অ্যাশেজেও স্মিথদের নিষিদ্ধ করার হুমকি অস্ট্রেলিয়ার

আপডেট: জুন ৩০, ২০১৭, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


পারিশ্রমিকসহ নানা আর্থিক বিষয়াদি নিয়ে ক্রিকেটার এবং অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের দ্বন্দ্ব যেন দিন দিন বেড়েই চলেছে। সমস্যা এতটাই প্রকট আকার ধারণ করেছে যে, খোদ অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটই পড়ে গেছে গভীর শঙ্কায়। এমনকি পরিস্থিতি সামাল দিতে আগামী অ্যাশেজেও ক্রিকেটারদের নিষিদ্ধ করার হুমকি দিয়ে রাখলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)।
ক্রিকেটারদের সঙ্গে বোর্ডের যে সমঝোতা চুক্তি রয়েছে, তার মেয়াদ শেষ হবে আর একদিন পরই। নতুন চুক্তিতে স্বাক্ষর না করার অর্থ আগামী ১ জুলাই থেকে বেকার হয়ে যাবেন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা। এ পরিস্থিতিতে আলোচনায় উঠে এসেছে, তাহলে স্টিভেন স্মিথরা কী করবেন? তারা কী আয়-রোজগার বন্ধ করে দেবেন? এমন প্রশ্ন ওঠার পর আলোচনা শুরু হয়েছে, ক্রিকেটারদের তো রোজগারের অনেক পথ আছে। আইসিসি অনুমোদিত কিংবা অনুনমোদিত বিভিন্ন টুর্নামেন্ট কিংবা ম্যাচ খেলেও অনেক উপার্জন করতে পারেন ক্রিকেটাররা। তারা প্রদর্শনী ম্যাচ আয়োজন করতে পারেন কিংবা খেলতে পারেন বিদেশি টি-টোয়েন্টি লিগে।
এ বিষয়গুলো যখন আলোচনার টেবিলে উঠে এসেছে, তখনই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পারফরম্যান্স ম্যানেজার প্যাট হাওয়ার্ড এক ই-মেইল বার্তায় হুমকিটা দিয়ে রাখলেন, ‘বোর্ডের অনুমতি ছাড়া কেউ কোনো টুর্নামেন্ট কিংবা সিরিজে খেলতে গেলেই তাকে অন্তত ৬ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে।’
এই হুমকি এলো চুক্তিতে এবং চুক্তির বাইরে থাকা সব ক্রিকেটারের জন্যই। ৬ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করার অর্থ, আগামী অ্যাসেজ সিরিজ খেলতে না পারা। আগামী নভেম্বর থেকে জানুয়ারীতে চলবে অ্যাশেজ সিরিজ।
অস্ট্রেলিয়ার টিম পারফরম্যান্স ম্যানেজার প্যাট হাওয়ার্ড তার ই-মেইল বার্তায় লিখেছেন, ‘খেলোয়াড়েরা (যারা চুক্তিতে নেই তারাও) ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অনুমতি ছাড়া আইসিসি অনুমোদিত ক্রিকেট খেলতে পারবেন না। যারা অননুমোদিত ক্রিকেট খেলবেন তারা আইসিসি অনুমোদিত ক্রিকেট থেকে ছয় মাস নিষিদ্ধ হবেন।’
ক্রিকইনফো জানিয়েছে, সিএ এই ছয় মাস নিষেধাজ্ঞার কথা বলছে আইসিসি নিয়ম-নীতি মেনেই। এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে আইসিসির খেলোয়াড় আচরণবিধি সংক্রান্ত নিয়মে রয়েছে- ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ হবেন তিনি। সিএ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, এ পরিস্থিতিতে বিদেশি কোনো লিগে খেলার জন্য তারা কোনো ক্রিকেটারকে অনাপত্তিপত্র দেবে না। আর অনাপত্তি পত্রছাড়া কোনো ক্রিকেটারই বিদেশি কোনো লিগে খেলতে পারে না। ১ জুলাই থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত চুক্তিতে স্বাক্ষর করার সুযোগ পাবেন ক্রিকেটাররা। এরপরও যদি সঙ্কটের সমাধান না হয়, তাহলে যে কোনো পক্ষ থেকেই আসতে পারে কঠিন কোনো পদক্ষেপ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ