অজানা জ্যাকি চ্যান!

আপডেট: June 21, 2017, 12:39 am

সোনার দেশ ডেস্ক


অভিনেতা এবং মার্শাল আর্টিস্ট জ্যাকি চ্যান ১৯৫৪ সালের ৭ এপ্রিল হংকংয়ে জন্মগ্রহণ করেন। চিনে নির্মিত পুলিশ স্টোরি, আর্মার অব গড’এর মত জনপ্রিয় ছবিতে যেমন তিনি অভিনয় করেছেন তেমনই হলিউডেও তিনি সফল! সাংহাই নুন, রাশ আওয়ার, দ্য কারাতে কিড, অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড ইন এইটি ডেইজ, দ্য ফরবিডেন কিংডম ইত্যাদি ছবি বিশ্বজুড়ে আলোচিত হয়।
মার্শাল আর্ট আর অভিনয় জগতের বাইরেও সমাজের জন্য কাজ করছেন জ্যাকি। ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। স্ট্যান্টম্যান হিসেবে ১৮ বছর বয়সে কাজ শুরু করা জ্যাকি সিনেমার সঙ্গে সখ্য ৫০ বছরেও বেশি সময় ধরে।
বিশ্ব জুড়ে জ্যাকি’র অসংখ্য ভক্ত থাকলেও তার সম্পর্কে বেশ কিছু বিষয় কিন্তু অজানা। যেমন তার স্ত্রী কে, কি করেন কিংবা কোন জিনিসকে জ্যাকি ভয় পান এই ধরনের খুঁটিনাটি বিষয় অনেকেরই অজানা। আর সেই অজানা বিষয় নিয়েই পরিবর্তনের এবারের আয়োজন।
১. জ্যাকি চ্যানের জীবনে একাধিক নারী আসলেও মন যাকে দিয়েছিলেন তিনি জোয়ান লিন। হংকংয়ের বিখ্যাত এই অভিনেত্রীও কিন্তু মন উজাড় করেই জ্যাকি’কে ভালোবাসেন। আর সে জন্যই খ্যাতির তুঙ্গে থাকাকালে শুধু জ্যাকির ঘরণী হতেই তিনি অভিনয় ছেড়ে দেন। এখনও তিনি জ্যাকির সংসার নিয়েই আছেন।
২. ছুরি, চাকু কিংবা তলোয়ারের সামনে দাঁড়াতে ভয় না পেলেও সুঁচকে বড় ভয় জ্যাকির। নিজেই এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ত্বকে সুঁচ ফোটানোর মত ভয়াবহ ব্যাপার তার জীবনে খুব কমই রয়েছে।
৩. দীর্ঘ ৫০ বছর ধরে চলচ্চিত্র জগতের সঙ্গে জড়িয়ে জ্যাকি চ্যান। খুব কম বয়সে তার প্রথম ছবি মুক্তি পায়। বিগ এন্ড লিটল ইয়ং বার ছবিটি ১৯৬২ সালে মুক্তি পায়। তখন তার বয়স মাত্র ৮ বছর।
৪. ক্যারিয়ারের গোড়ার দিকে অভিনয়ের প্রতি জ্যাকি এতটাই আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন যে কাজের জন্য দিনে মাত্র ২ ঘণ্টা ঘুমাতেন। তাও আবার অভিনয়ের ফাঁকেই সেই ঘুম সেরে নিতেন।
৫. হংকং’এর কিংবদন্তি তারকা ব্রুস লি’র সঙ্গে লড়েছিলেন জ্যাকি। ১৯৭৩ সালে মুক্তি পাওয়া ‘এন্টার দ্য ড্রাগন’ ছবিতে ব্রুস লি’র সঙ্গে লড়াইয়ের একটি দৃশ্যে অভিনয়ের সুযোগ পান জ্যাকি চ্যান। সেই সময় দুর্ঘটনাবশত জ্যাকি চ্যানের মাথায় প্রচ- আঘাত করেছিলেন ব্রুস লি। এজন্য জ্যাকির কাছে ক্ষমা চান ব্রুস। সেসময় দু’জনে কিছুক্ষণ মন খুলে কথা বলেন। মাত্র ১৯ বছর বয়সে প্রিয় তারকার সান্নিধ্য পাওয়ার সুযোগ অনেক বেশি আনন্দ দিয়েছিল জ্যাকিকে।