অপহরণের পরে গ্রাম্য চিকিৎসকে হত্যা

আপডেট: অক্টোবর ৩০, ২০২৩, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীতে অপহরণের আড়াই ঘণ্টা পরে গ্রাম্য চিকিৎসকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশের ধারনা ধারলো অস্ত্রের আঘাতে এরশাদ আলী দুলালের (৪৫) মৃত্যু হয়েছে। রোববার (২৯ অক্টোবর) সন্ধ্যা ছয়টায় অপহরণের ঘটনা ঘটলেও রাত সাড়ে ৮ টার দিকে দুলালের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত দুলাল নগরী চন্দ্রিমা থানা এলাকা কেচুয়াতৈল এলাকার শামির উদ্দিনের ছেলে।
ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, নগরীর সিটি হাট সংলগ্ন একটি কলাবাগানের পাশর্বর্তী রাস্তায় দুলালের রক্তাক্ত দেহ পড়ে আছে। পরনে গেঞ্জি ও প্যান্ট রয়েছে। গলায় কালো রঙের কাপড় জড়ানো রয়েছে।

আশেপাশে প্রচুর রক্ত পড়ে আছে। মরদেহের পাশেই রক্ত সংবলিত একটি জুতার পদচিহ্ন রয়েছে। যেটিকে পুলিশ আলামত হিসেবে নিয়েছে। এর আগে সন্ধ্যায় দুলাল আপহরণের শিকার হলেও রাত সাড়ে ৮টার দিকে নগরীর সিটিহাট এলাকা থেকে তার মরদেহ করে পুলিশ।

শাহমখদুম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাঈল হোসেন জানান, ধারনা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জেরে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সন্ধ্যায় দুলালকে অপহরণ করা হয়। অপহরণকারীরা একটি মাইক্রোবাসে দুলালের মুখ চোখ বেধে তুলে নিয়ে যায়। পরে নগরীর সিটি হাট এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ধারনা করা হচ্ছে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাস্থলে রক্ত পড়ে আছে।

তিনি আরো বলেন, এরআগে স্থানীয়রা রাস্তায় মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সিআইডিকে জানায়। তারা হত্যার আলামত সংগ্রহ করেছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে পাঠানো হবে। এবিষয়ে মামলা হবে। ময়নাতদন্তের পরে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ