আওয়ামী লীগ সভাপতির জন্মদিন পালন || স্তাবকদের জন্য যুৎসই জবাব

আপডেট: জুলাই ১৪, ২০১৭, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সম্প্রতি আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সভার আলোচ্যসূচিতে একটি বিষয় অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। আলোচ্য বিষয়টি ছিল আওয়ামী লীগ সভাপতির জন্মদিন পালন প্রসঙ্গ। তিনি বলেছেন: ‘কেন এটা দলের আলোচ্যসূচির মধ্যে থাকবে? আমার জন্মদিন এভাবে পালিত হবে কেন? আওয়ামী লীগ কেন আমার জন্মদিবস পালন করবে? আমি অনেকবার নিষেধ করেছি এসব করতে, কিন্তু কেন সেটা শোনা হচ্ছে না?’ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী তাঁর এই ভর্ৎসনার পর সবাই চুপসে গিয়েছিলেন এবং প্রসঙ্গটি আর উত্থাপিত হয়নি।
আকৃতি ও চেহারায় মানুষ মনে হলে মনুষ্যরূপিদের একটি অংশ লেজবিশিষ্ট সারমেয় এর মতো আচরণ করে। বাহ্যিকভাবে এদের লেজ দেখা না গেলেও চিন্তা ও স্বভাবে একেবারেই লেজবিশিষ্ট প্রাণী। এরা কোনোভাবে একবার আস্কারা পেয়ে গেলে সমূহ সর্বনাশ। অনেক সময় জীবন দিয়ে এর প্রায়শ্চিত্ত করতে হয়। এরা ভীষণ ধরনের স্তাবক। ক্ষমতাসীনদের এরা ঘিরে থাকে। সঠিক পরিস্থিতি নেতার গোচরে আনতে চায় না। ফলে নেতা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ক্রমশই বিছিন্ন হয়ে পড়ে। নেতার পতন হলে এরা সঙ্গে সঙ্গে ভোলপাল্টে অন্য নেতার পদলেহনে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। তাই এদের থেকে সময় মত সাবধান হতে না পারলে পরিণতি ভীষণ খারাপ হয়।
আমরা বঙ্গবন্ধুকে ঘিরেও অনেক স্তাবক লক্ষ্য করেছি। যারা বঙ্গবন্ধুকে সঠিক তথ্য থেকে সব সময় আড়াল করেছে। তারাই আবার বঙ্গবন্ধুর মর্মান্তিক হত্যাকা-ের পর ভিন্ন সুরে কথা বলেছে। ইতিহাসের সে এক নিষ্ঠুর অধ্যায়।
বঙ্গবন্ধু তনয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে মুহুর্তে দেশকে একটি নির্দিষ্ট দিশা ধরে এগিয়ে নিচ্ছেন, আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশকে একটি মর্যাদাশীল রাষ্ট্রে পরিণত করতে চলেছেনÑ তখন স্তাবকের দল তাঁকে ঘিরে ধরেছে। প্রধানমন্ত্রীকে জনবিচ্ছিন্ন করতে উঠেপড়ে লেগেছে। প্রকৃত অর্থে এই স্তাবকদের কোনো আদর্শ নেই। লেজ নেড়ে, পদলেহন করে নিজ স্বার্থ হাসিল করাই এদের উদ্দেশ্য। এরা সব সময় ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় থাকতে পছন্দ করেন। মারাত্মক জীবাণুর মত এরা রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করে মানুষটাকেই খেয়ে ফেলে।
প্রধানমন্ত্রীকে অনেক ধন্যবাদ যে, তিনি নিজেই ওই স্তাবকের বুহ্যজাল ছিন্ন করে বেরিয়ে আসছেন। তিনি স্তাবকদের বুঝতে পারছেনÑ যে কারণেই তিনি সাহসী ভূমিকা নিয়ে নিজের জন্মদিনের বিষয়টি আলোচ্যসূচি থেকে ঝেড়ে ফেলতে পেরেছেন। জনগণ এমনটিই চায়। প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেশের মানুষ সম্পৃক্ত থাকতে চায়। ওই স্তবকেরা তা ছিন্ন করতে চায়। এমনটা যাতে না হয় সেই সতর্কতাই আজ খুব প্রয়োজন। আওয়ামীলীগের নিবেদিত প্রাণ কর্মীদের আরো বেশি সম্পৃক্ত হওয়া চায়। স্তাবকেরা যাতে নেতাকে বিভ্রান্ত করতে না পারে। কেননা একজন শেখ হাসিনার প্রয়োজন এখন সব চাইতে বেশি। সেটা দেশ এবং জনগণের জন্যই।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ