সিরিয়ায় আইএসের বোমা হামলায় মার্কিন সৈন্যসহ নিহত ১৯

আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০১৯, ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সিরিয়ার মানবিজ শহরে এক বোমা হামলায় চার মার্কিনিসহ ১৯ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস।
জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) বুধবারের এ বোমা হামলার দায় স্বীকার করে একে আত্মঘাতী হামলা বলে দাবি করেছে, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।
‘আইএস পরাজিত হয়েছে’, এ কথা ঘোষণা করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়া থেকে অবিলম্বে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়ার কয়েক সপ্তাহের মধ্যে হামলাটি চালানো হল।
নিহত চার মার্কিন নাগরিকের মধ্যে দুই মার্কিন সৈন্য ও মার্কিন সামরিক বাহিনীর হয়ে কাজ করা দুই বেসামরিক রয়েছেন।
এ হামলাকে ২০১৫ সালে সিরিয়ায় মার্কিন বাহিনী মোতায়েনের পর থেকে তাদের ওপর চালানো সবচেয়ে প্রাণঘাতী হামলা বলে মনে করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে থাকা মানবিজে তাদের ওপর এ হামলা হল।
এ বোমা হামলায় চার আমেরিকান নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী। বিস্ফোরণে আরও তিন মার্কিন সৈন্য আহত হয়েছেন বলেও জানিয়েছে তারা।
বুধবার মানবিজ থেকে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, মার্কিনরা একটি রেস্তোরাঁয় বসে নিজেদের সমর্থিত মিলিশিয়ার বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করার সময় হামলা ঘটনাটি ঘটে।
যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর কেন্দ্রীয় কমান্ড এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মানবিজে স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা চলার সময় হামলাটি হয়।
পরে এক বিবৃতিতে আইএস জানিয়েছে, এক সিরীয় যোদ্ধা মানবিজে বিদেশি টহল দলের ওপর নিজের আত্মঘাতী ভেস্টের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।
দুজন প্রত্যক্ষদর্শী রয়টার্সকে হামলার বর্ণনা দিয়েছেন।
একজন বলেছেন, “আমেরিকানদের লক্ষ্য করে একটি রেস্তোরাঁর কাছে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। সেখানে তাদের সঙ্গে মানবিজ সামরিক কাউন্সিল বাহিনীর কিছু ফোর্সও ছিল।”
যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দি নেতৃত্বাধীন বাহিনীগুলো ২০১৬ সালে আইএসকে হটিয়ে মানবিজের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকে শহরটি এই সামরিক কাউন্সিলের কর্তৃত্বাধীনে আছে।
এক বিবৃতিতে কাউন্সিল জানিয়েছে, নিহত বেসামরিকদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। বিবৃতিতে তারা ‘বীর আমেরিকান সৈন্যদের’ মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে।
মানবিজের কাছেই রাশিয়া সমর্থিত সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর নিয়ন্ত্রিত এলাকা ও তুরস্ক সমর্থিত সিরীয় বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত এলাকা রয়েছে।
অপর প্রত্যক্ষদর্শী বোমা হামলার পর মানবিজের আকাশে ‘বহু’ সামরিক আকাশযানের উপস্থিতির কথা জানিয়েছেন।
পেন্টাগনে ভারপ্রাপ্ত মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্যাট্রিক শানাহান নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।
সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে এ পর্যন্ত প্রায় পাঁচ লাখ লোক নিহত হয়েছেন। এ যুদ্ধের কারণে দেশটির মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। এ যুদ্ধ বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক শক্তিগুলোকে টেনে আনলেও যুদ্ধের এ শেষ পর্যায়ে প্রেসিডেন্ট আসাদই দেশটির অধিকাংশ অঞ্চলে নিয়ন্ত্রণ পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছেন।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ