অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর স্বপ্ন সৌম্যর

আপডেট: জুলাই ১৮, ২০১৭, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


প্রায় ১৭ বছর ধরে টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। তবে এই দীর্ঘ সময়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাত্র চারটি টেস্ট খেলার সুযোগ হয়েছে টাইগারদের। যার তিনটিতেই বাংলাদেশ হার মেনেছে ইনিংস ব্যবধানে। অন্যটিতে লড়াই করলেও হারের ব্যবধান ৩ উইকেট। তবে দিন পাল্টে গেছে। বাংলাদেশ আগের চেয়ে অনেক পরিণত, অনেক অভিজ্ঞ দল এখন। অস্ট্রেলিয়ারও সেই প্রতাপ নেই। আর এটাই স্বপ্ন দেখাচ্ছে সৌম্য সরকারকে। তার আশা, দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ক্রিকেট-বিশ্বে আলোড়ন তুলবে টাইগাররা।
বোর্ডের সঙ্গে ক্রিকেটারদের দেনা-পাওনা সংক্রান্ত ঝামেলা মেটার ওপরে নির্ভর করছে অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর। সব কিছু ঠিক থাকলে আগস্টের মাঝামাঝি ঢাকায় আসার কথা ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল দলটির। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ নিয়ে সৌম্যর মনে ভীষণ উত্তেজনা। সোমবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, ‘বেশ কিছু দিন ধরেই আমরা টেস্টে ভালো খেলছি। গত বছর ইংল্যান্ডকে ঘরের মাটিতে হারিয়েছিলাম। আমি তাই মনে করি, আমাদের সামনে বড় সুযোগ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে দলের সবাই মুখিয়ে আছে। আশা করি, আমরা ভালো খেলেই ওদের হারাতে পারবো।’
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশ সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিল ২০০৬ সালে। প্রায় আড়াই বছর আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত সৌম্য তাই অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে টেস্ট খেলার সম্ভাবনায় রোমাঞ্চিত, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এটাই হতে যাচ্ছে আমার প্রথম টেস্ট সিরিজ। আমি সিরিজটাকে স্মরণীয় করে রাখতে চাই। চেষ্টা করবো, ভালো ব্যাটিং করে বাংলাদেশের জয়ে অবদান রাখতে।’
ব্যাট হাতে ইদানীং অবশ্য তিনি ব্যর্থ। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ৪ ম্যাচ খেলে মাত্র ৩৪ রান করতে পেরেছেন। সৌম্য তাই রানে ফেরার লক্ষ্য নিয়ে কঠোর অনুশীলন করে চলেছেন ফিটনেস ক্যাম্পে, ‘নিয়মিত একইভাবে আউট হলে আমার সমস্যাটা বুঝতে পারতাম। কিন্তু আমার আউট হওয়ার ধরন এক রকম নয়। চেষ্টা করছি সমস্যার সমাধান করার। আমি শুধু জানি যে আমাকে রান করতে হবে। আমার সামনে এটাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।’
শুধু ব্যাটিং নয়, বল হাতেও দলের জন্য অবদান রাখতে চান সৌম্য। মিডিয়াম পেসকে আরও শাণিত করতে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি, ‘আমি রেগুলার নেটে বোলিং করি। বাংলাদেশ দল এখন প্রায়ই তিনজন পেস বোলার নিয়ে খেলে। তাই চার নম্বর পেসার হিসেবে আমার পক্ষে কিছু করা বেশ কঠিন। তবে সুযোগ পেলে নিজেকে ভালো বোলার হিসেবে প্রমাণ করার চেষ্টা করবো।’
ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিং করার জন্য ফিটনেসকে গুরুত্ব দিচ্ছেন সৌম্য, ‘দুটো একসঙ্গে করা বেশ কঠিন। এজন্য ফিটনেস ভালো থাকা প্রয়োজন। আমাকে অবশ্য একটু বেশিই পরিশ্রম করতে হচ্ছে, কারণ আমি অলরাউন্ডার। আমি ব্যালেন্স করেই অনুশীলন করি। যেদিন ব্যাটিংয়ে বেশি সময় দেই, সেদিন বোলিংয়ে তেমন সময় দিতে পারি না।’-বাংলা ট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ