অনেক আফসোসে দিনটা ভালো হলো না বাংলাদেশের

আপডেট: মে ২৪, ২০২২, ৯:২২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


হাতছাড়া হলো দুটি ক্যাচ। ক্যাচের মতো উঠলেও একবার একটুর জন্য গেল না হাতে। লেগ স্টাম্পের বাইরে পিচ করেছে ভেবে নেওয়া হলো না একটি রিভিউ। একবার ব্যাটসম্যান বাঁচলেন আম্পায়ার্স কলে।

এই সব কিছু পক্ষে এলে দিনটি আরও ভালো হতে পারতো বাংলাদেশের। তা তো হলোই না, বরং বারবার বেঁচে যাওয়া দিমুথ করুনারত্নের ফিফটিতে একটু যেন এগিয়েই রইলো শ্রীলঙ্কা। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার বাংলাদেশকে ৩৬৫ রানে থামিয়ে সফরকারীরা দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ২ উইকেটে ১৪৩ রানে।

৭ চারে ১২৭ বলে ৭০ রান নিয়ে খেলছেন লঙ্কান অধিনায়ক করুনারতেœ। ১১ বল খেলে রানের খাতা খুলতে পারেননি নাইটওয়াচম্যান কাসুন রাজিথা। শেষ বেলায় বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যানের উইকেট বাঁচানোর লক্ষ্য নিয়ে নামা এই লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান সফল নিজের কাজে। এর আগে দিনের প্রথম ভাগে নিজের আসল কাজ, বোলিংও করেন ভালো। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ৫ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে থামিয়ে দেন চারশ রানের আগেই।

৫ উইকেটে ২৭৭ রান নিয়ে দিন শুরু করা বাংলাদেশ এদিন যোগ করতে পারে কেবল ৮৮ রান। আগের দিনের রানের সঙ্গে কেবল ৬ রান যোগ করে বিদায় নেন লিটন দাস। রানের খাতাই খুলতে পারেননি মোসাদ্দেক হোসেন।

মুশফিকুর রহিমকে কিছুটা সঙ্গ দেন তাইজুল ইসলাম। তাদের ৪৯ রানের জুটি ভাঙার পর বেশি দূর এগোয়নি বাংলাদেশের ইনিংস।ওশাদা ফার্নান্দো ও করুনারত্নের সাবলীল ব্যাটিংয়ে শুরুটা ভালো করে শ্রীলঙ্কা। ইতিবাচক ব্যাটিংয়ে দলকে এগিয়ে নেন দুই ব্যাটসম্যান। রান আসে ওভার প্রতি চারের বেশি করে।

প্রথম ওভারে রিভিউ নিয়ে বেঁচে যাওয়া ওশাদা পরে বাঁচেন আম্পায়ার্স কলে। ব্যক্তিগত ৪৩ রানে সাকিবকে ফিরতি ক্যাচ দিয়েও টিকে যান তিনি। বুলেট গতিতে আসা বলে হাত ছোঁয়ালেও মুঠোয় জমাতে পারেননি বাঁহাতি অলরাউন্ডার।
তাকেই পরে ছক্কা মেরে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন ওশাদা, ৭৪ বলে।

পেসার ইবাদত হোসেনের বলে এলবিডব্লিউর রিভিউ নিলে ৩৬ রানে ফিরে যেতে হতো করুনারত্নের। কিপার লিটন দাস বল লেগ স্টাম্পের বাইরে পিচ করার ইশারা করায় রিভিউ নেননি মুমিনুল হক।

দুই বল পরে ওশাদাকে ফিরিয়ে ৯৫ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন ইবাদত। স্লিপে চমৎকার ক্যাচ নেন নাজমুল হোসেন শান্ত।
তাইজুল ইসলামের বলে ফ্লিক করে শর্ট লেগে কঠিন ক্যাচ দেন করুনারতেœ। কিন্তু হাতে জমাতে পারেননি মাহমুদুল হাসান জয়। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ৮৪ বলে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন করুনারতেœ।

দুই পেসার ইবাদত ও সৈয়দ খালেদ আহমেদ খারাপ করেননি, তবে লঙ্কান পেসারদের মতো ততটা প্রভাবও রাখতে পারেননি তারা। ধীরে ধীলে কুসল মেন্ডিসের সঙ্গে জুটি জমে ওঠে। মিডউইকেটে মুমিনুলের হাতে একটুর জন্য যায়নি করুনারত্নের ক্যাচ, সে সময় তিনি ছিলেন ৬৯ রানে।

খালেদের জায়গায় বোলিংয়ে এসে প্রথম বলেই আঘাত হানেন সাকিব। এলবিডব্লিউ করে দেন কুসল মেন্ডিসকে। ভাঙেন ৪৪ রানের জুটি। নাইটওয়াচম্যান রাজিথাকে নিয়ে দিনের বাকি সময়টা কোনোমতে কাটিয়ে দেন করুনারত্নে।
এখনও বাংলাদেশের চেয়ে ২২২ রানে পিছিয়ে আছে শ্রীলঙ্কা। তবে হাতে ৮ উইকেট থাকায় একটু এগিয়ে সফরকারীরাই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৩৬৫
শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ৪৬ ওভারে ১৪৩/২ (ওশাদা ৫৭, করুনারতেœ ৭০*, মেন্ডিস ১১, রাজিথা ০*; খালেদ ৯-১-২৭-০, ইবাদত ৯-০-৩১-১, সাকিব ৯-৩-১৯-১, মোসাদ্দেক ২-০-১৪-০, তাইজুল ১৭-১-৪৯-০)
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ