স্কুলে স্কুলে বই উৎসব || রাজশাহী বিভাগে বই পেল ৪৬ লাখ ৯২ হাজার ৫১৫ জন শিক্ষার্থী

আপডেট: জানুয়ারি ২, ২০১৮, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নতুন বই উৎসবের দিনে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের মাঝে মিশে গেলেন নগর আ’লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন-সোনার দেশ

প্রত্যেকের হাতে নতুন বই। নতুন বইয়ের গন্ধে মুখরিত চারদিক। যেন শিক্ষার্থীরা রূপকথার রাজ্যে প্রবেশ করবে, তারই অপেক্ষা। নতুন বই মানেই তো নতুন রাজ্য। ঘড়ির কাঁটা ধরে সেই উৎসবই শুরু হলো। বই উৎসব। উৎসবমুখর পরিবেশে লাখ লাখ শিক্ষার্থী পেলো নতুন বই।
আর এই উৎসবের মাধ্যমে রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় প্রাথমিক, মাধ্যমিক, দাখিল, ভোকেশনালসহ সব ক্যাটাগরি মিলে ১৯ হাজার ৭১৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৪৬ লাখ ৯২ হাজার ৫১৫ জন ছাত্রছাত্রী পেলো নতুন বই। তাদের মধ্যে মোট ৪ কোটি ১৩ লাখ ৬৭ হাজার ৩৫৯ টি বই বিতরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রাথমিক পর্যায়ের ১৫ হাজার ২৯৯টি স্কুলের ২৪ লাখ ৫৫ হাজার ৫২৮ জন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে বই বিতরণ করা হয়েছে এক কোটি ১৫ লাখ ৫৩৯ টি। আর মাধ্যমিক পর্যায়ে তিন হাজার ৯১৫ টি স্কুলের স্কুলের ২২ লাখ ৩৬ হাজার ৯৮৭ জন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে বই বিতরণ করা হয়েছে ২ কোটি ৯৮ লাখ ৬৬ হাজার ৮২০টি।
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের রাজশাহী বিভাগের উপপরিচালক আবুল খায়ের জানান, প্রতিটি স্কুলেই বই উৎসবের মাধ্যমে বই বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। চাহিদা অনুযায়ী শতভাগ বই বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। কোথাও বই না পাওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরীও একই কথা জানান। তিনিও জানিয়েছেন, বিভাগের প্রতিটি স্কুলে শতভাগ বই বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে।
বই নিতে আসা তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী সুমাইয়া বলে, নতুন বই পেয়ে তার অসম্ভব ভালো লাগছে। মনে হচ্ছে, এখনই বই খুলে পড়তে শুরু করি। আর নতুন বই নাড়াচাড়া করার মজাও আলাদা। সপ্তম শ্রেণির ছাত্র রায়হানুল হক নতুন বই পেয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত। তার ভাষায়, প্রথম শ্রেণি থেকেই নতুন বই পাচ্ছি। তারপরও যখন নতুন বই হাতে পাই তার মজাই আলাদা। অদ্ভুত ভালো লাগা কাজ করে।
বই বিতরণ উপলক্ষে গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় রুয়েট চত্বরে অবস্থিত অগ্রণী স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাধ্যমিক পর্যায়ের পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবের মূল অনুষ্ঠান মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরী। প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী সদর আসনের সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার নূর উর রহমান। এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, অগ্রণী বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
এছাড়া প্রাথমিক পর্যায়ের বিভাগীয় বই বিতরণের মূল উৎসব অনুষ্ঠিত হয় প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে। এতে সভাপতিত্ব করেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের উপ-পরিচালক আবুল খায়ের। প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী সদর আসনের সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরী। এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নফীসা বেগম।
সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, শিক্ষানীতি অনুযায়ী প্রতিটি শিক্ষার্থীর হাতে বিনামূল্যে বই তুলে দেয়ার জন্য আইন করা উচিত। যাতে অন্য কেউ কখনো এ আইন লঙ্ঘন করতে না পারে। আইন হলে তখন যে সরকারই ক্ষমতায় আসুক না কেন, শতভাগ শিক্ষার্থীর হাতে বই তুলে বাধ্য থাকবে।
রাজশাহী মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ: রাজশাহী মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে জাতীয় বই উৎসব উদযাপন করা হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ও প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নূর-উর-রহমান। সভাপতিত্ব করেন, অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান। প্রধান অতিথি শিক্ষার্থীদের নতুন বই তুলে দেন। এসময় তিনি বর্তমান সরকারের শিক্ষাক্ষেত্রে বিভিন্ন সাফল্য কথা তুলে ধরেন।
খাদেমুল ইসলাম বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ: জাতীয় বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। এসময় প্রথম-নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মাঝে এই বই বিতরণ করা হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল হাদী। উপস্থাপনা করেন, প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক রতন কুমার মন্ডল। সভাপতিত্ব করেন, অধ্যক্ষ রণজিৎ কুমার সাহা ও সঞ্চালনা করেন, সহকারী শিক্ষক খুরসেদা খানম।
হামিদপুর স্কুল ও মেহেরচন্ডী স্কুল: নগরীর হামিদপুর নওদাপাড়া পাইলট হাই স্কুলের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বই বিতরণে প্রধান অতিথি ছিলেন, শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি নূর কুতুবুল আলম মান্নান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, শাহমখদুম থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাহাদত আলী শাহু, শাহমুখদুম ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আমিনুল রহমান। এতে সভাপতিত্ব করেন, সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র রাসিক সরিফুল ইসলাম বাবু ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান, আশরাফ আলী, তাজুল ইসলাম, সাজেদা হক, সাহেব আলী, নওদাপাড়া বাজার কমিটির সম্পাদক আব্দুস সাত্তার।
এদিকে, মেহেরচন্ডী উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম বারের মতো সরকার প্রদত্ত বিনামূল্যে বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি নূর কুতুবুল আলম মান্নান। বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন, শাহমুখদুম ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আমিনুল রহমান, মিনাজ্জুল হোসেন বাবু, বিশিষ্ঠ সমাজসেবক, সাকেব ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাসুদা মল্লিক কমি, সাবেক প্রধান শিক্ষক নুরুল হক, সমাজসেবক মো. সিদ্দিক। এতে সভাপতিত্ব করেন, সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র রাসিক সরিফুল ইসলাম বাবু ।
বিবি হিন্দু অ্যাকাডেমি: জাতীয় বই উৎসব উদযাপন করা হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা শিক্ষা অফিসার রফিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ২২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল হামিদ সরকার টেকন। সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জগদীশ চন্দ্র ঘোষ।
স্বাগত বক্তব্য দেন, প্রধান শিক্ষক রাজেন্দ্র নাথ সরাকার। এসময় পরিচালনা কমিটির সদস্য, ডাবলু সরকার বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক অনল কুমার মন্ডল।
হাউজিং এস্টেট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়: বিদ্যালয় প্রঙ্গনে সকালে বই বিতরণ করা হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন, সাংসদ বেগম আখতার জাহান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, নগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য তাজুল ইসলাম ও অভিভাবক সদস্য বাবু হেমন্ত চন্দ্র বর্মন। সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইদুল ইসলাম। পরিচালনা করেন, সিনিয়ম শিক্ষক নার্গিস জাকিয়া সুলতানা।
মহিষবাথান আদর্শ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়: জাতীয় বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবুল কালাম মাসুদ। সভাপতিত্ব করেন, প্রধান শিক্ষক মাহাবুব-উল আলম। এসময় শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
শিরোইল কলোনি উচ্চ বিদ্যালয়: বিদ্যালয় প্রঙ্গনে সকালে বই বিতরণ করা হয়। সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সৈয়দ আখতারুল আলম। এসময় উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক রাজশাহীর আলো পত্রিকার সম্পাদক আজিবার রহমান। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিন।
ইম্পেরিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ: সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে বই বিতরণ করা হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন, নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী চেম্বারের সভাপতি মনিরুজ্জামান, রাজশাহী কিন্ডার গার্টেন অ্যান্ড স্কুল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি গোলাম সারওয়ার, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কামরু, মহিলা কাউন্সিলর জোন-৪ বিলকিস বানু প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন, ইম্পেরিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ চেয়াম্যান আবদুল মমিন তালুকদার। পরিচালনা করেন, কিন্ডার গার্টেন অ্যান্ড স্কুল অ্যাসোসিয়েশনের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট লিয়াকত আলী।
শিক্ষা স্কুল অ্যান্ড কলেজ: সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে বই বিতরণ করা হয়েছে। প্রধান অতিথি থেকে বই বিতরণ করেন, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান কামরু। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, অবসবরপ্রাপ্ত উপাধ্যাক্ষ ইসরাফিল হোসেন, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মাহাতাব আলী, ইউনিয়ন ব্যাংক ব্যবস্থাপক নজরুল ইসলাম, বিদ্যালয় পরিচালক মারুফ হোসেন বাদল। সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয় অধ্যক্ষ ইব্রাহিম হোসেন। সরকারী নির্দেশনা ও কার্যক্রমের অংশ অনুয়ায়ী ১ম শ্রেণি থেকে ৫ম শ্রেণির ২১১ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ করা হয়।
মসজিদ মিশন অ্যাকাডেমি: সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে বই বিতরণ করা হয়েছে। বক্তব্য দেন, এনামূল হক, সহকারী প্রধান শিক্ষক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।