হিমালয়ে ৪৭ দিন ধরে নিখোঁজ পবর্তারোহীকে উদ্ধার

আপডেট: April 28, 2017, 12:15 am

সোনার দেশ ডেস্ক



হিমালয় পর্বতমালায় ট্রেকিং করতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার দেড় মাসেরও বেশি সময় পর তাইওয়ানি এক পর্বতারোহীকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।
বিবিসি জানিয়েছে, ৪৭ দিন আগে ২১ বছর বয়সী লিয়াং শেং য়ু ও তার বান্ধবী ১৯ বছর বয়সী লিউ চেন চুন ট্রেকিং করতে গিয়ে হারিয়ে গিয়েছিলেন।
উচ্চ পার্বত্য এলাকায় তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযানে পারদর্শী উদ্ধারকারীদের একটি দল নেপালের ধাদিং জেলার টিপলিং গ্রামের কাছে সাড়ে আট হাজার ফুট উচ্চতার একটি গিরিখাত থেকে বুধবার লিয়াংকে উদ্ধার করে। তার বান্ধবীর মৃতদেহ কাছেই পড়েছিল। উদ্ধারের পর জরুরিভিত্তিতে লিয়াংকে কাঠমা-ুর গ্রান্দি আন্তর্জাতিক হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়। তার অবস্থা এখন স্থিতিশীল বলে জানা গেছে। লিয়াংয়ের চিকিৎসক ডাঃ সঞ্জয় কার্কি জানিয়েছেন, সে এখন ধীরে ধীরে কথা বলতে পারে।
“সে বলেছে তার বান্ধবী তিন দিন আগে মারা গেছে। কোনো আঘাতে লিয়াং আহত হয়নি, কীটের কামড়ে তার শরীরে ক্ষত তৈরি হয়েছিল,” বলেন সঞ্জয়।
সাত সপ্তাহ আগে নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে লিয়াং ৩০ কেজি ওজন হারিয়েছেন। তাকে যখন উদ্ধার করা হয়, তার চুল উকুনে ছেয়ে ছিল এবং একটি পা কীটে ঢাকা পড়েছিল।
চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, পানি ও লবণের কারণেই সে বেঁচে গেছে।
তাইওয়ানের ডং হওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লিয়াং ও লিউ ফেব্রুয়ারিতে ভারত হয়ে নেপালে প্রবেশ করেন। শেষবার ৯ মার্চ ধাদিংয়ের উত্তরাঞ্চলে তাদের দেখা গিয়েছিল। ভারী তুষারপাত সত্বেও ওই সময় তারা ট্রেকিং করতে বের হয়েছিলেন।
কথামতো ১০ মার্চ তারা বাড়িতে ফোন না করায় তাদের পরিবার উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠে। পাঁচ দিন পর তারা সরকারের কাছে বিষয়টি জানিয়ে সাহায্য চায়।
তাদের খোঁজ করতে নেপালি পুলিশ তিন জন গাইডকে ভাড়া করে এবং একটি হেলিকপ্টার দিয়ে নিখোঁজদের খুঁজতে শুরু করে। কিন্তু ভারি তুষারপাত ও ভূমিধসের কারণে উদ্ধার প্রচেষ্টা ব্যাহত হয়।
বুধবার স্থানীয় সময় সকাল ১১টার দিকে স্থানীয় বাসিন্দারা প্রথম লিয়াংকে দেখতে পায়। তাদের কাছে খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে একটি হেলিকপ্টার পাঠিয়ে বান্ধবীর লাশসহ তাকে উদ্ধার করা হয়।  – বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ