অভিনেত্রীর করুণ পরিণতি

আপডেট: মার্চ ১, ২০১৭, ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



একবার তারকা হলেই যেন জীবন পাল্টে যায়। ঝলমলে পার্টি আর বিলাসবহুল জীবনযাপন। এভাবেই কেটে যায় জীবন। কিন্তু সব তারকার ভাগ্যে জীবনের শেষ পর্যন্ত বিলাসী জীবন থাকে না।
এমনই একজন অভিনেত্রী নিশা নূর। আশির দশকে বেশ কিছু জনপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করেন এই দক্ষিণী অভিনেত্রী। এক সময় তার জনপ্রিয়তা এমন ছিল যে রজনীকান্ত, কমল হাসানের মতো তারকারা তার সঙ্গে অভিনয় করতে চাইতেন। তিনি তাদের সঙ্গে অভিনয়ও করেছেন। টিক টিক টিক (১৯৮১), কল্যাণা আগাথিগাল (১৯৮৬) এবং আইয়ের দ্য গ্রেট (১৯৯০) সিনেমার জন্য বিশেষভাবে পরিচিত ছিলেন তিনি।
শোনা যায়, এক প্রযোজকের প্ররোচনায় পতিতাবৃত্তির সঙ্গে নিজেকে জড়িয়ে ফেলেছিলেন তিনি। খবরটি ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর কেউ আর তার সঙ্গে সিনেমায় অভিনয় করতে রাজি হন নি। এদিকে তার আর্থিক অবস্থাও দিন দিন খারাপ হতে থাকে। এরপর হঠাৎ সিনেমা জগত থেকে এক প্রকার উধাও হন তিনি।
কয়েক বছর পর একটি মাজারের বাইরে নিশাকে খুঁজে পাওয়া যায়। তার অবস্থা এতটাই খারাপ ছিল যে তার শরীরে পোকামাকড়, পিঁপড়া হাঁটাহাঁটি করছিল। তিনি খুবই অসুস্থ ছিলেন এবং তাকে হাসপাতালে নিয়ে পরীক্ষা করে জানা যায় তিনি এইডসে আক্রান্ত। কিন্তু এতদিন বিষয়টি তিনি জানতেন না। ২০০৭ সালে মৃত্যুবরণ করেন এ অভিনেত্রী। রাইজিংবিডি