অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় মহান স্বাধীনতা দিবস পালিত

আপডেট: মার্চ ২৮, ২০১৭, ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মহানগর আ’লীগের সহসভাপতি শাহীন আকতার রেনী ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান নেতৃবৃন্দ- সোনার দেশ

মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের মধ্যেদিয়ে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় পালিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। গত রোববার জাতির সূর্য সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ভোর থেকেই বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ মিনারগুলোতে মানুষের ঢল ছিল।
অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের গড়ার প্রত্যয় জানিয়েছেন বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। দিবসটি উপলক্ষে নগর আ’লীগ, জেলা আ’লীগ, জেলা প্রশাসনসহ সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা, শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ অর্পন বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচারের মাধ্যমে স্বতঃফুর্তভাবে দিবসটি পালন করেছেন। সরকারি হাসপাতাল, শিশু সদন, এতিমখানা ও কারাগারে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়। এছাড়া নগরীর বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে মাইকযোগে দেশ্বাত্ববোধক গান পরিবেশিত হয়েছে।
মহানগর আ’লীগ : এ দিবসটি উপলক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। প্রথম প্রহর রাত ১২ টা ১ মিনিটে ভূবন মোহন পার্কে শহীদদের প্রতি পুষ্পস্তবক অর্পন করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ১০ টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, সন্ধ্যা ৭ টায় কুমারপাড়াস্থ আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা নওশের আলী। সভা পরিচালনা করেন, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।
আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, মহানগর আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলী কামাল, শিক্ষা সম্পাদক সিদ্ধার্থ শংকর সাহা, সদস্য আহসানুল হক পিন্টু, রাসিকে সাবেক দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র সরিফুল ইসলাম বাবু, সিরাজুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, থানা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, ওয়ার্ড আওয়ামী নেতৃবৃন্দ ও সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
সভায় বক্তারা বলেন, ২৬ মার্চ আকস্মিক কোন দিবস বা ঘটনা নয়। ২৬ মার্চ হচ্ছে বাঙালির সযতেœ লালিত স্বাধীনতা আকাঙ্খার বাস্তব রুপ। ২৬ মার্চকে আলাদা করে বা ইতিহাসের ধারাবাহিকতার বাইরে রেখে বিবেচনা করার কোনো অবকাশ নেই। কেননা এতে করে বিভ্রান্তির সম্ভবনা থেকে যায়। শুধু তাই নয়, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যে, ৪৭-৭১ পর্যন্ত এক ধারবাহিক রাজনীতির ফসল, যার নেতৃত্বে ছিলেন রাজনীতিকরা আর কেন্দ্রীয় চরিত্রে ছিলেন বঙ্গবন্ধু, তাও অস্বীকার করা হয়।
রাজনীতির বিপরীতে সামরিকতান্ত্রিকতাকে দাঁড় করিয়ে পাকিস্তানি দর্শনের আলোকে বাংলাদেশকে সাজাবার অপপ্রয়াস থেকেই উটকো বির্তক দাঁড় করিয়ে বিভ্রান্তির জাল বুনা হয়। সুতরাং ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসকে আমাদের ইতিহাসের পরস্পরার আলোকে দেখতে হবে। তা হলেই আমরা এক উন্নত বাংলাদেশের পথে অগ্রসর হতে পারবো।
জেলা আ’লীগ : রাজশাহী জেলা আ’লীগের উদ্যোগে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সারাদিন মাইকে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ প্রচার ও মুক্তিযুদ্ধের গান বাজানো হয়। সকাল সাড়ে ৭টায় রাজশাহী কোর্ট শহীদ মিনারে লাখো শহীদের শ্রদ্ধা জানাই জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহা. আসাদুজ্জামান আসাদ নেতৃত্বে রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বদরুজ্জামান রবু, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দিন লাভলু, সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট পূর্ণিমা ভট্টাচার্য, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এহসান আহম্মেদ শাহিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক প্রভাষক শরিফুল ইসলাম।
এরপর জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ ও সাধারণ সম্পাদক খালেদ ওয়াশি কেটু নেতৃত্বে ফুল দেয়, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি রবিউল আলম বাবু ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক তাজবুল ইসলামের নেতৃত্বে কৃষকলীগ, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আবদুল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক আজাদ আলীর নেতৃত্বে শ্রমিকলীগ, জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি সালে হামিম টুটু ও সাধারণ সম্পাদক আনার এর নেতৃত্বে ভূবনমোহন পার্কে শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে জেলা তাঁতী লীগ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ, রাজশাহী জেলা যুবলীগের, জেলা কৃষকলীগ, জেলা শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ। সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বদরুজ্জামান রবু।
সভায় বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহা. আসাদুজ্জামান আসাদ। আরোও বক্তব্য রাখেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দিন লাভলু, সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান, জেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সালেহ, সাধারণ সম্পাদক খালেদ ওয়াশি কেটু, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি রবিউল আলম বাবু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক তাজবুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. পূর্ণিমা ভট্টাচার্য, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. এহসান আহম্মেদ শাহিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান, উপ-দপ্তর সম্পাদক প্রভাষক শরিফুল ইসলাম, সদস্য রোকনুজ্জামান রিন্টু, জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি সালে হামিম টুটু। সন্ধ্যায় লক্ষীপুর মোড়ে ২৬ মার্চ মুক্তিযুদ্ধের উপর প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হয়।
রাবি : যথাযোগ্য মর্যাদায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদ্যাপন করা হয়েছে। রোববার দিবসের প্রথম প্রহরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সায়েন উদ্দিন আহমেদসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সেখানে তারা অমর শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতাও পালন করেন। প্রশাসনের পর সেখানে শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালা, বিশ^বিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতিসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকেও পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
ভোরে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল সাড়ে ৬টায় বিভিন্ন আবাসিক হল, ইনস্টিটিউট, বিভাগ, অন্য পেশাজীবী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রভাত ফেরী ও শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
সকাল ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয় স্কুলে কুচকাওয়াজ ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর শেখ রাসেল মডেল স্কুলে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা, স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত দেশাত্ববোধক গান ও মুক্তিযুদ্ধের উপর কুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নাটক ‘ফিরিয়ে দেই স্বাধীনতা’। অনুষ্ঠানে কোষাধ্যক্ষ প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান করেন। সেখানে অন্যান্যের মধ্যে রেজিস্ট্রার, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক, স্কুলের অধ্যক্ষ, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে একই সময় রাবি অফিসার সমিতি, সহায়ক কর্মচারী সমিতি, সাধারণ কর্মচারী ইউনিয়ন ও পরিবহন টেকনিক্যাল কর্মচারী সমিতির নিজ নিজ কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল সাড়ে ৮টায় কেন্দ্রীয় ক্যাফেটরিয়ায় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রাবি ইউনিট কমা-ের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এদিন বিকেল সাড়ে ৫টায় প্রশাসন ভবনের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে কোষাধ্যক্ষ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ পরিবার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
দিবসের অন্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ও হল মসজিদসমূহে বিশেষ মোনাজাত, সন্ধ্যা ৭টায় কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এদিন শহীদ স্মৃতি সংগ্রহশালা সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দর্শকদের জন্য খোলা ছিল।
রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড : দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড আয়োজিত এক আলোচনা সভা বোর্ড চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক দেবাশীষ রঞ্জন রায়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আবুল কালাম আজাদ।
শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত ও পবিত্র গীতা পাঠ এবং মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের বীর শহিদদের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে এক মিনিট নিরাবতা পালন এবং জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে আলোচনা শুরু হয়।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, শিক্ষাবোর্ডের সচিব ড. আনারুল হক প্রাং, কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর আকবর হোসেন, সভার সভাপতি বিদ্যালয় পরিদর্শক দেবাশীষ রঞ্জন রায় এবং উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) বাদশা হোসেন। এছাড়া বোর্ডের সর্বস্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপন করেন, প্রধান মূল্যায়ন অফিসার (চলতি দায়িত্ব) এস এম গোলাম আজম।
রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল, সকাল ৬টায় বোর্ড চত্বরে জাতীয় পতাকার প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন এবং সকাল ৮টায় রাজশাহী কলেজ শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ। অনুষ্ঠান শেষে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী বিজয়ীদের হাতে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আবুল কালাম আজাদ পুরস্কার তুলে দেন। পরে বাদ জোহর শহিদদের স্মরণে শিক্ষা বোর্ড মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয়।
রাকাব : এদিবস উপলক্ষে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক-এর উদ্যোগে দেশের জন্য আত্মদানকারী শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের লক্ষে সকাল ৬ টায় জেলা প্রশাসন রাজশাহীর শহীদ মিনারে রাকাবের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। এ সময় ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের মহাব্যবস্থাপক (পরিচালন) মোজাম্মেল হক, মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) খোন্দকার গোলাম মোস্তফা, রাজশাহী বিভাগের মহাব্যবস্থাপক রফিকুল আলম চৌধুরী, প্রধান কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপকবৃন্দ, প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ, বিভাগীয় নিরীক্ষা কার্যালয় রাজশাহী’র বিভাগীয় নিরীক্ষা কর্মকর্তা, রাজশাহী জোনের জোনাল ব্যবস্থাপক, এলপিও’র ব্যবস্থাপকসহ প্রধান কার্যালয়, অন্যান্য কার্যালয় এবং রাজশাহী জোনের আওতাধীন বিভিন্ন শাখার সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন। একই সময়ে রাকাব কর্মচারী সংসদ (রাজ-৬১১), রাকাব অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন ও অফিসার্স ফোরামের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথকভাবে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়।
টিটিসি : কোকারিকুলাম ও এক্সট্রা কমিটি রাজশাহী কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র সপুড়ার (টিটিসি) উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন ও বাষির্ক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ-২০১৭ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন, টিটিসির অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মাহবুবুর রশীদ তালুকদার। প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন, রাজশাহী টিটিসি জডিপ্রস সভাপতি প্রাক্তন সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর ইসমাইল হোসেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় পতাকা ও বেলুন উড়িয়ে স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন করা হয়।
এসময় খেলা পরিচালনা কমিটির মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, চীফ ইন্সট্রাক্টর রবিউল ইসলাম, সিনিয়র ইন্সট্রাক্টর আফছার উদ্দিন ভুইয়া, ইন্সট্রাক্টর রেজাউল করিমসহ টিটিসির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শিক্ষার্থীরা মুক্তিযুদ্ধের উপর যুদ্ধ উপস্থাপন চিত্র ও বিভিন্ন ধরনের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান হয়।
বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল : মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বারিন্দ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জাতীয় পতাকা উত্তোলন কর্মসূচী ও হাসপাতালের রোগীদের জন্য বিনামূল্যে উন্নতমানের খাবার বিতরণ করা হয়। পতাকা উত্তোলন করেন, প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল প্রফেসর ডা. বিকে দাম।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, পরিচালক সফিকুল ইসলাম, প্রফেসর ডা. গোপাল চন্দ্র সরকার, প্রফেসর ডা. রফিকুল আলম, প্রফেসর ডা. সুজিৎ কুমার ভদ্র, প্রফেসর ডা. সাইফুল ইসলাম, প্রফেসর ডা. কাজী ওয়ালী আহমেদ, প্রফেসর ডা. আব্দুল্লাহ সিদ্দিক, প্রফেসর ডা. মঞ্জুরুল হক, প্রফেসর ডা. শাহ্ জাকির হোসেন, ডা. এনায়েত উল্লাহ, ডা. সাজেদুর রহমান, ডা. এবিএম গোলাম রাব্বানী এবং বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সর্বস্তরের ডাক্তার, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশন : রাজশাহী ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ভূবন মোহন পার্ক স্মৃতিস্তম্ভে শহীদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়েছে। রাজশাহী ডায়াবেটিক অ্যাসোসিয়েশন কার্যনির্বাহী পরিষদ সদস্য, চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ অ্যাসোসিয়েশন প্রাঙ্গণ হতে শোভাযাত্রা শেষে এ পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।
ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহী : এ দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহীর উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহীর সিনিয়র প্রশাসনিক কর্মকর্তা ছামিউল হক ফারুকীর পরিচালনা ও হাসপাতালের মার্কেটিং অফিসার মু. রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় হাসপাতালের কনসালটেশন সেন্টারে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন, হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট ডা. মাসুদ আলী। স্বাগত বক্তব্য দেন, হাসপাতালের সিনিয়র অফিসার (প্রশাসন) ছামিউল হক ফারুকী।
এছাড়া বাদ জোহর স্বাধীনতার জন্য জীবন উৎসর্গকারী বীর সন্তানদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন, হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট ডা. মাসুদ আলী। এসময় উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা হাফিজুল্লাহ খান ও জাকির হোসেন, হাসপাতালের মার্কেটিং অফিসার শহিদুল ইসলাম ও জিনিয়া পারভীন। ক্যাম্পে মোট ২৮৪ জনের ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং করানো হয়। এছাড়াও ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহী অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিবসে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে থাকে।
রাজশাহী মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ : ‘স্বাধীনতা আমাদের দীপ্ত অহংকার’ শ্লোগানকে সামনে রেখে রাজশাহী মডেল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা র‌্যালি করে রাজশাহীর স্বাধীনতা যুদ্ধের শহিদ স্মৃতি স্তম্ভে পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। এরপর অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে রাজশাহী মডেল স্কুল এন্ড কলেজের অডিটরিয়ামে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।
প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোহাম্মদ আলী কামাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, প্রয়াত আ: আ.ম. মেসবাহুল হক বাচ্চু ডাক্তারের কণ্যা অধ্যক্ষ পতিœ ফারহানা হক জিনিয়া। প্রধান অতিথি শিশু শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং তিনি চিত্রাঙ্কণ, প্রবন্ধ রচনা ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।
সভাপতি হাবিবুর রহমান তার বক্তেব্যে শিক্ষার্থীদের স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস জানার আহবান জানান এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে নিজেদের ভবিষ্যৎ যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার আহবান জানান। মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যেদিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।
মহিলা টিটিসি : রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭ উদলক্ষে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে কর্মসূচী শুরু হয়। সকাল ৮টায় মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামের কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণের জন্য রওনা দেয়। এরপর টিটিসি কেন্দ্রে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালামকে কুচকাওয়াজের মাধ্যমে সম্মান প্রদর্শণ করেন। সকাল ১০ টায় মহান স্বাধীনতা দিবসের আলোচনা পর্ব শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ৭ নম্বর সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম। আলোচনা অুনষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ নাজমুল হক। আলোচনায় অংশ নেন, কেন্দ্রের অধ্যক্ষ নাজমুল হকসহ চীফ ইন্সট্রাকক্টর শামীমা আক্তার, জেনারেল শিক্ষক সাবিহা সুলতানা ও মনিরুল হাসান। সঞ্চালনায় ছিলেন, জেনারেল টিচার শামীমা ডেইজী।
রাজশাহী কোর্ট মহাবিদ্যালয় : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উৎযাপন উপলক্ষে রাজশাহী কোর্ট মহাবিদ্যালয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ১১টায় কলেজ মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, কলেজের অধ্যক্ষ একেএম কামরুজ্জামান। প্রধান অতিথি ছিলেন, কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও জাতীয় শিক্ষক নেতা শিক্ষাবিদ শফিকুর রহমান বাদশা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কলেজের সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পারভেজ আলম, উপাধ্যক্ষ রবিউল আলম। কলেজের ব্যাস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক হাসানুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জালাল উদ্দিন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক আখতারুজ্জামানের সঞ্চালনায় দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করেন, কলেজের শিক্ষার্থী রিতা ইসলাম ও বৃষ্টি। দেশাত্ববোধক নৃত্য পরিবেশন করেন, জাকিরুল ইসলাম এবং উর্মি মুরমু ও তার দল। কবিতা আবৃত্তি করেন, বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জসিম উদ্দিন। অনুষ্ঠানের সবশেষে মঞ্চস্থ করা হয় স্বাধীনতা দিবসকে কেন্দ্র করে বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে পরিবেশিত কাব্যনাট্য ‘সময়ের প্রয়োজনে’। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন, ফারজানা তাসনিম রিফাত, তানবীন তাবাস্সুম, নিশাত তাসনিম, আবদুল্লাহ আল বাকী, আরিফুল ইসলাম, মানসর রহমান এবং আবু হানিফ। মনিরুল ইলমামের সঞ্চালনায় এতে সহয়োগিতা করেন, আমির হামজা।
বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় : দিবসটি উপলক্ষে নানা কর্মসূচির আয়োজন করে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল, শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা, আলোচনা সভা, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে ‘লাল সবুজের বাংলাদেশ’ শীর্ষক ছবি আঁকা প্রতিযোগিতায় জলরং-এ আঁকা ছবির প্রদর্শনী, ছবি আঁকা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ, ২৬০ জন সদস্য নিয়ে ‘বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ব্লাড-ডোনার ডাটাবেজ’-এর উদ্বোধন এবং সবশেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এবং যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত প্রফেসর ড. এম সাইদুর রহমান খান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. নূরুল হোসেন চৌধুরী ও প্রফেসর ড. তারিক সাইফুল ইসলাম এবং অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন, উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওসমান গনি তালুকদার। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং কো-অর্ডিনেটরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।
সিরোইল’৮৫ রাজশাহী : এ দিবস উপলক্ষে শিরোইল’৮৫ এর পক্ষ হতে ভূবন মোহন পার্ক স্মৃতিস্তম্ভে শহীদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়েছে। শিরোইল’৮৫ এর সদস্যবৃন্দ শিরোইল’৮৫ এর অফিস হতে শোভা যাত্রা শেষে এ পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।
মহিষবাথান আদর্শ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় : এ দিবস উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিদ্যালয় ভবনে জতীয় পতাকা উত্তলন কার হয়। সকাল ৮ টায় শরীর চর্চা শিক্ষক দিল আরা শামীম, সহকারী শিক্ষক ইব্রাহীম খলিলুল্লাহ ও উত্তম সরকারের নেতৃত্বে বিদ্যালয়ের গার্লস গাইডের চৌকস দল রাজশাহী জেলা প্রশাসনের কজামারুজ্জামান স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে। সকাল ১০ টায় বিদ্যালয় চত্বরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি একে মাসুদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, পিক্সজেল (প্রাঃ) লি. এর সহকারী ম্যানেজার শাখাওয়াত হোসেন পলাশ। সভায় সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুব-উল-আলম। সভায় মহান স্বাধীনতা দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরে বক্তব্য দেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল জলিল।
বোয়ালিয়া থানা পশ্চিম আ’লীগ : ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস এবং ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বোয়লিয়া (পশ্চিম) থানা আওয়ামী লীগ সকাল ১০টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, বোয়ালিয়া (পশ্চিম) থানা সভাপতি আব্দুস সালম, সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান রতন, ৯ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি আশরাফ উদ্দীন খান, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন, ১০ নম্বর সভাপতি জাফর আহাম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক আনিমুল রাজি মিঠু, ১১ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি আজাহার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, ১৩ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি তৌহিদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শরীফ, ১৪ নম্বর ওয়ার্ড (পূর্ব) সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক তৌকির আহাম্মেদ খান খালেক, ১৪ নম্বর ওয়ার্ড (পশ্চিম) সভাপতি বাবুল রহমান বাবলু, সাধারণ সম্পাদক আনার হোসেন আনার, ১৫ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি তরিকুল আলম পিটার।
নগর শ্রমিক লীগ : এ দিবস উপলক্ষে জাতীয় শ্রমিক লীগ রাজশাহী মহানগর রাণীবাজার থেকে র‌্যালী শুরু হয়ে নগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের পূর্বে স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ শহীদ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয় এবং স্বাধীনতা চত্বর হইতে ভূবন মোহন পার্কের স্মৃতিসৌধে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগ রাজশাহী মহানগরের সভাপতি বদরুজ্জামান খায়ের, সহসভাপতি মোতাহার হোসেন, সালাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সোহেল, যুগ্মসম্পাদক শরীফ আলী মুনমুন, মোজাহার আলী, মেহেদী হাসান, সহ-প্রচার সম্পাদক আকতার আলী, সহ-অর্থ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম রেজা বাইরন, সদস্য শরিফুল ইসলাম সাগর।
মডার্ন বক্সিং ক্লাব রাজশাহী : এদিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ এ্যামেচার বক্সিং ফেডারেশনের সহযোগিতায় ও মডার্ন বক্সিং ক্লাবের আয়োজনে দিনব্যাপী বক্সিং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা জিমনেসিয়ামে আয়োজিত বক্সিং প্রতিযোগিতায় বালক, বালিকা, সিনিয়র ও জুনিয়র গ্রুপের ৯টি ওজন শ্রেণিতে ১০টি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলায় বিভিন্ন ক্লাবের ২০জন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতা শেষে মুক্তিযুদ্ধ জেলা স্টেডিয়াম অডিটোরিয়ামে আয়োজিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক রফিউস শামস প্যাডী প্রধান অতিথি হিসেবে কৃতি খেলোয়াড়দের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।
মডার্ন বক্সিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শফিউল আজম মাসুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম বাবুল। অনুষ্ঠানে জেলা ক্রীড়া সংস্থার অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে যুগ্মসম্পাদক খায়রুল আলম ফরহাদ, নুরুল হক, ফারুক হোসেন, আশরাফুল হক, হাফিজুল ইসলাম মুন্নু, সিরাজুর রহমানসহ বিভিন্ন ক্লাবের প্রতিনিধি ও খেলোয়াড়বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পিরিজপুর উচ্চবিদ্যালয় : ‘আমরা টুটাব তিমির রাত,বাধার বিন্ধ্যাচল’ এই স্লেøাগানকে ধারণ করে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার পিরিজপুর উচ্চ বিদ্যালয় উদ্যাপন করেছে ৪৭তম মহান স্বাধীনতা দিবস। দিবসটি উপলক্ষে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা এবং পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বিদ্যালয়টি।
সকাল সাড়ে সাতটায় বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সদস্য এলাকার সুধিজন সহ ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন শহিদদের শ্রদ্ধার্থে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করা হয়। পরে আলোচনাসভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
এতে সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আনম ওয়াহেদুল আলম জুম্মা। আলোচনাসভায় স্বাগত বক্তব্যে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুল আলম বলেন, অন্তরে দেশপ্রেম সমুন্নত রাখতে হবে, দেশের উন্নয়নে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে, আর উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ারই হলো সুশিক্ষা। তাই সুশিক্ষায় শিক্ষিত জাতির মর্যাদায় বিশ্বে প্রতিষ্ঠিত হোক আমাদের দেশ এই কামনা করি। আলোচনা সভার সভাপতি শহিদদের অমর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে বলেন, লাখো শহিদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের এই স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব তা রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে তরুণ সমাজকে। মর্মচেতনায় ধারণ করতে হবে স্বাধীনতার মূলমন্ত্রকে তবেই শহিদদের আত্মত্যাগ সার্থক হবে।
সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারি প্রধান শিক্ষক মো.জমিউল করিম,মো.সাইফুল ইসলাম সাবেক সহ:প্রধান শিক্ষক মো. এমদাদুল হক, পিটিএ কমিটির সভাপতি মো. হাসিবুর রহমান, সমাজসেবক মো. আনিকুর ইসলাম, মো.দারুল হাসান ,আলহাজ মো.আরশাদ মাষ্টার সহ সহকারি শিক্ষকবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সহকারি শিক্ষক মো.বদরুদ্দোজা।
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি: দিবসটি উপলক্ষে সকালে ভুবনমোহন পার্কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে আলোচনাসভা, রচনা ও চিত্রাংক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড মেম্বার, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি জেলা ইউনিটের সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাহবুব জামান ভুলু। এতে সভাপতিত্ব করেন, জেলা ইউনিটের সেক্রেটারী নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নিঘাত পারভিন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা ইউনিটের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য প্রকৌশলী লুৎফুর রহমান, তপন কুমার সেন, মাসুদুর রহমান রিংকু, আনোয়ার হোসেন, যুব প্রধান মনোয়ার হোসেন বিদ্যুৎ, জুনায়েদ ইবনে হান্নান প্রমুখ।
রাজপাড়া থানা ছাত্রলীগ: এদিবসটি উপলক্ষে বিকেলে আনন্দ মিলি বের করা হয়। মিছিলটি গ্রেটার রোড প্রদক্ষিণ করে সিঅ্যান্ডবি মোড়ের ৮ নম্বর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে গিয়ে পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন, রাজপাড়া থানা ছাত্রলীগের সভাপতি নসির উদ্দি রুবেল ও সঞ্চলনা করেন, সাধারণ সম্পাদক মারুফ হোসেন। প্রধান অতিথি ছিলেন, নগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শফিকুজ্জামান শফিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কর্যনির্বাহী কমিটির সহসভাপতি আনিকা ফারিয়া জামান অর্ণা, নগর ছাত্রলীগের সভাপতি রকি কুমার ঘোষ, ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুহিন প্রমুখ।
জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পার্টি: এদিবসটি উপলক্ষে ভুবনমোহন পার্কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা জাতীয় পার্টি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শামসুদ্দিন রিন্টু, সাংগঠনিক শাহ আলম বাদশা বরুন, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পার্টির নগর আহ্বায়ক শখলেসুর রহমান, নগর সদস্য সচিব সাহেদ আহমেদ প্রমুখ।
চার নম্বর ওয়ার্ড আ’লীগ: এদিবসটি উপলক্ষে কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তলোন ও বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করা হয়। মাইক যোগে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শোনানো হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, চার নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ফিরোজ কবির মুক্তা, সাধারণ সম্পাদক হিমাত্রী প্রসাদ রায় লিটন, যুগ্ম সম্পাদক সিদ্দিক আলম প্রমুখ।
ইলা মিত্র শিল্পী সংঘ: দিবসটি উপলক্ষে কার্যালয় থেকে র‌্যালি বের করে ভুবনমোহন পার্কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।
প্রগতিশীল নাগরিক সংহতি : প্রগতিশীল নাগরিক সংহতির উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে শহীদদের স্মরণে নগরীর শহীদ কামারুজ্জামান চত্বরে প্রগতিশীল নাগরিক সংহতির নেতাকর্মীরা মোবাতি প্রজ্বলন করে স্বাধীনতা দিবসের প্রথম প্রহরে ভুবনমোহন পার্কস্থ শহীদ বেদিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, সদস্য সচিব কলাম লেখক শাহ মো. জিয়াউদ্দিন, যুগ্ম আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা আলী আর্সলান অপু, যুগ্ম আহ্বায়ক মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, যুগ্ম সদস্য সচিব শিল্পী আজমল সাচ্চু, কার্যকরী পরিষদের সদস্য কেএম রেজাউল করিম খোকন, কেএম ওবায়দুর রহমান, হাবিবুর রহমান তুহিন প্রমুখ।
নগর যুবলীগ: দিবসটি উপলক্ষে স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘৗ অর্পন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নগর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন বাচ্চু, যুবনেতা আশরাফুল আলম, মোখলেসুর রহমান, গোলাম ফারুক, মনিরুজ্জামান খান, মাহমু; হাসান প্রমুখ।
সরকারি পিএন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়: দিবসটি উপলক্ষে আলোচনাসভা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। চিত্রাংকন ও কবিতা আবিৃতিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তৌহিদ আরা। এসময় শিক্ষক-শিক্ষথীয় ও অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সরকারি সিটি কলেজ: দিবসটি উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন, কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মফিজুদ্দিন মোল্লা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক নিলুফার পারভীন ও মিসেস অধ্যক্ষ। এতে সভাপতিত্ব করেন, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আবদুল হাই সিদ্দিকী। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বিদেশী রাষ্ট্র ও প্রবাসী বাঙালিদের ভূমিকা শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, ইতিহাস বিভাগয় প্রধান তৈয়বুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, গণিত বিভাগের প্রভাষক উমর ফারুক, মুহ. সাদিকুর রহমান প্রমুখ।
মেট্রোপলিটন কলেজ: এদিবসটি উপলক্ষে অধ্যক্ষ জুলফিকার আহমেদের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের বিদায় সম্বর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন, কলেজ পরিচালনা কমিটির সদস্য বাবু রাজকুমার সরকার, উপাধ্যক্ষ সাইফুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক মাহবুবা ইয়াসমিন, প্রভাষক বিলকিস বানু প্রমুখ।
রাজশাহী কলেজ: এদিবসটি উপলক্ষে কলেজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় কলেজের অধ্যক্ষসহ শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। বিকেলে প্রশাসন ভবনের সামনে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে। এসময় উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক আল ফারুক চৌধুরী, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক অধ্যাপক জুবাইদা আয়েশা সিদ্দীকা, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক পীযুষ কান্তি ফৌজদার প্রমুখ।
রাজশাহী মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ: ‘স্বাধীনতা আমাদের দীপ্ত অহংকার’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে কলেজের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা র‌্যালি করে শহিদ স্মৃতি স্তম্ভে পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। অধ্যক্ষ মো: হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে কলেজের অডিটরিয়ামে আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোহাম্মদ আলী কামাল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, প্রয়াত জননেতা আ.আ. ম মেসবাহুল হক বাচ্চু, ডাক্তারের কণ্যা অধ্যক্ষ পতিœ জনাব ফারহানা হক জিনিয়া। প্রধান অতিথি শিশু শিক্ষার্থীদের মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং তিনি চিত্রাংকন, প্রবন্ধ রচনা ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। সভাপতি জনাব মো: হাবিবুর রহমান তাঁর বক্তেব্যে শিক্ষার্থীদের স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস জানার আহবান জানান এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে নিজেদের ভবিষ্যৎ যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার আহবান জানান। মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।
জনতা ব্যাংক সিবএ: দিবসটি উপলক্ষে অফিসার্স ওয়েল ফেয়ার অ্যাসোসিয়েনের উদ্যোগে র‌্যালি সাহেববাজার কর্পোরেট শাখা থেকে এ র‌্যালি বের করা হয়ে স্বাধীনতা চত্বরে বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘৗ অর্পন করা হয়। পরে আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন, অফিসার্স ওয়েল ফেয়ার অ্যাসোসিয়েনের সভাপতি সোলেসান আলী প্রামানিক ও সভা পরিচালনা করেন, সিবিএ রাজশাহীর সভাপতি বদরুজ্জামান খায়ের। প্রধান অতিথি ছিলন, ব্যাংকের রাজশাহী বিভাগের মহাব্যবস্থাপক মোখলেসুর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, স্ট্যাফ ট্রেনিং কলেজের উপমহাব্যবস্থাপক তাপস কুমার মজুমদার, এরিয়া অফিসার সহকারী মহাব্যবস্থাপক মাইনুল হাবিব, করপোরেট শাখার সহকারী ব্যবস্থাপক মোজাহারুল হক প্রমুখ।
ইসলামিক ফাউন্ডেশন: দিবসটি উপলক্ষে হাতেম খাঁন বড় মসজিদ কমপ্লেক্সে পবিত্র কুরআন খানি, আলোচনাসভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক একেএম মনিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা করেন, হাতেম খাঁন বড় মসজিদ কমপ্লেক্সের পেশ ইমম ও খাতিব মুফতি মাওলানা ইয়াকুব আলী, ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের ফিল্ড অফিসার এসএম হুমায়ন কবীর।
রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল: দিবসটি উপলক্ষে পতাকা উত্তোলন ও শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিদ্যালয়ে স্কউট দল খ. শামসদ্দীন আহমেদ ও জাহাঙ্গীর আলম শাহ এর নেতৃত্ব মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে মার্চ-পাস্টে অংশগ্রহণ করে। পরে চিক্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান শিক্ষকের সভাপতিত্বে বিদ্যালয়ের মিলনায়তনে সভা শেষে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
ইসলামী ব্যাংক ইন্সটিটিউট অব হেলথ টেকলোজী : দিবসটি উপলক্ষে পুরস্কার বিতরণ ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন, ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ ডা. গাজীউল আলম। প্রধান অতিথি ছিলেন, ইন্সটিটিউটের স্থানীয় ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. ওবায়দুল্লাহ। পরিচালনা করেন, ইন্সটিটিউটের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবদুল হান্নান।
মসজিদ মিশন অ্যাকাডেমি: দিবসটি উপলক্ষে পুরস্কার বিতরণ ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অধ্যক্ষ আকবর আলীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন, সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এনামূল হক, শিরোইল ছাত্রী শাখার ইনচার্জ আবদুস সাত্তার, অধ্যাাপক এসএম মখলেসুর রহমান। দোয়া পরিচালনা করেন, মাওলানা আফজাল হোসেন।
ভাই ভাই সমিতি ও সাধারণ পাঠাগার: দিবসটি উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন, সমিতির সহসভাপতি আবদুল জব্বার। আলোচক ছিলেন,সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক ইদ্রিস আলী, সমিতির সাবেক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী, মহসীন আলী, রবিউল ইসলাম রবি, মনজুর রহমান প্রমুখ।
ন্যাপ কমিউনিষ্টপার্টি ছাত্র ইউনিয়ন: দিবসটি উপলক্ষে র‌্যালি বের করে ভুবনমোহন পার্কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় গেরিলা বাহিনী মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন, বদরে আলম, জহুরুল হক, আহম্মদ আলী, সাইফজ্জামান তপন, নাজমুল হাসান খান, নারায়ন চন্দ্র সরকার, রনজিৎ বর্মন, কামরুজ্জামান, রতন রায় প্রমুখ।
বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজ: দিবসটি উপলক্ষে আলোচনাসভা, পুরস্কার বিতরণ ও আইসিটি বিভাগের আয়োজনে প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন ও কলেজের চিত্র প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রদান অতিথি ছিলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আঞ্চলিক পরিচালক ড. জাহাঙ্গীর আলম। এতে সভাপতিত্ব করেন, কলেজের অধ্যক্ষ নূরুল ইসলাম। আইসিটি বিভাগের মডারেটন মাসুদ রানার পরিচালনায় প্রজক্টের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শন করা হয়। অন্যদিকে গতকাল সোমবার কলেজে শিক্ষকদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এ কর্মশালার উদ্বোধন করেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক আকবর হোসেন, কলেহের উপাধ্যক্ষ কামরুজ্জামানের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন, অধ্যক্ষ নূরুল ইসলাম।
মুক্তিসংগ্রাম পরিষদ মুক্তিযুদ্ধ’৭১ : দিবসটি উপলক্ষে ভুবনমোহন পার্কে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে আলোচনাসভায় সভপতিত্ব করেন, সেনা অফিসার অব. মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাসান খন্দকার। সভায় বক্তব্য দেন, কেএমএম ইয়াছিন আলী মোল্লা, মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, বাবু রামেশ চন্দ্র, শেখ মো. এহিয়া, মাহবুব আলম, আহম্মদ আলী, ডা. রফিক প্রমুখ।
আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগ: দিবসটি উপলক্ষে শিরোইল রেলওয়ে সুপার মার্কেটের কার্যালয়ে জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলন, বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চারনেতার প্রতিককৃতিতে মাল্যদান ও পরে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য দেন, মুক্তিযোদ্ধা ইয়াছিন আলী মোল্লা, শফিকুর রহমান, আমজাদ হোসেন, বয়েন উদ্দীন, ছাবের আলী, বাবু রামেশ চন্দ্র, রাকাব কমান্ডার আল-মাহমুদ ও আনিসুর রহমান।
শাহ্ মখদুম কলেজ রাজশাহী : এদিবস উপলক্ষে উপলক্ষে কলেজে ক্রীড় ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী ও এইচএসসি-২০১৭ পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রধান অতিথি প্রফেসর রুহুল আমিন প্রামাণিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও নন্দিত কবি, বিশেষ অতিথি ড. আব্দুল মান্নান সরকার পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর রাজশাহী অঞ্চল, প্রফেসর তরুণ কুমার সরকার মাননীয় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড রাজশাহী, সভাপতি অধ্যক্ষ মুহম্মদ আমিনুর রহমান।
পরিছন্নতা কর্মী শ্রমিক লীগ: দিবসটি উপলক্ষে স্বাধীনতা চত্বরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নগর জাতীয় শ্রমিক লীগের বদরুজ্জামান খায়ের, সাধারণ সম্পাদক আবদুস সোহেল, সভাপতি শ্রী চন্দন কুমার, সম্পাদক সুজন কুমার।
রাজশাহী টিচার্স ট্রেনিং কলেজ : রাজশাহী টিচার্স ট্রেনিং কলেজের (টিটিসি) উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭ উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে কলেজ মিলনায়তনে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও তথ্য চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর দিলরোজ আরা এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, উপাধ্যক্ষ মনজুরুল করিম, প্রফেসর শামীম আফরোজ, প্রফেসর শিরীন আখতার, সহযোগী অধ্যাপক সানাউল্লাহ, ড. বিশ্বজিৎ ব্যানার্জি, সহকারী অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, শাহীন রেজা, এমএড প্রশিক্ষনার্থী রাশেদুল হক ফিরোজ, বিএড প্রশিক্ষনার্থী মাজহারুল ইসলাম প্রমূখ। আলোচনা সভায় কলেজের শিক্ষক মন্ডলী, বিএড ও এমএড প্রশিক্ষনার্থীগণ উপস্থিত ছিলেন।
ইসলামী ব্যাংক নার্সিং কলেজ : দিবসটি উপলক্ষে রোববার ইসলামী ব্যাংক নার্সিং কলেজ রাজশাহীর উদ্যোগে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণী ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজের অধ্যক্ষ মেজর (অবঃ) ডালিম বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আনোয়ার হাবিব। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কলেজে ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. ওবায়দুল্লাহ্।
ইমাম প্রশিক্ষণ অ্যাকাডেমি : দিবসটি উপলক্ষে ইমাম প্রশিক্ষণ অ্যাকাডেমির উদ্যেগে রোববার অ্যাকাডেমি মিলনায়তনে কুরআন খানী, আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। অ্যাকাডেমির উপপরিচালক সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে এতে অংশগ্রহণ করেন, নাসির উদ্দিন, মুরশিদুল ইসলাম, আবদুল্লাহ, মোসাদ্দারুল ইসলাম, আবদুল মালেক, মোস্তাফিজুর রাহমান, আলী আকবর, মোমিনুল ইসলাম প্রমুখ।
কানপাড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদ : দিবসটি উপলক্ষে মুক্তিসংগ্রাম পরিষদ মুক্তিযুদ্ধ ৭১, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, স্থানীয় আওয়ামীলীগ শিক্ষক সমিতি, বণিক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ যৌথভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। এতে অংশগ্রহণ করেন, মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আনিছুর রহমান, তছের মাস্টার, খোদাবকস, ডা. ইয়্দা আলী প্রমুখ।
জেলা ও মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ : দিবসটি উপলক্ষে জেলা ও মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড যৌথভাবে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। কর্মসূচি সূমহে অংশগ্রহণ করেন, জেলা কমান্ডার ফরহাদ আলী মিঞা ও মহানগর কমান্ডার ডা. আব্দুল মান্নান।
গগনবাড়ীয়া’৭১ এ শহীদ গণকবর স্মৃতি সংসদ : দিবসটি উপলক্ষে রোববার কানপাড়া গগনবাড়ীয়া’৭১ এ শহীদ গণকবর স্মৃতি সংসদের উদ্যেগে র‌্যালীসহ গণকবরে গমন ও শহিদ বেদীতে পুস্পুস্তাবক অর্পন করা হয়েছে। এতে সংসদের সভাপতি বদরুজ্জামানের নেতৃত্বে উপস্থিত ছিলেন, ফজলুর রহমান, রোকন উদ্দিন, খালেক প্রমুখ।
নগর বিএনপি: দিবসটি উপলক্ষে রোববার সকাল ১১টায় নগর বিএনপির উদ্যেগে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করেন, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শরিফুল হক মিলন। প্রধান অতিথি ছিলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য মিজানুর রহমান মিনু। আলোচক ছিলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগি অধ্যাপক ড. মাসুদুল হাসান খান মুক্তা, বোয়ালিয়া থানা বিএনপির সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু প্রমুখ।
রাজশাহী প্রভাত বিদ্যালয়: দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী প্রভাত বিদ্যালয়ের উদ্যেগে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, মাস্তাকিম , খাইরুল বাশার, ডা. হাবিবুল ইসলাম, তানজির হোসেন, দুলাল প্রমুখ।
খাদেমুল ইসলাম বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজ: দিবসটি উপলক্ষে খাদেমুল ইসলাম বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের উদ্যেগে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় বক্তব্য দেন, অধ্যক্ষ রণজিৎ কুমার সাহা, সহকারি প্রধান শিক্ষক রতন কুমার মন্ডল, প্রভাষক মেহতাজ পারভীন খানম প্রমুখ।
বরেন্দ্র কলেজ: দিবসটি উপলক্ষে বরেন্দ্র কলেজ রাজশাহীর উদ্যেগে পুরস্কার বিতরণী ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন, কলেজ অধ্যক্ষ আলমগীর আবদুল মালেক। বক্তব্য দেন, সহকারি অধ্যাপক সেলিনা আখতার ও জিয়োউন নাহার মিতু প্রমুখ।
ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন : দিবসটি উপলক্ষে আইইবি রাজশাহীর উদ্যেগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এতে উপস্থিত ছিলেন, চেয়ারম্যান প্রকৌ. ফিরোজ হোসেন, প্রকৌ. নিজামুল হক সরকার, লুৎফুর রহমান, এএম মাসুদ আল ফারুক, আবদুর রশীদ প্রমুখ।
বখতিয়ারপুর ডিগ্রি কলেজ: দিবসটি উপলক্ষে বখতিয়ারপুর ডিগ্রি কলেজের উদ্যোগে কলেজ মিলনায়তনে বির্তক প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতিত্ব করেন, কলেজ অধ্যক্ষ মজিবর রহমান। উপস্থিত ছিলেন, গভানিং বডির সদস্য দেলশাদ আলী দেওয়ান, অধ্যাপক নাজিম উদ্দিন, আবদুর রাজ্জাক সরকার, জোবায়েদ হোসেন, প্রমুখ।
ইন্ডিপেনডিন্ট স্কুল: দিবসটি উপলক্ষে ইন্ডিপেনডিন্ট স্কুলের উদ্যোগে চিত্রাঙ্কন কবিতা আবৃতি ও দেশাত্মবোধক গানের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক শীলা পারভীন, রাশিদা পারভীন, মনিরা খাতুন প্রমুখ।
জেলা যুব মহিলা লীগ : দিবসটি উপলক্ষে রোববার সকালে রাজশাহী কলেজ শহিদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি নার্গিস সুরাইয়া, সুলাতানা শেলী, সাজেদা বেগম প্রমুখ।
রাজশাহী সিটি করপোরেশন : দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন। কর্মসূচির মধ্যে ছিল, সূর্যোদয়ের সাথে সাথে নগরভবনসহ ওয়ার্ড কার্যালয় ও কর্পোরেশন কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত সকল স্থাপনাসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকালে দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযীমের নেতৃত্বে নগরভবন হতে র‌্যালি বের করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ভুবনমোহন পার্ক শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। র‌্যালিতে রাসিকের কাউন্সিলর, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ শেষে মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী ও অংশগ্রহণকারী সকল মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযীম। বাদ জোহর সোনাদীঘিস্থ রাজশাহী সিটি করপোরেশন জামে মসজিদে জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। বিকেলে রাজশাহী মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি ষ্টেডিয়ামে মেয়র একাদশ বনাম বিভাগীয় কমিশনার একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।
সূর্যকণা উচ্চ বিদ্যালয় : দিবসটি উপলক্ষে সূর্যকণা উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যোগে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। সকালে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র নিযাম উল আযীম। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন, বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেক। অনুষ্ঠানে শিক্ষক, অভিভাবক ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে মেয়র মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতায় কৃতিত্ব অর্জনকারীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।
আওয়ামী লীগ বোয়ালিয়া থানা পশ্চিম : দিবসটি উপলক্ষে বোয়লিয়া (পশ্চিম) থানা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকাল ১০টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এসব কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, বোয়ালিয়া (পশ্চিম) থানা সভাপতি আব্দুস সালম, সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান রতন, ৯ নং ওয়ার্ড সভাপতি আশরাফ উদ্দীন খান, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন, ১০ নং সভাপতি জাফর আহাম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক আনিমুল রাজি মিঠু, ১১ নং ওয়ার্ড সভাপতি আজাহার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন, ১৩ নং ওয়ার্ড সভাপতি তৌহিদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শরীফ, ১৪ নং ওয়ার্ড (পূর্ব) সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক তৌকির আহাম্মেদ খান খালেক, ১৪ নং ওয়ার্ড (পশ্চিম) সভাপতি বাবুল রহমান বাবলু, সাধারণ সম্পাদক আনার হোসেন আনার, ১৫ নং ওয়ার্ড সভাপতি তরিকুল আলম পিটার।
মহিষবাথান আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় : দিবসটি উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে বিদ্যালয় ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তলন কার হয়। সকাল ৮টায় শরীর চর্চা শিক্ষক দিল আরা শামীম, সহকারী শিক্ষক ইব্রাহীম খলিলুল্লাহ ও উত্তম সরকারের নেতৃত্বে বিদ্যালয়ের গার্লস গাইডের চৌকস দল রাজশাহী জেলা প্রশাসনের কজামারুজ্জামান স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে। সকাল ১০টায় বিদ্যালয় চত্বরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি এ কে মাসুদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পিক্সজেল (প্রা.) লিমিটেডের সহকারী ম্যানেজার শাখাওয়াত হোসেন পলাশ। সভায় সভাপতিত্ব করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহাবুব-উল-আলম। সভায় মহান স্বাধীনতা দিবসের গুরুত্ব তুলে ধরে বক্তব্য দেন, সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুল জলিল। সভা শেষে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন শেখ দুলাল। দোয়া শেষে শিক্ষার্থীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।
ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ : দিবসটি উপলক্ষে ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ রাজশাহীর উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, রামেক অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. আনোয়ার হাবীব। এছাড়া বিশেষ অতিথি ছিলেন, প্রফেসর ডা. আব্দুল মুকিত সরকার, প্রফেসর ডা. মামুন উর রশীদ, প্রফেসর ডা. সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, প্রফেসর ডা. এস এম আশরাফ হোসেন, হাসপাতালের ডেপুটি ডাইরেক্টর ডা. আল-মামুন অর রশীদসহ প্রমুখ।
শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুর্নবাসন কেন্দ্র : দিবসটি উপলক্ষে শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের উদ্যোগে দিনব্যাপি নানা কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) পারভেজ রায়হান। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী সমাজসেবা অধিদফতরের উপপরিচালক রুবিনা ইয়াসমিন, নগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি শাহীন আকতার রেণী, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের ১৪ নং ওয়ার্ড কমিশনার সামসুন নাহার বেগম, উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক আনোয়ার কামাল, হাউজিং এস্টেট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইদুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র সমাজসেবা অধিদফতর রাজশাহী উপপরিচালক নূরুল আলম প্রধান। শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুর্নবাসন কেন্দ্র রাজশাহীর উদ্যোগে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, জাতীয় সংগীত পরিবেশন, রাজশাহী মুক্তিযোদ্ধা স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লেতে অংশগ্রহণ, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং নিবাসী শিশুদের মাঝে উন্নত খাবার পরিবেশন করা হয়।
২৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ : দিবসটি উপলক্ষে প্রথম প্রহরে নগরীর ভদ্রা স্মৃতি অম্লানে ২৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে মুক্তিযুদ্ধের বীর শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয় । এরপর একটি সংক্ষিপ্ত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য দেন, রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ মো.বজলুর রহমান, নগর আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য নুরুল হুদা সরকার, সাবেক ছাত্রনেতা মো.হাবিবুর রহমান বাবু। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অ্যাডভোকেট আসলাম সরকার, অ্যাডভোকেট ইসমত আরা বেগম, অ্যাডভোকেট আহসান হাবিব রঞ্জু, নওসাদ আলী, খোরশেদ আলী খুশী, মেহেদী হাসান, জালাল উদ্দীন, মাসুদ, আজিজুল ইসলাম, সিদ্দিক, কাইয়ুম, জামালসহ আরো অনেকে। সভায় সভাপতিত্ব করেন, ২৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম মিলু।
রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র : সূর্যোদয়ের সাথে সাথে রাজশাহী মহিলা টিটিসিতে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭এর কর্মসূচি শুরু হয়। রাজশাহী মহিলা টিটিসির ছাত্রীদের একটি চৌকুস দল সকাল ৮টায় মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামের কুচকাওয়াজে অংশগ্রহণ করে। স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ প্রদর্শন করে ফিরে প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে জাতীয় পতাকার সামনে মহিলা টিটিসি আয়োজিত অনুষ্ঠান সূচিতে আমন্ত্রিত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালামকে কুচকাওয়াজের মাধ্যমে সম্মান প্রদর্শন করে।
সকাল ১০টায় মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭ এর আলোচনা পর্ব শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ৭নং সেক্টরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম। সভাপতিত্ব করেন, রাজশাহী মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ নাজমুল হক। আলোচনায় অংশ নেন, কেন্দ্রের অধ্যক্ষ নাজমুল হকসহ চিফ ইন্সট্রাকক্টর শামীমা আক্তার, জেনারেল শিক্ষক সাবিহা সুলতানা ও মনিরুল হাসান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, জেনারেল টিচার শামীমা ডেইজী। আলোচনা পর্বের শুরুতেই অধ্যক্ষ নাজমুল হক লাখো শহিদদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত লাল সবুজের পতাকা সমৃদ্ধ বাংলাদেশের মর্যাদা সমূন্নত রাখার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে মহান মুক্তিযুদ্ধের অগ্রনায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি বিন¤্রশ্রদ্ধা এবং মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭ উপলক্ষে রাজশাহী মহিলা টিটিসি’র পক্ষ থেকে সকলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে স্বাগত বক্তব্য দেন। দিবসের উল্লেখযোগ্য আকর্ষণ ছিলো ‘যেমন খুশি তেমন সাজো’।
আলোচনা পর্বের এক পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালামকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। আলোচনা অুনষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযুদ্ধ সময়ের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য দেন। আলোচনা অুনষ্ঠানের সভাপতি ও রাজশাহী মহিলা টিটিসির অধ্যক্ষ নাজমুল হক বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কারজয়ী ছাত্রী ও শিক্ষকদের মাঝে তুলে দেন।
বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (বাউয়েট) : দিবসটি উপলক্ষে নাটোরের কাদিরাবাদ সেনানিবাস স্থায়ী ক্যাম্পাসে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য বিষয়ক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এএইচএম শহীদউল্লাহ, পিএসসি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার ড. মোশারফ হোসেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের ছাত্র হাবিবুর রহমান কোরআন তেলওয়াত করেন। আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান-সহযোগী অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার মো. রশিদুল হাসান, প্রক্টর ও গণিত বিভাগের প্রধান সহকারী অধ্যাপক নাসির উদ্দীন, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (একাডেমিক) আশরাফুল ইসলাম, ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রভাষক মুশফিকা হোসেন, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্র তাহমিদ আশরাফ অর্ণব এবং ইইই বিভাগের ২য় ব্যাচের ছাত্রী আফসানা মিমি প্রমুখ। এছাড়া সকাল ৯টায় স্থায়ী ক্যাম্পাসে জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন, যথাক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এএইচএম শহীদউল্লাহ, পিএসসি এবং অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার ড. মোশারফ হোসেন। মহান স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে শহিদ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান জানানোর জন্য সবাই এক মিনিটি নিরবতা পালন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা, বিভিন্ন বিভাগের প্রধান ও শিক্ষকমন্ডলী, ছাত্র-ছাত্রী এবং কর্মচারীবৃৃন্দ। অনুষ্ঠানের শেষে সবার মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।
বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন (বিএনএফ) : দিবসটি উপলক্ষে এনজিও ফাউন্ডেশনের সহযোগী সংস্থাসমূহ রাজশাহী জেলার পক্ষ থেকে বিএনএফের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও লফস এর নির্বাহী পরিচালক শাহনাজ পারভীন নগরীর ভুবনমোহন পার্কে অবস্থিত শহিদ মিনারে বীর শহিদদের স্মরণ করে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। বিএনএফের সহযোগী ও জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা লেডিস অর্গানাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) এর আয়োজনে সহযোগি সংস্থার সদস্য নাহরিন, দুস্থ মহিলা সংস্থা ও নিকুঞ্জ বস্তি উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। লফসের সভাপতি শামীম আক্তার, সহসভাপতি আজিজুর রহমান, আইন সম্পাদক অ্যাড. শাহীনুল হক মুন, কার্যনির্বাহী সদস্য সেকেন্দার হোসেনসহ সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত থেকে বীর শহিদদের স্বরণ করেন।
ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহী : দিবসটি উপলক্ষে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহীর উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্প ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল রাজশাহীর সিনিয়র প্রশাসনিক কর্মকর্তা ছামিউল হক ফারুকীর পরিচালনা ও হাসপাতালের মার্কেটিং অফিসার মু. রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় হাসপাতালের কনসালটেশন সেন্টারে এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন, হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট ডা. মো. মাসুদ আলী। স্বাগত বক্তব্য দেন, হাসপাতালের সিনিয়র প্রশাসনিক কর্মকর্তা ছামিউল হক ফারুকী। এছাড়া বাদ জোহর স্বাধীনতার জন্য জীবন উৎসর্গকারী বীর সন্তানদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন, হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট ডা. মো. মাসুদ আলী । অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা হাফিজুল্লাহ খান ও জাকির হোসেন, হাসপাতালের মার্কেটিং অফিসার শহিদুল ইসলাম ও জিনিয়া পারভীন। এছাড়া হাসপাতালের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। এ ক্যাম্পে মোট ২৮৪ জনের ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং করানো হয়।
আদিবাসী ছাত্র পরিষদ : দিবসটি উপলক্ষে সকল শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আদিবাসী ছাত্র পরিষদ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কমিটি সকাল ৯টায় রাবি কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শহিদ মিনারের পাদদেশে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বিভূতী ভূষণ মাহাতো, সহ-সভাপতি যাকোব এক্কা, সাধারণ সম্পাদক মিঠুন কুমার উরাও, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কমিটির সভাপতি হেমন্ত মাহাতো, সাধারণ সম্পাদক নকুল পাহান, কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক আপেল মুন্ডা, প্রচার সম্পাদক রতিশ টপ্য, কেন্দ্রীয় সদস্য তরুণ মুন্ডাসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিবাসী শিক্ষার্থীবৃন্দ।
নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (এনবিআইইউ) : দিবসটি উপলক্ষে সকাল ৮ টা ৪৫ মিনিটে নগরীর আলুপট্টিস্থ ইউনিভার্সিটির একাডেমিক ভবনের সামনে জাতীয় পতাকা ও ইউনিভার্সিটির পতাকা উত্তোলন করেন ট্রাস্টিবোর্ডের চেয়ারম্যান বরেণ্য কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক রাশেদা খালেক ও উপাচার্য প্রফেসর ড. আবদুল খালেক। এসময় উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহম্মদ আবদুল জলিল, রেজিস্ট্রার রিয়াজ মোহাম্মাদ, ডিন, শিক্ষক ও প্রশাসনিক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এরপর সকাল ৯টায় আলুপটিস্থ ইউনিভার্সিটির একাডেমিক ভবনের সামনে থেকে প্রভাতফেরির র‌্যালি বের হয়ে রাজশাহী কলেজের শহিদ মিনারে গিয়ে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে একাডেমিক ভবনের আলুপট্টিস্থ বঙ্গবন্ধু চত্বরে আলোচনা সভা, শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতা ও একুশে বইমেলায় গ্রন্থ ক্রয় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। আলোচনা সভায় ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. আবদুল খালেক এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহম্মদ আবদুল জলিল ও রেজিস্ট্রার রিয়াজ মোহম্মদ। ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা ড. মো. হাবিবুল্লাহ’র উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- ট্রেজারার (অনারারি) প্রফেসর ড. পি.এম. সফিকুল ইসলাম,। এক মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিল্পীরা সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশন করেন।
রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ : দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় সঙ্গে রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৭ উদযাপিত হয়েছে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ এবং বিভাগীয় শিক্ষকসহ প্রায় ৪ শতাধিক শিক্ষার্থী সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত র‌্যালি শেষে শহিদ মিনারে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করা হয়। র‌্যালিটি কলেজ চত্বর থেকে শুরু হয়ে মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি, সোনাদিঘির পূর্ব পাশের রাস্তা প্রদক্ষিণ করে রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজের শহিদ মিনারে প্রত্যার্বতন করে। কলেজের প্রতিটি বিভাগে ও বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠন কলেজের শহিদ মিনারে শ্রদ্ধার্ঘ অর্পণ করেন। সকাল ৯টা ১৫মিনিটে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মফিজুদ্দিন মোল্লা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর নিলুফার পারভীন ও মিসেস অধ্যক্ষ। এ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৭ উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আবদুল হাই সিদ্দিকী। এ অনুষ্ঠানে ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বিদেশি রাষ্ট্র ও প্রবাসী বাঙালিদের ভূমিকা’ শীর্ষক প্র্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, ইতিহাস বিভাগের বিভাগীয় প্রধান শাহ মো. তৈয়বুর রহমান। কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক উমর ফারুক, মুহ. সাদিকুর রহমান, রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জাকারীয়া ইসলাম তালুকদার, উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আশরাফুল আলম আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৭ ওপর অনুষ্ঠিত প্রবন্ধ রচনা ও কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় কৃতিত্ব অর্জনকারীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। আলোচনা শেষে শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দু’আ করা হয়। এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন, বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. আজিজুর রহমান।
শাহ মখদুম থানা একাত্তরের ঘাতক দালাল কমিটি : এদিবস উপলক্ষে শাহ মখদুম থানা একাত্তরের ঘাতক দালার নির্মূল কিিমটর উদ্যোগে গতকাল সোমবার বিকেলে আলোচনা সভা, সংবর্ধনা, বির্তক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, প্রফেসর ড. সুজিত সরকার। প্রধান বক্তা ছিলেন, উপাধ্যক্ষ কামরুজ্জামান। সভাপতি ছিলেন, সৈয়দ মন্তাজ আহমেদ। বক্তব্য দেন, ১৬ নম্বর ওয়ার্ড একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি সাহারিয়ার সজল, সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল হাসান ওয়াদুদ প্রমুখ।
শিক্ষা স্কুল অ্যান্ড কলেজ : গরীর শিক্ষা স্কুল অ্যান্ড কলেজে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন, উপস্থিত বক্তৃতা, দেশের গান, একাত্তরের চিঠির ওপর প্রতিযোগিতা ও আলোচনা অনুষ্ঠান হয়েছে। বিতর্ক প্রতিযোগিতায় মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন, সাবেক বিতার্কিক দেশ টিভির রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান আতিক রহমান। বিচারক হিসেবে ছিলেন, প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ ইব্রাহীম হোসেন, চেয়ারম্যান আজাদ মুর্শেদ, অভিভাবক সানারুল ইসলাম বাহার ও শিক্ষক মাসুদ রানা। বির্তকে ১০টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ৩০ জন প্রতিযোগী অংশ নেন। ফাইনাল রাউন্ডে দুইটি গ্রুপ অংশ নেয়। বিজয়ী হয় শাকিলা পারভীন, নুসরাত জাহান নিসা, শাহরিয়ার তানভীর অপূর্ব। শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী শাহরিয়ার তানভীর অপূর্ব।