অজান্তে অজ্ঞাতবাস

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১, ২০১৭, ১:৫০ পূর্বাহ্ণ

জি এম হারূন


জঞ্জালকীর্ণ পুকুর পাড়ে বসে তাকিয়ে আছে মানুষটি
মাছ পায় না তবুও টোপগাঁথা বড়শি ফেলে
প্রতিদিন প্রত্যুষ থেকে সন্ধ্যা অবধি
ছিপ ধরে বসে থাকে স্থির চক্ষু মেলে।
ফাতনা নড়ে কি নড়ে না
চোখের পলক পড়ে না
ভরে না মন ভরে না তার তাই বুঝি বা
একা একা সে এভাবে বসে বসে
সময়কে অবহেলা অবজ্ঞা করে
নিত্যদিন বসে থাকে ছিপ ফেলে।

টলটলে কাকচক্ষু জলে কি প্রকার, কি পরিমাণ
মাছ আছে তাও তো জানে না অনেকে
তারা কেবল জানে ঐ জলাশয়ে প্রেত আছে
আছে অজানা বিপদ, শঙ্কুল জলে তাই
কেউ কখনো জাল ফেলে জ্বালাতন করেনি কাউকে।
অজপাড়া গাঁ গো-গ্রামের এই নতুন মানুষটি
জঙ্গলকীর্ণ জঞ্জালপূর্ণ এই গ্রামবিচ্ছিন্ন জনহীন ক্ষেত্র
ক্রয়সূত্রে মালিকানা পেয়ে প্রতিদিন প্রত্যুষে
নেয়ে এসে ছিপ ফেলে বসে আর
প্রতিদিন প্রতিবার অপরবেলায় শূন্য হাতে
ফিরে ফিরে চলে যায়Ñ
কেউ জানে না কোথায়…