অনিয়মের অভিযোগ : আরডিএ প্লট বরাদ্দ বাতিলের দাবি || রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সমাবেশে বক্তারা

আপডেট: জুলাই ১০, ২০১৭, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


আরডিএ’র অনিয়মের প্রতিবাদে মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা সোনার দেশ

রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) আবাসিক প্লট বরাদ্দের নামে অনিয়মের প্রতিবাদ এবং আরডিএ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ বজলুর রহমানসহ জড়িতদের অবিলম্বে অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল রোববার সকাল ১০টা থেকে দুই ঘণ্টাব্যাপি নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ কর্মসূচিতে নগরীর বিভিন্ন পেশাজীবী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে বক্তারা অবিলম্বে আরডিএ’র প্লট কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত বজলুর রহমানের অপসারণ দাবি করেন।
বক্তারা বলেন, এ ধরনের দুর্নীতিবাজকে আরডিএ’র মতো গুরুত্বপূর্ণ সংস্থায় রাখলে সরকারের উন্নয়ন কর্মকা- ম্লান হয়ে যাবে।  একই কর্মসূচি থেকে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খানের পরিবারের বিরুদ্ধে উড়ো চিঠি দিয়ে অপপ্রচার, মুক্তিযোদ্ধা মিনহাজ উদ্দিন মিন্টুর ওপর হামলার প্রতিবাদ ও নগরীর ঐতিহ্যবাহী সোনাদীঘি ও ভুবনমোহন পার্ক সংরক্ষণের দাবি জানানো হয়।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, রাজশাহীকে পরিকল্পিত নগরী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ১৯৭৮ সালে  গঠন করা হয় রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। তবে দীর্ঘ চার দশকেও এই প্রতিষ্ঠান মানুষের আশা-আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটাতে পারেনি। ধারাবাহিকভাবে লুটপাট করা হয়েছে। সর্বশেষ প্লট বরাদ্দের নামে নজিরবিহীন কেলেঙ্কারি করেছে খোদ এ প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান বজলুর রহমান।
ধারাবাহিক প্লট কেলেংকারি ও নজীরবিহীন নিয়োগ দুর্নীতি ছাড়াও আরডিএ’র অভ্যন্তরে চলমান দুর্নীতি অনিয়মের কারণে সরকারি এ সংস্থাটি ব্যাপক আলোচনায় এসেছে। দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিকদের ফৌজদারি ও দেওয়ানি মামলার হুমকি দিয়ে উকিল নোটিশ পর্যন্ত পাঠানো হয়েছে।
বক্তারা বলেন, নিজের নজিরবিহীন দুর্নীতি ঢাকতে চেয়ারম্যান বজলূর রহমান সাংবাদিকদের প্রতিপক্ষ ভেবে তাদের বিরুদ্ধে নেমেছেন। বক্তারা সমাবেশ থেকে অবিলম্বে দুর্নীতিবাজ আরডিএ চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবি করে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ প্রশানসনের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।
রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, সাংগাঠনিক সম্পাদক দেবাশিষ প্রমানিক দেবু, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ডা. আব্দুল মান্নান, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের (আরইউজে) সভাপতি কাজী শাহেদ, রাজশাহী চেম্বারের সাবেক পরিচালক ও ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সভাপতি হারুনার রশিদ, কলাম লেখক প্রশান্ত শাহা, মুক্তিযোদ্ধা শাহাজাহান আলী বরজাহান, অ্যাডভোভোকেট এন্তাজুল হক বাবু, অধ্যাপক গোলাম সারোয়ার সুজন, পরিষদের যুগ্মসম্পাদক মঞ্জুর হাসান মিঠু, মহিলা পরিষদ রাজশাহীর সভাপতি কল্পনা রায়, নারী শিল্প উদ্যোক্তা চেয়ারম্যান সেলিনা বেগম, লেখক শাহ মোহাম্মদ জিয়া উদ্দিন, বেনেতি ব্যবসায়ী সমিতির সহসভাপতি মহেষ চন্দ্র সরকার, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবিন্দ্রনাথ সরেন, নাচোল উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবু তাহের খোকন, রাজশাহী মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের সভাপতি আবদুল মতিন, গেরিলা বাহিনীর সদস্য ও মুক্তিযোদ্ধা মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, নারী নেত্রী আফরোজা খান হেলেন ও শাহীনা বেগম প্রমুখ।
বক্তারা আরডিএর বিভিন্ন দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে বলেন, আরডিএ বারবার রাজশাহীবাসীকে হতাশ করেছে। কোনো উন্নয়ন করতে পারেনি। বরং লুটপাটের স্বর্গরাজ্যে পরিণত করা হয়েছে আরডিএকে। সমাবেশ থেকে প্লট কেলেংকারির হোতা আরডিএ’র চেয়ারম্যান বজলুর রহমান ও এস্টেট অফিসার বদরুজ্জামানের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। পাশাপাশি বনলতা প্রকল্পে চেয়ারম্যানসহ কর্মকর্তাদের নামে লুট করে নেয়া প্লট বরাদ্দ বাতিল করে কোটা অনুযায়ী স্বচ্ছতার সঙ্গে বরাদ্দেরও দাবি জানান বক্তারা।