অনলাইনে বাড়ছে আমের বেচাকেনা

আপডেট: জুন ৩, ২০২০, ৯:৫৪ অপরাহ্ণ

মাহাবুল ইসলাম:


নগরীতে চলছে আমের বুকিং-সোনার দেশ

রাজশাহীর বাজারগুলোতে ব্যস্ত সময় পার করছেন আম ব্যাবসায়ীরা। হাকডাক আর গ্রাহকের তেমন উপস্থিতি না থাকলেও বেড়েছে কর্মতৎপরতা। এখন একটি ফোন কলই একজন ক্রেতা সরাসরি দেখার বদলে অনলাইনে কয়েকটি ছবি আর কথার উপরে ভরসা রেখেই চলছে বেচাকেনা। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও করোনা সংক্রমণের মাঝেও আমের ভালো দাম নিশ্চিতে বড় ভূমিকা রাখছে অনলাইন মার্কেট প্লেস। এতে শঙ্কার মাঝেই হাসি ফুটেছে বাগানি ও ব্যবসায়ীদের মুখে।
রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ পরিচালক শামসুল হক জানান, গত মৌসুমে ৪-৫জন ব্যক্তি অনলাইনে ব্যবসা করছিল। কিন্তু এবার ৩৫ থেকে ৪০ জন্য ব্যক্তি অনলাইনে আমের ব্যবসা করছে।
বুধবার (৩ জুন) নগরীর শিরোইল, সাহেববাজার, হড়গ্রাম বাজার এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ব্যবসায়ীরা মান অনুযায়ী বাছাই করে প্যাকেট করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ব্যবসায়ীরা জানান, রাজশাহীর অধিকাংশ বাগানগুলোই মুকুলের সময় একটা আইডিয়া করে ব্যবসায়ীরা কিনে নেয়। প্রাকৃতির দূর্যোগের কারণে বাগানগুলোতে আইডিয়ার চেয়ে এবার বেশি ঝরেছে। এর মাঝেই আবার করোনার লকডাউন। এতে ব্যবসায়ীরা বড় ধরনের ক্ষতির শঙ্কায় ছিলো। তবে অনলাইনে আমরা যেভাবে সাড়া পাচ্ছি তা আমাদেরকে আশ্বস্থ করছে।
তারা আরো জানান, গতবছরের চেয়ে অনলাইন গ্রাহক এবার বেশি। কিন্তু চাহিদার তুলনায় যোগান কম। এতে আমের দামও বাড়ছে।
সরকার ফল ভান্ডারের তানভির আলম আনভির সরকার বলেন, সরাসরি আম আম কিনছেন এমন ক্রেতার সংখ্যা কম। আমরা অনলাইনসহ বিভিন্ন মাধ্যমে আমাদেরকে তুলে ধরছি। এবং আমরা প্রচুর অর্ডার পাচ্ছি। নিজস্ব কুরিয়ারের মাধ্যমে ফরমালিনমুক্ত আম পাঠাচ্ছি। এছাড়া রাজশাহীর মধ্যে আমরা হোম ডেলিভারিও দিচ্ছি।
অনলাইন পোর্টাল, ফেসবুক পেজ ও ফেসবুক-ম্যাসেঞ্জারের বিভিন্ন গ্রুপে প্রচারণা চালিয়ে অর্ডার নিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। অনলাইনে অর্ডার, বিকাশে পেমেন্ট আর কুরিয়ারে পন্য পৌঁছিয়ে দেওয়া এটি অনেকের কাছেই নতুন হওয়ায়; সম্ভাবনার পাশাপাশি সমস্যার কথাও বলছেন ব্যবসায়ীরা। তবে এই সমস্যগুলোর সমাধানে কুরিয়ার প্রতিষ্ঠানগুলোও তাদের সাহায্য করছেন বলে জানান তারা।
রাজশাহী আম বাজার ফেসবুক পেজের মালিক আব্দুল জলিল বলেন, অনলাইনে অর্ডার নিয়ে আমরা ৫ বছর থেকে ব্যবসা করে আসছি। অনলাইনে এখন প্রচুর সাড়া পাচ্ছি। অনলাইন মার্কেটে নতুন গ্রাহকদের নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়। যারা প্রথম শুরু করে তারা এই সমস্যাই পড়ে থাকে। তবে কিছু কুরিয়ার প্রতিষ্ঠান এটার সমাধানও করে দিয়েছে। তবে স্থায়ী গ্রাহকদের নিয়ে তেমন সমস্যা হয়না।