সোমবার বগুড়া-৬ আসনের ভোট : সকল কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার

আপডেট: জুন ২২, ২০১৯, ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

বগুড়া প্রতিনিধি


টি জামান নিকেতা, জিএম সিরাজ, নুরুল ইসলাম ওমর, রফিকুল ইসলাম, মনছুর রহমান ও মিনহাজ মন্ডল (ছবিতে উপরে বাম থেকে)-সোনার দেশ

আর একদিন পরই সোমবার (২৪ জুন ) বগুড়া-৬ (সদর) আসনের শুন্য ঘোষিত আসনে নির্বাচন। আজ শনিবার রাত থেকেই শেষ হচ্ছে প্রচার প্রচারনা। তাই শেষ সময়ের প্রচারনায় ব্যস্ত প্রার্থীরা। নির্বাচন উপলক্ষে প্রধান নির্বাচন কশিনার, নির্বাচন কমিশন সচিব, দুটি প্রধান রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপির কেন্দ্রের সিনিয়র নেতারা এসে ঘুরে গেছেন।
বগুড়ার এই নির্বাচন হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে। ইতোমধ্যে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাদের দুই দিনব্যাপি হাতে কলমে ইভিএম এ ভোট গ্রহণ প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। ভোটারদেরকে ইভিএম এ ভোট প্রদান সম্পর্কে সম্যক ধারনা দেয়ার জন্য প্রতিটি কেন্দ্রে ডেমোনেস্টেশন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। আজ শনিবার প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একযোগে মক ( মহড়া ) ভোটিং কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। এদিন ভোটারদের স্ব-স্ব কেন্দ্রে গিয়ে ভোটপ্রদান সম্পর্কে জানার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। এজন্য প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন। ইভিএমে ভোট প্রদান সম্পর্কে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে বগুড়া জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার এক মতবিনিময় সভা গতকাল শুক্রবার বেলা ১১ টায় জেলা নির্বাচন অফিসের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তব্য দেন জেলার সিনিয়র নির্বাচনও রির্টানিং কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ, নির্বাচন কমিশনের আইটি অফিসার মেজর মাজহারুল হাসান, স্কোয়াড্রন লিডার কাজী আশিকুজ্জামান, উপজেলা নির্বাচন অফিসার আনিছুর রহমান, মো. সাখাওয়াত হোসেন, সাবিনা ইয়াসমিন প্রমুখ। মতবিনিময় সভায় জানানো হয়, ২৪ জুন ভোট কেন্দ্রগুলোতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে। বগুড়া সদর আসনে ১শ৪১টি কেন্দ্রে ৯৬৫টি কক্ষে ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৪শ৫৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার ইভিএম এর মাধ্যমে প্রদান করবেন।
বগুড়ায় উপ নির্বাচনে প্রার্থীরা এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। দলীয় নেতা কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করে ও সাধারণ মানুষের কাছে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন দিনরাত। সময় যতই ঘনিয়ে আসছে প্রচারনার মাত্রাও বাড়ছে ততই। শহরও শহরতলীর চার দোকানসহ বিভিন্ন আড্ডায় এখন শুধুই নির্বাচনি আলাপ। প্রার্থীদের পাশাপাশি সমর্থক ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরাও প্রচারনায় নেমেছেন নিজ নিজ অবস্থান থেকে। বগুড়া-৬ (সদর) এর নির্বাচনে প্রধান তিন দল আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ছাড়াও একটি স্বতন্ত্র বাংলাদেশ কংগ্রেস এবং বাংলাদেশ মুসলিম লীগের প্রার্থী রয়েছে।
নির্বাচন কমিশন ঘোষিত শিডিউল অনুযায়ি ২৪ জুন বগুড়া সদর আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে , বগুড়ার ১০টি ই্উনিয়ন ও পৌরসভা নিয়ে গঠিত বগুড়া সদর নির্বাচনী এলাকায় মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৪শ ৫৮ জন । এর মধ্যে নারী ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৯৫ হাজার ৭শ’ ৯০ জন ও পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৯১ হাজার ৬শ ৪৮ জন । বগুড়ার ১শ’৪১ টি ভোট কেন্দ্রের ৯শ’৬৫টি বুথে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হবে।
বগুড়া-৬ (সদর) এর নির্বাচনি মাঠটা দেখাযায় বিগত ১৯৭০ সারে আওয়ামীলীগের মাহমুদুল হাসান খান, ৭৩ সালেও আওয়ামীলীগের হাসেম আলী খান জিহাদী, ৭৯ সালে বিএনপির এসএম ফারুক, ৮৬ সালে জামাতের আবদুর রহমান ফকির, ৮৮ সালে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইদুর রহমান ভান্ডারী, ৯১ এ বিএনপির অ্যাড. মজিবর রহমান, ৯৬ এর নির্বাচনে বিএনপির খালেদা জিয়া পরে উপ নির্বাচনে অ্যাড. জহুরুল ইসলাম, ২০০১ সালে বিএনপির বেগম খালেদা জিয়া, ২০০৮ সালের নির্বাচনে জমির উদ্দিন সরকার এবং ২০১৪ সালে মহাজোটের জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমর নির্বাচিত হয়েছিলেন। আর গত ২০১৮’র ডিসেম্বরের নির্বাচনে এখান থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন বিএনপির মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এবার মহাজোট এবং আওয়ামীলীগের এ পর্যন্ত সমঝোতা না হওয়ায় জাতীয় পার্টির সাবেক চিপ হুইপ নুরুল ইসলাম ওমর ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক টি জামান নিকেতা প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। বিএনপির সাবেক সাংসদ ও জেলা বিএনপির আহবায়ক জিএম সিরাজ ধানের শীষ নিয়ে এই আসনে নির্বাচন করছেন। এছাড়াও জাতীয় পার্টির সাবেক সাংসদ নুরুল ইসলাম ওমর লাঙ্গল, বাংলাদেশ কংগ্রেস এর প্রার্থী মনসুর রহমান ডাব, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ এর প্রার্থী রফিকুল ইসলাম হারিকেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজ মন্ডল আপেল মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছেন। এআসনের উপনির্বাচনে আরেকজন স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ কবির আহমেদ মিঠু বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।
এদিকে নৌকা মার্কার প্রার্থী টি জামান নিকেতার পক্ষে ১৪ দলীয় জোট মাঠে নেমেছে। এই জোটের পক্ষ থেকে নৌকায় ভোট চেয়ে মিছিল সমাবেশ থেকে শুরু করে গণসংযোগ করা হয়েছে। এই জোটের নেতা কর্মীরা আওয়ামীলীগের বিভিন্ন নির্বাচনি সমাবেশে যোগ দিয়ে বক্তব্যও রাখছেন। তবে বিএনপি গোলাম মো. সিরাজের পক্ষে প্রার্থীর পক্ষে এখনও পর্যন্ত জোটের শরিকদের মাঠে দেখা যায়নি। গত ১২ জুন বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন গোলাম মো. সিরাজ। এদিন সাংবাদিকরা তাকে এই নির্বাচনে জামায়াতের অবস্থান বিষয়ে জানতে চান। প্রতিউত্তরে বিএনপির প্রার্থী জিএম সিরাজ বলেন, তাদের ছাড়াই বিএনপি প্রার্থী বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। এই নির্বাচনে তারা যদি আসে তাহলে আমরা স্বাগত জানাবো। আর না এলে আমাদের কোন ক্ষতি হবে না।’
নৌকার প্রার্থী টি জামান নিকেতা বলেন, ভোটের মাঠে মানুষের কাছে যাচ্ছি। মাঠ পর্যায়ের মানুষরা আমাকে স্বাদরে গ্রহণ করছে। নেত্রী আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমি নির্বাচন করছি। গণসংযোগ করছি। সাড়া পাচ্ছি সর্বস্তরের মানুষের। তিনি বলেন, আমাকে ১৪ দলীয় জোট সমর্থন দিয়েছে। তারাও কাজ করছে। আশারাখি নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে আসনটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে পারব।
বিএনপির প্রার্থী জিএম সিরাজ জানান, আসনটি যেহেতু বেগম খালেদা জিয়া এবং আমাদের নেতা তারেক রহমানের। এখানে শুধু দেখা করা। এখানে পরাজয় কথাটি ভাবতেও পারিনা।
শুক্রবার উপ নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মিনহাজ মন্ডল আপেল মার্কায় ভোট চেয়ে সদরের সাবগ্রাম ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে গণসংযোগ করেন। এছাড়াও তিনি শাখারিয়ায় পথসভা করেন। সভায় বগুড়ার উন্নয়নের জন্য বহিরাগত নয় স্থানীয় প্রার্থীকে ভোট দেয়ার আহবান জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ