আগামী বছরের গোড়ায় শিখরে পৌঁছতে পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ, আশঙ্কা প্রকাশ বিশেষজ্ঞর

আপডেট: ডিসেম্বর ৫, ২০২১, ৭:০০ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক:


করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে কেঁপে গিয়েছিল গোটা দেশ। সেই পরিস্থিতি সামলানোর পর থেকেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল, তবে কি মারণ ভাইরাসের তৃতীয় ঢেউও আছড়ে পড়বে ভারতে? পড়লেও তার প্রভাব কতখানি হবে? ফের কি লকডাউনের পথে হাঁটতে হবে কেন্দ্রকে? এবার সেই প্রশ্নের জবাব দিলেন আইআইটি কানপুরের অধ্যাপক।
বর্তমানে দেশের সার্বিক করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলেও নতুন আতঙ্কের নাম ওমিক্রন। কোভিডের অতি শক্তিশালী এই স্ট্রেন ইতিমধ্য়েই হানা দিয়েছে একাধিক রাজ্যে। আর তারই মধ্যে তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করলেন আইআইটি কানপুরের অধ্যাপক মণীন্দ্র আগরওয়াল। দীর্ঘদিন মহামারী নিয়ে গবেষণা করছেন তিনি। সেই অধ্যাপকই জানালেন, করোনার তৃতীয় ঢেউ থেকে হয়তো রেহাই পাবে না দেশ। তবে এর প্রভাব একেবারেই দ্বিতীয় ঢেউয়ের মতো হবে না। আগামী বছরের শুরুতে অর্থাৎ জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে দেশে এর প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়বে।

তবে আরও একটি আশঙ্কার কথা প্রকাশ করেছেন তিনি। জানান, ওই সময়ই দেশে ওমিক্রনের মাত্রাও শিখরে পৌঁছবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আগামী বছরের শুরুতেই পাঞ্জাব, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখ-, গোয়া এবং মণিপুরে নির্বাচন। ফলে সেই সময়ে নতুন করে সংক্রমণ বাড়লে তা মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। যদিও অধ্যাপক বলছেন, এ নিয়ে অযথা উদ্বিগ্ন না হয়ে দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে আগের মতোই। মাস্ক পরা, স্যানিটাইজারের ব্যবহার চালিয়ে যেতে হবে। সেই সঙ্গে টিকা নিয়ে নিজেকে সুরক্ষিত করার কাজও সারতে হবে।

এর সঙ্গে ওমিক্রন নিয়েও অতিরিক্ত চিন্তা না করারই পরামর্শ দিয়েছেন আইআইটি কানপুরের অধ্যাপক। তাঁর কথায়, ওমিক্রনে আক্রান্ত হলে মারাত্মক কোনও উপসর্গ দেখা যাবে না। শরীরে বিরাট কিছু প্রভাবও ফেলতে পারবে না। তবে অন্যকে সংক্রমণ করার ক্ষমতা বেশি।

তবে কি আগামী বছর জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে ফের লকডাউন হবে দেশে? অধ্যাপক বলছেন, পরিস্থিতি সামলাতে কেন্দ্র কী পদক্ষেপ করছে, তার উপরই পুরোটা নির্ভর করছে। তবে তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়লে নাইট কারফিউ, জমায়েতে বাধানিষেধের মতো নিয়মগুলি মেনে চলারই পরামর্শ দিচ্ছেন তিনি।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন