সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ৯৯ সেন্টিমিটার উপর || পানিবন্দি ২ লক্ষাধিক মানুষ

আপডেট: জুলাই ২০, ২০১৯, ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি


সিরাজগঞ্জ পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি বেড়ে গতকাল শুক্রবার সকালে বিপদ সীমার ৯৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। পানি বৃদ্ধির কারণে জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। যমুনা নদী অভ্যন্তরণী নদীগুলোতে পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। বন্যার্ত মানুষেরা উঁচু বাঁধ, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিচ্ছে।
সিরাজগঞ্জ জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, সিরাজগঞ্জ সদর, কাজিপুর, বেলকুচি, চৌহালী ও শাহজাদপুর উপজেলার নদীবেষ্টিত ৫টি উপজেলার ৩৬টি ইউনিয়নের ২ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এদের মধ্যে ৩৫৪টি আশ্রয়কেন্দ্রে স্থান পেয়েছে প্রায় ১১ হাজার বন্যার্ত মানুষ। ১৬৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে আরও ৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্র জানিয়েছে, জেলার প্রায় ৭ হাজার ৫৪১ হেক্টর পরিমান জমির পাট, রোপা আমন,আউশ ও সবজির খেত তলিয়ে গেছে।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, বন্যার্তদের মধ্যে বিতরণের জন্য ৩৫৪ মেট্রিক টন চাল, ৫ লাখ টাকা ও ৩ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বন্যা আক্রান্ত ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। তবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের তুলনায় ত্রাণসামগ্রীর পরিমান খুবই অপ্রতুল।