বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে আমাদের কাজ করতে হবে শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তারা

আপডেট: December 15, 2019, 1:03 am

নিজস্ব প্রতিবেদক


শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানান উপর থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির আলোর মিছিল বের করা হয়-সোনার দেশ

পাকহানাদারবাহিনী বিজয়ের দুইদিন আগে পরিকল্পিতভাবে আমাদের দেশকে মেধাশূন্য করতে বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করে। তাদের এই শূন্যতা কখনো পূরণ হওয়ার না। তারপরও তাদের রক্তের ঋণ শোধ করতে হবে আমাদের। তাদের আত্মত্যাগকে স্মরণ করে তাদের চেতনাকে সর্বস্তরের মানুষদের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আমাদের কাজ করতে হবে। আমরা যে স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি সেই দেশকে মনপ্রাণ দিয়ে ভালোবেসে দেশের জন্য কাজ করতে হবে। তবেই তাদের রক্তের ঋণ শোধ হবে।
গতকাল শনিবার শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। দিবসটি উপলক্ষে নগরীতে নানা কর্মসূচি পালন করে বিভিন্ন সরকারি- বেসরকারি, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এর মধ্যে রয়েছে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে শহিদ বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোর মিছিল, শোক র‌্যালি ও আলোচনা সভাসহ নানা অনুষ্ঠান। এসব অনুষ্ঠানে শহিদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : যথাযোগ্য মর্যাদায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসনসহ বিভিন্ন হল, ছাত্র-শিক্ষক ও সাংস্কৃতিক-স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলো।
গতকাল শনিবার সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসন ভবন, আবাসিক হল ও অন্যান্য ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে উত্তোলন করা হয়। সকাল ৭টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে প্রভাতফেরি এবং শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়াসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
এরপর তাঁরা শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসন ভবনের পশ্চিম চত্বরে শহিদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। সেখানে উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান বলেন, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের চরম ত্যাগ ও আত্মদানের মাধ্যমে এদেশ স্বাধীন হয়েছে। তাঁদের সেই আত্মদানকে অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে গ্রহণ করে আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে যাতে বঙ্গবন্ধুর আজীবন লালিত স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ সহজ হয়।
তিনি আরো বলেন, শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন অর্থবহ করতে হলে যে আদর্শ ও চেতনার জন্য এই বুদ্ধিজীবীরা জীবন দিয়ে গেছেন তাকে ধারণ ও তার প্রসারে কাজ করে যেতে হবে। নিজ নিজ অবস্থান থেকে আমরা সকলে যদি সেই আদর্শ ও চেতনায় কাজ করে যাই তবেই শহিদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মা শান্তি পাবে ও তাঁদের লালিত স্বপ্নের বাস্তবায়ন হবে।
এসময় অন্যদের মধ্যে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এম এ বারী, প্রক্টর অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান, ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিন শহিদ স্মৃতি সংগ্রহশালাসহ বিভিন্ন হল প্রশাসন, পেশাজীবী সমিতি ও সংগঠনও পুষ্পস্তবক অর্পণ করে।
দিবসের কর্মসূচিতে আরো রয়েছে বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত ও সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় মন্দিরে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে।
রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় : রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) যথাযোগ্য মর্যাদায় শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। শনিবার দিবসের প্রথম প্রহরে বিশ^বিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম সেখের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধে রুয়েটের শহিদদের সমাধিস্থলে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
এরপর শহিদদের স্মরণে ১ মিনিট নিরবতা পালন, দোয়া করা এবং মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে প্রথম প্রহরের কর্মসূচি শেষ হয়। এছাড়াও বাদ যোহর রুয়েট কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. মো. সেলিম হোসেন, যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. মোশাররফ হোসেন, পরিচালক ছাত্রকল্যাণ অধ্যাপক ড. মো. রবিউল আওয়াল, পরিচালক গবেষণা ও সম্প্রসারণ অধ্যাপক ড. মো. ফারুক হোসেন, পরিচালক পরিকল্পনা ও উন্নয়ন অধ্যাপক ড. মিয়া মো. জগলুল সাদাত, যানবাহন শাখার ইনচার্জ ড. ওয়াহেদুল ইসলাম তুষার, কেন্দ্রীয় কম্পিউটার সেন্টারের ইনচার্জ ড. মো. আলী হোসেন, উপ-পরিচালক ছাত্রকল্যাণ মামুনুর রশিদ, আবু সাঈদ, রুয়েট অফিসার্স এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি দিলীপ কুমার ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মুফতি মাহমুদ রনি, সহ-সভাপতি মো. রোকনুজ্জামান, সহ-সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ, রুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈম রহমান নিবিড় সহ বিভাগীয় প্রধানবৃন্দ, হলসমূহের প্রাধ্যক্ষবৃন্দ, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।
জেলা প্রশাসন : যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস-২০১৯ উদযাপনের লক্ষে রাজশাহী জেলা প্রশাসন এর আয়োজনে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। কর্মসূচি অনুযায়ী সকালে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে জেলা শহিদ স্মৃতিফলকে শহিদদের স্মরণে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এরপর সকাল ১০টায় রাজশাহী সার্কিট হাউসে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা প্রশাসক হামিদুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) ড. মো. আব্দুল মান্নান । প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আব্দুল হাদী । অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সালমা বেগম, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মিরাজুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মো. শহীদুল্লাহসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।
বক্তারা শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা করেন। তারা বলেন, ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি দোস্ররা ও এ দেশীয় দ্সোর রাজাকাররা এদেশকে মেধাশূন্য করতেই বুদ্ধিজীবীদের নিমর্মভাবে হত্যা করে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেননি বলে তাকেও নানাভাবে অত্যাচার নির্যাতন করা হয়েছে। তাই ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস সম্পর্কে ধারনা দিতে সকলের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।
এদিন সুবিধামত সময়ে সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে শহিদ বুদ্ধিজীবী এবং মুক্তিযুদ্ধে শহিদ/আত্মদানকারী/যুদ্ধাহতসহ সব বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য মসজিদ, মন্দির, গীর্জা, প্যাগোডা ও অন্যান্য উপাসনালয়ে মোনাজাত/ প্রার্থনা করা হয়।
জেলা আওয়ামী লীগ : মহান বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেছে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ। দিবসটি উপলক্ষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বধ্যভূমি ও শহিদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকে শহিদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এ সময় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক সাবেক সাংসদ আব্দুল ওয়াদুদ দারা, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি ড.পিএম শফিকুল ইসলাম, দুর্গাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম প্রমুখ।
রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড : শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে দিবটি পালন করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড রাজশাহী। এ উপলক্ষে একটি শোক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালি শেষে রাজশাহী কলেজ স্মৃতিস্তম্ভে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শিক্ষা বোর্ডের উপলক্ষে সচিব ও দায়িত্বপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. মোয়াজ্জেম হোসেনসহ বোর্ডের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
ওয়ার্কার্স পার্টির শ্রদ্ধা : শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে নগরীর বাবলাবন স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পস্তবক অর্পণ করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীরা। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় পার্টির জেলা ও নগরের উদ্যোগে এই পুস্পস্তবক অর্পণ করে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। নগরীর শ্রীরামপুর টি-বাঁধ সংলগ্ন এই স্মৃতিস্তম্ভের পাশে দাঁড়িয়ে বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতাও পালন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নগর সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামানিক দেবু, নগর সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য এন্তাজুল হক বাবু, সাদরুল ইসলাম, জেলার সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল হক তোতা, নগর সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য সিরাজুর রহমান খান প্রমুখ।
রাজশাহী কলেজ : শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে রাজশাহী কলেজ। কর্মসূচির মাঝে সকাল সাড়ে দশটায় কলেজের রবীন্দ্র-নজরুল চত্বর থেকে এক র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের সম্মানে শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরে কলেজ অডিটোরিয়াম হলে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান, উপাধ্যক্ষ আব্দুল খালেক সহ কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।
সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি : শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে আলোর মিছিল ও শহিদ বেদিতে মোমবাতি প্রজ্বলন করেছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর আলুপট্টি মোড় থেকে আলোর মিছিল নিয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এরপর সাহেব বাজারে অবস্থিত ভুবন মোহন পার্কের শহিদ বেদিতে মোমবাতি প্রজ্বলন করেন। এসময় সংগঠনের নেতাকর্মীরা জাতীয় সংগীত গেয়ে ও এক মিনিট শহিদদের স্মরণে নিরবতা পালন করে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ করেন।
প্রফেসর আবদুল খালেক পাবলিক লাইব্রেরি: শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে সিরাজগঞ্জের চরনবীপুরে প্রফেসর আবদুল খালেক পাবলিক লাইব্রেরির উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার বেলা ১২টায় চরনবীপুরে ডা. মোহাম্মদ আলী চত্বরে এ সভার আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন, নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও গবেষক প্রফেসর ড. আবদুল খালেক। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের প্রফেসর ড. শাহ আজম শান্তনু।
আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন, প্রফেসর আবদুল খালেক পাবলিক লাইব্রেরির সভাপতি ওসমান গণি সরদার, সাবেক প্রকল্প কর্মকর্তা আলতাফ হোসেন, তালগাছীর করতোয়া ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ তানজিলা রহমান (দিপা), চরনবীপুর নূরজাহান মযহার স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। আলোচনা অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন (মিলন)।
খেলাঘর: খেলাঘর রাজশাহী জেলা কমিটির উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে শিশু-কিশোরদের নিয়ে প্রতীকি বধ্যভূমির ডিসপ্লের আয়োজন করা হয়। সকালে ৫০ জন শিশু-কিশোর এই ডিসপ্লেতে অংশ নেয়। খেলাঘর রাজশাহী জেলা সহসভাপতি সেলিম মনোয়ারের সভাপতিত্বে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তব্য দেন, সাবেক নগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা ড. আবদুল মান্নান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক রেজিস্টার প্রফেসর আবদুস সালাম, সিপিবি রাজশাহী জেলা সভাপতি কমরেড এনামুল হক, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের রাজশাহী জেলা সাধারণ সম্পাদক হুময়ন রেজা জেনু, খেলাঘর রাজশাহী জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান উজ্জ¦ল, শহীদ পরিবারের সদস্য হাসানুজ্জামান হাসানী।
ন্যাপ কমিউনিস্ট পার্টি ছাত্র ইউনিয়ন : দিবসটি উপলক্ষে সন্ধ্যায় ইউনিয়নের বিশেষ গেরিলা বাহিনা মোমবাতি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইসলাইল হোসেন, নারায়ন চন্দ্র সরকার, সাইফুজ্জামান তপন, আহম্মদ আলী, নাজমুল হাসান খান, জহুরুল হক প্রমুখ।
রাজশাহী মহিলা টিটিসি : দিবসটি উপলক্ষে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে অধ্যক্ষ নাজমুল হক’র সভাপতিত্বে এসময় প্রশিক্ষক, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
সভার শুরুতে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। আলোচনা পর্বে অংশগ্রহণ করেন, কেন্দ্রের জেনারেল টিচার সাবিহা সুলতানা, চীফ-ইন্সট্রাক্টর দেলোয়ার হোসেন, চীফ-ইন্সট্রাক্টর জনাব শামিমা আক্তার ও অধ্যক্ষ নাজমুল হক। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, জেনারেল শিক্ষক শামীমা ডেইজী। দোয়া পরিচালনা করেন, জেনারেল টিচার হামিদুর রহমান। আলোচনা পর্ব শেষে সকল শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।
বঙ্গবন্ধু পরিষদ: দিবসটি উপেলক্ষে সকালে বাবলা বনের শহীদ বেদীতে (টি- বাঁধ) শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে পুষ্পা অর্পন করা হয়। সন্ধ্যায় অলোকার মোড় থেকে আলোর মিছিল নিয়ে শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান স্মৃতি সৌধে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মধ্যে দিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। কর্মসূূচিতে উপস্থিত ছিলেন, সভাপতি প্রফেসর নুরল আলম।
রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল : শহিদ বুদ্ধিজীবি দিবসে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল। গতকাল সকাল ১০ টায় বিদ্যালয়ের মিলনায়তনে এক সভার আয়োজন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা নূরজাহান বেগমসহ স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে জেলা যুব মহিলা লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন
মহান বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে রাজশাহী জেলা যুব মহিলা লীগের আয়োজনে শহিদদের শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। গতকাল শনিবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বধ্যভূমিতে শহিদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপিত মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক সাবেক আব্দুল ওয়াদুদ দারাসহ জেলা উপজেলা পৌরসভার যুব মহিলা লীগের নেতৃবৃন্দ।
ইলা মিত্র শিল্পী সংঘ
মহান বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে ইলা মিত্র শিল্পী সংঘের আয়োজনে শহিদদের শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। ইলা মিত্র শিল্পী সংঘের আয়োজনে সকাল আটটায় নগরীর ভুবন-মোহন পার্কে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।
বশিরাবাদ আলিম মাদ্্রাসা: দিবসটি উপলক্ষে আলোচনাসভা ও দোয়া অনুষ্ঠান হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইয়াহিয়া। আলোচনা করেন, মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা আরিফুল ইসলাম, জনাব মফিজুর রহমান, মাওলানা কোবাদ আলী, আইরিন পারভীন আশা প্রমুখ। অনুষ্ঠনে মাদ্্রাসার সকল শিক্ষক-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ