১৯ ম্যাচ পর জয়ের মুখ দেখল বরিশাল

আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০১৯, ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মোহাম্মদ আশরাফুল ফেরালেন বরিশালের ভাগ্য! বললে ভুল হবে না মোটেও। কিন্তু বরিশাল বিভাগের জেতা ম্যাচে আশরাফুল অবদান নেই কোনো। ঢাকা মেট্রো থেকে বরিশাল বিভাগে যোগ দিয়ে আশরাফুল শুধু জার্সিই পাল্টেছেন। পারফর্ম করতে পারেননি।
১০ অক্টোবর শুরু হয়েছে ওয়ালটন ২১তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ। প্রথম রাউন্ডে জয় পেয়েছে বরিশাল বিভাগ। বাকি তিন মাঠের খেলা অমীমাংসিত থেকেছে।
কামরুল ইসলাম রাব্বীর প্রথম ইনিংসে আগুনে বোলিংয়ে ম্যাচ জয়ের ভিত পেয়ে যায় বরিশাল। দারুণ জয়ে লিগ শুরু করলেও বরিশাল প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে জয়ের স্বাদ পেল দীর্ঘদিন পর। নিকট অতীতে তাদের সাফল্য নেই বললেই চলে।
তিন মৌসুম, ১৯ ম্যাচ পর জাতীয় ক্রিকেট লিগে জয় পেল বরিশাল বিভাগ। এর আগে সবশেষ তারা জিতেছিল ২০১৫-১৬ মৌসুমে রাজশাহীর বিপক্ষে। রাজশাহীকে ৮ উইকেটে হারিয়েছিল তারা। ওই মৌসুমের শেষ ম্যাচ তারা ড্র করেছিল। এরপর টানা তিন মৌসুমে কোনো জয় নেই। এবারের ২০১৯-২০ মৌসুম শুরু করল জয়ে রাঙিয়ে। ২০১৫-১৬ মৌসুম থেকে জাতীয় লিগ শুরু হয় দ্বিস্তর পদ্ধতিতে। ২০১৪-১৫ মৌসুমে পয়েন্ট টেবিলের শেষ দিকে থাকা বরিশাল দ্বিতীয় স্তরে থেকে ২০১৫-১৬ মৌসুমে যাত্রা শুরু করে। ওই মৌসুমে দুই জয় ও চার ড্র নিয়ে প্রথম স্তরে উঠে আসে বরিশাল। কিন্তু প্রথম স্তরে উঠে ড্রতেই যেন শুধু সন্তুষ্ট থাকতে চায় শাহরিয়ার নাফীস, ফজলে রাব্বী ও কামরুল ইসলাম রাব্বীরা। লিগে তাদের ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স আলো ছড়াতে থাকে। কিন্তু দলগত নৈপুণ্য ছিল না। ২০১৬-১৭ মৌসুমে প্রথম স্তরে তাদের পারফরম্যান্স গড়পড়তা। ছয় ম্যাচে দুই পরাজয় ও চার ড্র। চার ড্রয়ে বরিশাল প্রথম স্তরে টিকে যায় পয়েন্ট টেবিলের তিন নম্বরে।
২০১৭-১৮ মৌসুমে তাদের একই পারফরম্যান্স। ওই মৌসুমে ছয় ম্যাচে মাত্র এক পরাজয়, ড্র পাঁচটি। পয়েন্ট টেবিলের তিনে থেকে প্রথম স্তরে টিকে যায় আবার। কিন্তু ২০১৮-১৯ মৌসুমে রাব্বীদের পারফরম্যান্স বরিশাল বিভাগকে নামিয়ে দেয় দ্বিতীয় স্তরে। ছয় ম্যাচে তিন ড্র, দুই হার, একটি পরিত্যক্ত। পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে থেকে রাব্বীরা চলে যায় দ্বিতীয় স্তরে। শেষ জয়ের পর পরবর্তীতে ১৯ ম্যাচে বরিশাল বিভাগ ড্র করেছে ১৩টি, হেরেছে পাঁচটি ও পরিত্যক্ত হয়েছে একটিতে।
এবার জয় দিয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর শুরু করল বরিশাল। দেখার বিষয় লিগের পরবর্তী পাঁচ ম্যাচে তারা একই পারফরম্যান্স ধরে রাখতে পারেন কি না। পাশাপাশি প্রথম ম্যাচে নিষ্প্রভ থাকা আশরাফুল রানে ফিরতে পারেন কি না, সেটাও দেখার অপেক্ষা।