আংশিক প্রক্রিয়াজাত চামড়া রফতানির ঘোষণা আসছে

আপডেট: জুলাই ২৪, ২০২০, ১০:১০ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


গত বছর কোরবানি পশুর চামড়ার নজিরবিহীন দর বিপর্যয়ের পর কাঁচা চামড়া রফতানির সিদ্ধান্ত নিলেও শেষ পর্যন্ত ওই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে পারেনি সরকার। তবে এবার যেন কিছুটা দাম পাওয়া যায়, সেজন্য ওয়েট-ব্লু লেদার বা আংশিক প্রক্রিয়াজাত চামড়া রফতানির সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। আগামী রোববার (২৬ জুলাই) চামড়াশিল্প সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠক করে এ সিদ্ধান্তের ঘোষণা দেবেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জাগো নিউজকে বলেন, উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীদের উপস্থিতিতে গতবার কোরবানির পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেউ কথা রাখেনি। গরিব ও এতিমদের হক চামড়ার দাম নিয়ে গত বছরের কারসাজি অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যায়। ৩১ বছরের মধ্যে গতবার কোরবানির ঈদে কাঁচা চামড়ার দরে সবচেয়ে বেশি বিপর্যয় নেমে আসে। দাম না পেয়ে অনেকেই ক্ষোভে চামড়া নদীতে ফেলেও দেন।
‘তাই গত বছর কাঁচা চামড়া রফতানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। কিন্তু নানান চাপে সেটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। এবার কী করা যায় সে বিষয়ে অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনকে কাজ করতে বলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। সে অনুযায়ী সম্প্রতি ট্যারিফ কমিশন কাঁচা চামড়া রফতানি করার পক্ষে মত দিয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে একটি প্রতিবেদন দিয়েছে। ওই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ওয়েট-ব্লু লেদার বা আংশিক প্রক্রিয়াজাত চামড়া রফতানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যা আগামী রোববার বাণিজ্যমন্ত্রী ঘোষণা দেবেন। তবে প্রাথমিকভাবে নির্দিষ্ট পরিমাণ চামড়া রফতানির ঘোষণা দেয়া হবে’-বলেন ওই কর্মকর্তা।
তিনি আরও বলেন, কী পরিমাণ ও কী ধরনের চামড়া রফতানি করার অনুমতি দেয়া হবে সেসব ঠিক করে দেবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।
এ বিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সঙ্গে আলাপ করলে তিনি কাঁচা চামড়া সরাসরি রফতানির কথা না বললেও এ বছর কোরবানি পশুর চামড়ার যেনো উপযুক্ত মূল্য নিশ্চিত করা যায়, সেজন্য সরকার সবকিছু করছে বলে জাগো নিউজকে জানান। মন্ত্রী বলেন, বিগত দিনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। চামড়া সংগ্রহের জন্য এবার কোনো অর্থ সংকট থাকবে না। প্রয়োজনে সরকার কাঁচা চামড়া রফতানির বিষয়টিও মাথায় রেখেছে।
চামড়ার দর সম্পর্কে তিনি বলেন, গত বছরের মতো পরিস্থিতি কোনো অবস্থাতেই হতে দেয়া হবে না। এ বছর কোরবানির পশুর চামড়ার ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ