সুযোগ পাচ্ছেন মোসাদ্দেক, লিটন ও রুবেল

আপডেট: মে ১৫, ২০১৯, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


খানিকটা চোট, খানিকটা বিশ্রাম আর কিছুটা পরখ করে দেখার তাড়না, সব মিলিয়ে বাংলাদেশের একাদশে আসছে অন্তত তিনটি পরিবর্তন। ত্রিদেশীয় সিরিজে প্রাথমিক পর্বের শেষ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সুযোগ পাচ্ছেন মোসাদ্দেক হোসেন, লিটন দাস ও রুবেল হোসেন।
আরেকটি বড় পরিবর্তনের সম্ভাবনাও খানিকটা আছে। হ্যামস্ট্রিং ও শরীরের পেছন দিকে ব্যথা নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরেই খেলছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গত ম্যাচের পর ব্যথা বেড়েছে আরও। বুধবার সকালে পরিস্থিতি বুঝে খেলা বা না খেলার সিদ্ধান্ত নেবেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। মাশরাফি শেষ পর্যন্ত না খেললে সুযোগ মিলবে তাসকিন আহমেদের।
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দুইবার হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলেছে বাংলাদেশ। পরিবর্তন নিয়ে তাই ভাবার সুযোগ পাচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট। যদিও এখনও ওয়ানডে অভিষেক না হওয়া নাঈম হাসান, ইয়াসির আলি রাব্বি, অনেক অনেক দিন পর ফেরা ফরহাদ রেজার সুযোগ মিলছে না। বিশ্বকাপের আগে বিশ্রাম নিতে চান না সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনেকেই।
লিটনকে জায়গা দিতে বাইরে যাচ্ছেন সৌম্য সরকার। আগের দুই ম্যাচে ফিফটি করা ব্যাটসম্যানকে বিশ্রাম দেওয়ার ভাবনা টিম ম্যানেজমেন্টের ছিল না। তবে শরীরের পেছন দিকের ব্যথার কারণে বিশ্রাম দেওয়া হচ্ছে বাঁহাতি ওপেনারকে। এই ব্যথার কারণে গত ম্যাচে বোলিং ও ফিল্ডিংয়ে বেশ ভুগেছেন সৌম্য।
বিশ্বকাপ দলে থাকা মোসাদ্দেককে খেলানো হচ্ছে মূলত অনুশীলনের কারণে, যদি বিশ্বকাপে প্রয়োজন হয়। তাকে জায়গা দিতে বিশ্রামে থাকবেন আগের দুই ম্যাচে দারুণ বোলিং করা মেহেদী হাসান মিরাজ।
বিশ্রামে থাকছেন আগের ম্যাচের ম্যান অব দা ম্যাচ মুস্তাফিজুর রহমানও। চোটপ্রবণ পেসারকে নিয়ে বিশ্বকাপের আগে বেশ সাবধানী টিম ম্যানেজমেন্ট। তার বদলে খেলানো হবে রুবেল হোসেনকে, যাকে চোট কাটিয়ে ওঠার সময় দিতে এই টুর্নামেন্টে আগে খেলায়নি দল।
চোটের কারণে প্রথম ম্যাচের পর থেকে বাইরে থাকা মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনকে বিশ্রামে রাখা হবে এই ম্যাচেও। তবে তার চোট গুরুতর কিছু নয়, জানালেন দলের ম্যানেজার মিনহাজুল আবেদীন।
ম্যাচের আগের দিন পর্যন্ত এই ছিল টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনা। টুর্নামেন্টের প্রেক্ষাপটে যেহেতু আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের গুরুত্ব ততটা নেই, ম্যাচের আগে ভাবনায় বদল আসতে পারে আরও।
এদিকে ৯ ওভারে ৫৬ রান দিয়ে উইকেট নেই। বোলিং ফিগার যেমন বিবর্ণ, আবু জায়েদের বোলিংয়ের ধরনও খুব আশা জাগানিয়া ছিল না। ব্যাটসম্যানদের ভোগাতে বা ভাবাতে পারেননি ততটা। সব মিলিয়ে অভিষেক ওয়ানডে খুব সুখকর ছিল না তার। তবে আপাতত সেখানেই থামতে হচ্ছে না, এই পেসার সুযোগ পাচ্ছেন আরেকটি। ত্রিদেশীয় সিরিজে সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষিক্ত আবু জায়েদ একাদশে থাকছেন বুধবার আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেও।
মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের চোট সুযোগ করে দিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আবু জায়েদকে খেলানোর। সুযোগটি সেভাবে কাজে লাগতে পারেননি তিনি। দুই দিকে সুইং করাতে পারেন, নতুন বলে বেশি কার্যকর বিবেচনায় তাকে রাখা হয়েছে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে। ম্যাচে তার হাতে নতুন বলই তুলে দিয়েছিলেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। কিন্তু সেভাবে সুইং করাতে পারেননি আবু জায়েদ, লাইন-লেংথ ছিল না ততটা ভালো। প্রথম স্পেলে ৩ ওভারে দিয়েছিলেন ২০ রান। ২ ওভারের দ্বিতীয় স্পেলে ৬ রান। তৃতীয় স্পেলে ৩ ওভারে আবার ২০ রান। আর ইনিংসের শেষ ওভারে দিয়েছেন ১০। বোলিং খুব মুগ্ধতা জাগানিয়া না হলেও চেষ্টার ছাপ ছিল। সেটি দেখে আর পারিপার্শ্বিকতা মিলিয়ে আবারও সুযোগ দেওয়া হচ্ছে এই পেসারকে, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানালেন মাশরাফি। “অভিষেক ম্যাচে অনেক সময় অনেকে নার্ভাস থাকে। অনেক চাপ থাকে। নিজেকে তাই হয়তো সেভাবে মেলে ধরতে পারেনি। তবে আমার মনে হয়, ওর বোলিং খারাপ ছিল না। চেষ্টা করেছে। একটা ম্যাচ দেখে বিচার করা কঠিন।” “ও যেহেতু আমাদের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে আছে, ওকে আত্মবিশ্বাসী করে তোলার ব্যাপারও আছে। আর যেহেতু ফাইনাল নিশ্চিত হয়েছে, সাইফকেও আরেকটু বিশ্রাম দেওয়া যেতে পারে। সব মিলিয়ে রাহির (আবু জায়েদ) আরেকটি সুযোগ পাওয়া উচিত বলে আমাদের মনে হয়েছে।”-বিডিনিউজ