আইসোলেশনে ভর্তি কিশোর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলো

আপডেট: এপ্রিল ৪, ২০২০, ১:২৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


করোনা আক্রান্ত সন্দেহে রাজশাহীতে সংক্রামক ব্যাধি (আইডি) হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি এক কিশোর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে। নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন আসার পর শুক্রবার (৩ এপ্রিল) তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তবে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে আরও ছয়জন পর্যবেক্ষণে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
২৯ মার্চ রাত সাড়ে ১২টার দিকে ওই কিশোরকে আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সে জ্বর ও শুকনো কাশিতে ভুগছিল। ১ এপ্রিল রামেকের ভাইরোলজি বিভাগে স্থাপিত ল্যাবে ওই কিশোরের নমুনা পরীক্ষা করা হয়।
করোনাভাইরাসের লক্ষণ আছে এমন রোগীদের জন্য রামেক হাসপাতালের অধীনে সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিট খোলা হয়। করোনাভাইরাস শনাক্ত এবং এই ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে। এমন রোগীদের চিকিৎসার জন্য রামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আজিজুল হক আজাদকে আহ্বায়ক করে ১৫ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের সমন্বয়ে কমিটি গঠন করেছে।
আজিজুল হক বলেন, ওই কিশোরের জ্বর ও শ্বাসকষ্ট ছিল। মাঝখানে তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। তখন তার বুকের এক্স-রে করা হয়। দেখা যায়, তার অবস্থা স্বাভাবিক। আতঙ্কে তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাচ্ছিল। তাকে ঘুমের ওষুধ দেওয়া হয়। সে ঘুমের মধ্যে স্বাভাবিক ছিল। এরপর সে ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে ওঠে। ২ এপ্রিলই তাকে ছুটি দেওয়া যেত। চিকিৎসকেরা তার নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। প্রতিবেদন পাওয়ার পর শুক্রবার সকালে তাকে ছাড়া হয়েছে।
আজিজুল হক আজাদ আরও বলেন, ওই হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ওই কিশোর একমাত্র রোগী হিসেবে চিকিৎসাধীন ছিল। রামেক হাসপাতালে আরও ছয় জন তাদের পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। তাদের কারও মধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ দেখা যায়নি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ