অর্ন্তবর্তী জামিন পেলেন মমতার ২ মন্ত্রীসহ গ্রেফতার ৪ জন

আপডেট: মে ১৭, ২০২১, ১০:১৩ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


নারদ কান্ডে গ্রেফতার ক্ষমতাসীন তৃণমূলের দুই মন্ত্রীসহ চারজনই অন্তর্র্বতী জামিন পেয়েছেন।
সোমবার (১৭ মে) ব্যাঙ্কশাল আদালতে বিশেষ সিবিআই আদালতে এই শুনানি চলে।
কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ভার্চ্যুয়াল শুনানির আয়োজন করা হয়েছিল।
আদালতে গ্রেফতারদের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন তৃণমূল সংসদ সদস্য আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। নারদ কান্ডে বিরোধীদলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারী ও বিজেপি বিধায়ক মুকুল রায়কে কেন গ্রেফতার করা হলো না, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।
তিনি গ্রেফতার চারজনের জামিনের আবেদন করেন। যদিও এর বিরোধিতা করে সিবিআই। সিবিআই পক্ষের আইনজীবী গ্রেফতারদের জেল হেফাজতে রাখার আবেদন জানায়। সিবিআই পক্ষের আইনজীবী যুক্তি দেখান, গ্রেফতাররা বাইরে বেরিয়ে প্রমাণ নষ্ট করে দিতে পারেন। বিবাদী পক্ষে আইনজীবীরা পাল্টা যুক্তি দেখান, ফিরহাদ কলকাতা পুরসভার প্রধান প্রশাসক। সাম্প্রতিক কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য তাকে প্রয়োজন। অন্য দিকে ম্যাথু স্যামুয়েলের স্টিং অপারেশন নিয়েই প্রশ্ন তোলেন শোভনের আইনজীবী। আদালতে চার্জশিটও জমা দেয় সিবিআই।
বিধানসভার অধ্যক্ষের অনুমতি ছাড়া মন্ত্রী এবং জনপ্রতিনিধিদের কীভাবে গ্রেফতার করা হলো আদালতে সোমবার সেই প্রশ্নও তোলেন কল্যাণ। গ্রেফতারের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে কল্যাণের মন্তব্য, রাজ্যপাল যা করেছেন পিছনের দরজা দিয়ে করেছেন। কোভিড পরিস্থিতিতে গ্রেফতার নিয়ে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের রায়ের কথাও তুলে ধরা হয় আদালতে।
সোমবার সকালেই নারদ কান্ডে গ্রেফতার করা হয় রাজ্যের মন্ত্রী তথা সাবেক মেয়র ফিরহাদ হাকিম এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে। একই সঙ্গে গ্রেফতার করা হয় কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্রকে। এই তিনজনের সঙ্গে তালিকায় ছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়ও।
সিবিআই সূত্রে খবর, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ নিজাম প্যালেসে অ্যারেস্ট মেমোয় সই করানো হয় তাদের সবাইকে।
গ্রেফতারের খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও চলে যান নিজাম প্যালেসে। ওই চারজনের গ্রেফতারকে ‘বেআইনি’ আখ্যা দেন তিনি। এ-ও বলেন, যত ক্ষণ না পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছে, তিনিও নিজাম প্যালেস ছাড়বেন না। নিজাম প্যালেসে জড়ো হন বহু তৃণমূল কর্মী-সমর্থকও। অশান্তি ছড়ায় নিজাম প্যালেসে। সিবিআই অফিস লক্ষ্য করে ভিড় থেকে পাথরও ছোড়া হয়।
তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ