোর-বনপাড়া মহাসড়ক ও পাবনা-নগরবাড়ি মহাসড়কে খানাখন্দ সংস্কারের নামে ‘ছয় কোটি টাকা ভাগবাটোয়ারা, নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে’ তাদের বিরুদ্ধে এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
এর মধ্যে সিরাজগঞ্জের প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী আবু হেনা মোস্তফা কামালকে কর্মস্থল থেকে প্রত্যাহার করে সওজ প্রধান কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে। সিরাজগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী হিসেবে পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলীকে অতিরিক্তি দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, সিরাজগঞ্জ-৬ আসনের সাংসদ হাসিবুর রহমান স্বপন, জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দিকা, পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমেদসহ সড়ক বিভাগের উধ্বর্তন কর্মকর্তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ