৫৬ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগী যথাযথ চিকিৎসা পায় না

আপডেট: নভেম্বর ১৭, ২০১৯, ১:০১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


ডায়াবেটিসের গণমুখি সেমিনারে বক্তব্য দেন সমাজসেবী শাহীন আক্তার রেনী-সোনার দেশ

বিশ্বে প্রতি ৮ সেকেন্ডে ১ জন মানুষ ডায়াবেটিসে মৃত্যুবরণ করছে। কিন্তু প্রতি ২ জন ব্যক্তির ১ জন জানে না তার ডায়বেটিস আছে। এটা নিয়ে এখন ভাবা জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমাদের দেশ প্রায় ৫৬ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগী যথাযথ চিকিৎসা পায় না। তবে এর কারণ এই নয় যে, ডাক্তাররা চিকিৎসা দেয় না। বরং রোগিরাই চিকিৎসা নেয় না। আমাদের দেশে এখনও অনেক মানুষ প্রথমে হাতুড়ে ডাক্তারের কাছে যায়। আর যখন আমাদের কাছে আসে তখন আর কিছু করার থাকে না। ডায়াবেটিস’র অনেক লক্ষণ আছে। ডায়াবেটিস হলে শরীরে অনেক জটিলতা দেখা দেয়। তবে লক্ষণ ছাড়াও ডায়াবেটিস হতে পারে। এজন্য একে নিরব ঘাতক বলা হয়। ডায়াবেটিকস ধরা না পড়া পর্যন্ত আপনি বিপদের মধ্যে আছেন। ধরা পড়লে আপনি বেঁচে গেলেন। কেননা একজন ডায়াবেটিস রোগী সুশৃঙ্খল জীবনযাপনের মাধ্যমে অন্যদের চেয়ে সুন্দর জীবন পেতে পারে।
বিশ্ব ডায়বেটিস দিবস উপলক্ষে নগরীতে ডায়বেটিসের ওপর গণমুখি সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন। গতকাল শনিবার সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ডা, কাইসার রহমান চৌধুরী অডিটোরিয়ামে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। বেক্সিমকো র্ফামা’র সহযোগিতায় রাজশাহীতে ২য় বারের মতো গণমুখি সেমিনারের আয়োজন করে ডায়াবেটিক কল্যাণ কেন্দ্র।
গণমুখি এ সেমিনারে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. তবিবুর রহমান শেখের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহীন আক্তার রেনী।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে সারাবিশ্বে আলোচিত বিষয় হচ্ছে ডায়াবেটিস। তাই আমাদের সচেতন হতে হবে। আমি নিজেও একজন ডায়বেটিস রোগী। ডায়াবেটিস হলে ভয়ের কিছু নেই। ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে নিয়মতান্ত্রিক জীবনযাপন করলেই সুস্থ থাকা যাবে।
সভাপতির বক্তব্যে ডা. তবিবুর রহমান শেখ বলেন, ডায়বেটিস খুবই ভয়ানক রোগ। তবে যদি আপনার ডায়াবেটিক ধরা পড়ে এবং সঠিক চিকিৎসা নেন তবে আপনি বেঁচে গেলেন। কেননা নিয়মতান্ত্রিকভাবে জীবনযাপন করলে, পরিমিত পরিমাণে খেলে, ব্যায়াম করলে আপনি সুস্থ থাকবেন। আমিও একজন ডায়াবেটিস রোগি এবং চোখের ডাক্তার। ডায়াবেটিস সকল অঙ্গে ক্ষতি করে। চোখের পরীক্ষার মাধ্যমেও ডায়াবেটিসের জটিলতা সর্ম্পকে জানা যায়। তবে ডায়াবেটিস হলেই ভয় পাওয়ার কিছু নাই।
ডায়াবেটিক কল্যাণ কেন্দ্রের ডিরেক্টর ডা. এফএমএ জাহিদের সঞ্চালনায় সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলী, স্বাচিপ রাজশাহী জেলা সভাপতি অধ্যাপক ডা. চিন্ময় কান্তি দাস, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ডা. সানাউল হক, বেক্সিকো র্ফামা ম্যানেজার একেএম রফিক।
সেমিনারে ডায়াবেটিসের লক্ষণ, ভয়াবহতা ও করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করেন, রাজশাহী ডায়াবেটিক এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. একে আজাদ খান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, সহকারী অধ্যাপক ডা. ইমতিয়াজ মাহবুব, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ডায়াবেটোলজিস্ট অ্যান্ড অ্যান্ডোক্রাইনোলজিস্ট রেজিস্ট্রার মেডিসিন বিভাগ ডা. মতিউর রহমান। এছাড়াও অনুষ্ঠানে ডাক্তারবৃন্দ, মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী, ডায়াবেটিস রোগি ও তাদের স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ