আজ প্রয়াত প্রবীণ সাংবাদিক শ্রী বিরেন চন্দ্র দাস এর দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী

আপডেট: জুন ২৯, ২০২৪, ১১:৫০ পূর্বাহ্ণ


আক্কেলপুর,প্রতিনিধি:


বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্রী বিরেন চন্দ্র দাস এর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ শনিবার। ২০২২ সালে (২৯ শে জুন) বুধবার বিকেল ৪:৪০ মিনিটে বগুড়া শহীদ জিয়া মেডিকেল এন্ড কলেজ (শ.মে.ক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

তিনি সনাতন ধর্মের হলেও দরিদ্র্যতার কারণে আক্কেলপুর সিনিয়র মাদ্রাসায় লেখাপড়ার পাশাপাশি সেই ছাত্র জীবন থেকেই তিনি তৎকালীন পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের হাতে গোনা কয়েকটি পত্রিকায় তিনি লেখালেখি শুরু করেন।

এমন বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় দীর্ঘ ৫২ বছর সাংবাদিকতা করার পাশাপাশি এবং দেশ ও জাতির জন্য সেইসময় সংগ্রাম, পূর্ব পাকিস্তানসহ এমন অসংখ্য পত্রিকায় লিখতেন। অবশেষে তিনি দরিদ্র্যতাকে হার মানিয়ে মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাশ করে ঢাকায় অবস্থান করেন এবং দেশের আইন সংবিধান লেখক ড. কামাল এর সহকারী হিসেবে তিনি ঢাকায় অবস্থান করেন।

শুরু করেন আবারো লেখাপড়া পাশাপাশি সাংবাদিকতা। রাজপথে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে গিয়েছেন। সেইসময় জাতীয় প্রেসক্লাবের সিনিয়র সাংবাদিকদের সঙ্গে তিনি সুসম্পর্ক গড়ে তোলেন এবং হয়ে উঠেন প্রতিবাদী কলম সৈনিক।

এরপর ১৯৮৪ সালে তিনি ঢাকা ত্যাগ করে রাজশাহীতে এসে সেই সময় উত্তরাঞ্চলের একমাত্র আলোচিত পত্রিকা দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব নেন এবং পরে উপজেলা প্রতিনিধি এবং ঢাকা ট্রিবিয়ন পত্রিকার দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

এরপর তিনি জয়পুরহাট জেলা গঠিত হওয়ার আগেই তিনি নিজ জন্মভূমি জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে ১৯৮৪-সালে স্থাপিত প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী উপজেলা প্রেসক্লাব স্থাপিত করেন। উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতির দায়িত্বে থাকাকালীন ২০২২ সালে তিনি হঠাৎ মৃত্যুবরণ করেন।

তার দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকীতে জাতীয় প্রেসক্লাব, জাতীয় রিপোর্টার ক্লাব, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব, প্রেসক্লাব বাংলাদেশ, সাংবাদিক উন্নয়ন সোসাইটি অব বাংলাদেশ-(ইউএসবি), বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক সোসাইটিসহ দেশ-বিদেশের গণমাধ্যম সংগঠনের পাশাপাশি দেশের জাতীয়, আঞ্চলিক প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার পক্ষথেকে শোকহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন।

সব চেয়ে বড় বিষয় এই আজ ২৯ শে জুন তার দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী বড় পরিসরে উদযাপন করা সম্ভব হয়নি। শুধু মাত্র ধর্মীয় রীতি অনুসারে স্বল্প পরিসরে পারিবারিকভাবে করা হলেও -৪-৫ দিনের মধ্যে বড় পরিসরে মৃত্যুবার্ষিকী উৎযাপনের দিন-তারিখ জানিয়ে দেয়া হবে। উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকগণ ও পরিবার বর্গরা জানিয়েছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ