৭ ও ১০ বছর সাজার পর এবার তারেকের যাবজ্জীবন

আপডেট: অক্টোবর ১১, ২০১৮, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বিএনপিরকর্মীদের চোখে দলের ভবিষ্যৎ কা-ারি তারেক রহমানের তৃতীয় মামলায় কারাদ- হল।
আগের দুটি মামলায় তার যথাক্রমে ৭ ও ১০ বছর কারাদ- হলেও তা ছাপিয়ে একুশে অগাস্টের গ্রেনেড হামলার মামলায় তার সাজা হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদ-।
লন্ডনে থাকা তারেককে পলাতক দেখিয়েই শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার মামলাটির এই রায় দিয়েছে ঢাকার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল। তাতে তারেকের সঙ্গে যাবজ্জীবন হয়েছে ১৯ জনের; মৃত্যুদ- হয়েছে লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের।
হত্যা ও বিস্ফোরক আইনের দুই মামলার প্রতিটিতে কয়েকটি ধারায় খালেদা জিয়ার ছেলেকে তিনবার যাবজ্জীবন কারাদ-, দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সেই সঙ্গে বিস্ফোরক আইনের আরেকটি ধারায় তার ২০ বছর কারাদ-াদেশ হয়েছে।
তবে সবগুলো সাজা একসঙ্গে কার্যকরের উল্লেখ থাকায় বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেককে যাবজ্জীবন সাজাই খাটতে হবে। পলাতক হওয়ায় বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের সুযোগও পাচ্ছেন না তিনি।
একাদশ সংসদ নির্বাচনের কয়েক মাস আগে মা খালেদা জিয়া আরেকটি দুর্নীতির মামলায় দ- নিয়ে কারাগারে থাকার মধ্যে তারেকের বিরুদ্ধে আরেক মামলার রায় হল।
এই রায় প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি বলেছে, তাদের জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলায় সরকারের ফরমায়েশি রায় দিয়েছেন বিচারক।
রায় প্রত্যাখ্যান করে বৃহস্পতিবার সারাদেশে বিক্ষোভ এবং আগামী ১৬ অক্টোবর কালো পতাকা মিছিলের কর্মসূচিও দিয়েছে তারেকের দল বিএনপি।
অন্যদিকে এই রায়ে সন্তুষ্ট হতে পারেনি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তারা তারেকের মৃত্যুদ-ের শাস্তি প্রত্যাশা করেছিল। সেই শাস্তির জন্য রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের ইঙ্গিতও দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।
তারেকের বিরুদ্ধে দায়ের করা অনেকগুলো মামলার মধ্যে মুদ্রা পাচারের মামলায় ২০১৩ সালে প্রথম রায়টি হয় এবং তাতে তিনি খালাস পেয়েছিলেন। তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আপিলের পর হাই কোর্টের রায়ে ৭ বছরের দ-াদেশ হয়।
তার পাঁচ বছর পর চলত বছরের ফেব্রুয়ারিতে জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় মায়ের সঙ্গে তারেকের কারাদ-ের রায় হয়। খালেদার হয় পাঁচ বছর কারাদ-, তারেকের হয় ১০ বছর সাজা।
এরপরই রায়ের পর্যায়ে আসে বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে অন্যতম কলঙ্কজনক অধ্যায় একুশে অগাস্টের গ্রেনেড হামলার মামলাটি।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ