হোয়াট্সঅ্যাপকে টেক্কা দিতে মাঠে নামছে গুগল!

আপডেট: জুন ১৪, ২০১৮, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মোবাইল থেকে তো মেসেজ করেন। কিন্তু বাড়ির কম্পিউটারে কাজ করার সময় যদি ব্রাউজারের মাধ্যমেই মেসেজ করা যায়, তবে কেমন হয়! ভবিষ্যতে এমনটাই সুবিধা পেতে পারেন নেট ব্যবহারকারীরা। সৌজন্য গুগল। হোয়াট্সঅ্যাপের রমরমার বাজারে থাবা বসাতেই কি এমন পরিকল্পনা? জল্পনা শুরু হয়েছে।
গুগলের ব্রাউজার ক্রোম থেকেই এসএমএস করার সুবিধা রয়েছে। তবে‘অ্যান্ড্রয়েড মেসেজেস’ নামের ওই মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনটি নেটিজেনদের কাছে খুব একটা জনপ্রিয় হয়নি। এ বার ওই অ্যাপ্লিকেশনই ঢেলে সাজানোর কথা ভাবনা-চিন্তা করছে গুগল। যদিও এ নিয়ে এখনও মুখ খোলেননি গুগল কর্তৃপক্ষ। গোটাটাই রয়েছে প্রকল্পের স্তরে।এবং এর কাজও চলছে অত্যন্ত গোপনে। প্রকল্পের নাম ‘ডিট্টো’।
‘অ্যালো’,‘হ্যাংআউটস’,‘ভয়েস’ বা ‘অ্যান্ড্রয়েড মেসেজেস’-এর মতো গুগলের নিজস্ব মেসেজিং অ্যাপ রয়েছে। তবে সেগুলির থেকে আজকাল অধিকাংশ অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী নেটিজেনরাই হোয়াট্সঅ্যাপ, ফেসবুক মেসেঞ্জার বা অ্যাপলের আই-মেসেজ-ই ব্যবহার করেন। সেই বাজারকেই টক্কর দিতে চান গুগল।
আজকাল অধিকাংশ নেটিজেনরাই ব্রাউজার হিসেবে গুগল ক্রোম ব্যবহার করেন। ‘অ্যান্ড্রয়েড পুলিশ’ নামে এক টেকনোলজি সংক্রান্ত নিউজ ওয়েবসাইট জানিয়েছে, অ্যান্ড্রয়েড মেসেজিং অ্যাপ-এ একটি লুকোনো কোড খুঁজে পাওয়া গিয়েছে। তাতেই বোঝা যাচ্ছে, ‘অ্যান্ড্রয়েডমেসেজেস’-কে আরও উন্নত করার কাজ করছে গুগল। এতে কী সুবিধা হবে? ওই ওয়েবসাইটের দাবি, গুগলের নেক্সাস বা পিক্সেল ডিভাইসের মাধ্যমে মেসেজ করা গেলেও ডেস্কটপ থেকেও যাতে সহজেই মেসেজ করা যায় তার লক্ষ্যেই কাজ করছে সংস্থা।
কী ভাবে কাজ করবে ‘অ্যান্ড্রয়েড মেসেজেস’? খানিকটা হোয়াট্সঅ্যাপ ওয়েবের মতোই তা ব্যবহার করা যাবে। ডেস্কটপের ব্রাউজারে দেওয়া একটি ‘কিউআর’ কোড স্ক্যান করে স্মার্টফোনের মাধ্যমে খোলা যাবে ওই অ্যাপ। এর পর ফাইল, টেক্সট, ছবি পাঠানো যাবে। এই মুহূর্তে ‘অ্যান্ড্রয়েড মেসেজেস’-এর মাধ্যমে টেক্সট পাঠানো যায় না। তবে ‘ডিট্টো’- সফল হলে আগামী দিনে হোয়াট্সঅ্যাপের মতোই সব কিছু পাঠানো যাবে। শুধু ক্রোম-ই নয়, মাইক্রোসফ্ট এজ, ফায়ারফক্স, অপেরা, সাফারি এবং ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের মতো ব্রাউজারেও এই অ্যাপ ব্যবহার করা যেতে পারে।
কবে থেকে এই সুবিধা মিলবে? তার দিনক্ষণ জানা যায়নি। তবেআপাতত গুগলের তরফ থেকে সেই খবরের অপেক্ষা করতে পারেন নেটিজেনরা। তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা