অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের কোষাধক্ষ্যকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত

আপডেট: জুন ৮, ২০২২, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


সাংগঠনিক নীতি বহির্ভুত কর্মকাণ্ড ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের কোষাধক্ষ্যকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (৭ জুন) জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভা শেষে জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন জানান, ইউনিয়নের কোষাধ্যক্ষ জহুরুল ইসলাম জনি একের পর এক সংগঠনের নীতিমালা বিরোধী কর্মকাণ্ড করে আসছে। সে দৈনন্দিন আদায়ের ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা আত্মসাত করেছে।

নতুন সদস্যদের পরিচয়পত্রের জন্য ২৭ টি ডি-ফরমের মোট ৫ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা জিম্মায় রেখে পরবর্তীতে সেটা সংগঠনের ফান্ডে জমা করে নি। এছাড়া জমি বিক্রয়ের শেয়ার হোল্ডার ১৭০ জন শ্রমিকের প্রত্যেকের ৩ হাজার টাকা করে মোট ৫ লক্ষ ১০ হাজার বিতরণ না করে নিজ বাড়ির নির্মাণ কাজে খরচ করেছে।

এসকল অভিযোগের ভিত্তিতে জরুরি সভায় কার্যনির্বাহী কমিটির মতামতের প্রেক্ষিতে তাকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। দ্রুতই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে। এছাড়া অর্থ আত্মসাতের মামলাও করা হবে।

সভায় মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যনির্বাহী কমিটির দুই নেতার মৃত্যুতে শূন্য পদে উপ-নির্বাচন নিয়েও আলোচনা করা হয়। জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত শ্রমিকদের সঙ্গে জরুরি মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন, মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলী। সভায় ইউনিয়নের সহ-সভাপতি, জয়েন্ট সেক্রেটারি, সহ-দপ্তর, সড়ক সম্পাদক, কার্যনির্বাহী সদস্যসহ সাধারণ শ্রমিকরাও উপস্থিত ছিলেন।