অভ্যুত্থানবিরোধী গোষ্ঠীর হামলায় মিয়ানমারের ১০ পুলিশ নিহত

আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০২১, ৬:৩৬ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


মিয়ানমারের সামরিক অভ্যুত্থানের বিরোধিতাকারী নৃতাত্ত্বিক সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সদস্যরা থানায় হামলা চালিয়ে অন্তত ১০ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করেছে। শনিবার দেশটির পূর্বাঞ্চলে এই হামলা চালানো হয় বলে জানিয়েছে এসব গোষ্ঠীর একটি জোট। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সেনাবাহিনী অভ্যুত্থানের মাধ্যমে নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে এক বছরের জন্য দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে। তখন থেকে প্রতিদিনই মিয়ানমারের গণতন্ত্রকামী বিক্ষোভকারীরা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছেন।এসব বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এখন পর্যন্ত ৬৫০ জন নিহত হয়েছে। অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভকারীদের হত্যা করা বন্ধ না হলে গত মাসে সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে পাল্টা লড়াইয়ের হুমকি দেয় মিয়ানমারের তিনটি সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী। তা’য়াং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি, মিয়ানমার ন্যাশনালিটিজ ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্স আমি এবং আরাকান আর্মির (এএ) এক যৌথ বিবৃতিতে এই হুমকি দেওয়া হয়।
ওই গোষ্ঠী তিনটির এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, শনিবার ভোরে শান প্রদেশের নংমোন পুলিশ স্টেশনে হামলা চালায় তাদের যোদ্ধারা। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম শান নিউজ জানিয়েছে, এই হামলায় ১০ পুলিশ সদস্য নিহত হয়। তবে সুয়ে ফি মিয়াই নিউজ আউটলেট জানিয়েছে, নিহতের সংখ্যা ১৪ জন।
থানায় হামলার বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনও মন্তব্য করেনি জান্তা সরকার।
উল্লেখ্য, মিয়ানমারের রাজপথে সহিংসতা বাড়তে থাকার প্রেক্ষাপটে জান্তা সরকারকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে বিক্ষোভকারীদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেয় প্রায় এক ডজন সশস্ত্র গোষ্ঠী। এছাড়া উৎখাত হওয়া বেসামরিক আইনপ্রণেতারা একটি জাতীয় ঐক্যের সরকার গঠনের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছেন। এই সরকারে নৃতাত্ত্বিক নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার সুযোগ থাকবে বলে জানিয়েছেন তারা। সরকার গঠনের এই পরিকল্পনা নিয়ে নিয়মিতভাবে অনলাইনে আলোচনাও অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ