আজ বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস || মহাদেবপুরে সেচ্ছাশ্রমে অটিজম শিশুদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে

আপডেট: এপ্রিল ২, ২০১৭, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

এম সাখাওয়াত হোসেন, মহাদেবপুর



আজ ২ এপ্রিল বিশ^ অটিজম সচেতনতা দিবস। অটিজম সম্পর্কে বিশ^ব্যাপী গণসচেতনতা সৃষ্টির জন্য ২০০৮ সাল থেকে প্রতি বছরের ২ এপ্রিল বিশ^ অটিজম সচেতনতা দিবস হিসাবে পালন করা হচ্ছে। শুরু থেকেই বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে দিবসটি।
আমাদের সমাজে অটিজম আক্রান্ত শিশুদের এখনো বোঝা মনে করা হয়। আসলে অটিস্টিক শিশুরা সমাজের বোঝা নয়, উপযুক্ত পরিবেশ, শিক্ষা ও সুযোগ পেলে তারাও সমাজকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে রাখতে পারে অনেক বড় ভূমিকা। বিশেষ পদ্ধতিতে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ দিতে পারলে অটিজম শিশুরা ফিরে পেতে পারে সুস্থ্য স্বাভাবিক জীবন। কিন্তু আমাদের দেশে অটিজম শিশুদের বিশেষ পদ্ধতিতে শিক্ষাদানের মতো প্রতিষ্ঠানের বড়ই অভাব। রাজধানী ঢাকা ও বড় বড় শহরগুলোতে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান থাকলেও মফস্বল এলাকায় এসব প্রতিষ্ঠান নেই বললেই চলে। তবে কিছু মহৎ ব্যক্তি বিষয়টির গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করে মফস্বল এলাকার কোন কোন স্থানে সমাজের জন্য অতি প্রয়োজনীয় এই বিশেষায়িত বিদ্যালয় স্থাপন ও পরিচালনা করছেন। এসব ব্যক্তিদের প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়গুলো অটিজম শিশুদের মেধা বিকাশে ও তাদেরকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করার ক্ষেত্রে অসামান্য অবদান রাখছে। ঠিক তেমনি একটি প্রতিষ্ঠান নওগাঁর মহাদেবপুরে রাবেয়া পল্লিতে অবস্থিত অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়। মূলত শিক্ষার মূলধারা থেকে বঞ্চিত অটিজম আক্রান্ত ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়ানোর প্রত্যয় নিয়ে ২০১১ সালে ওবায়দুল হক বাচ্চু এই বিদ্যালয়টি স্থাপন করেন। ওবায়দুল হক বাচ্চুর ব্যক্তিগত উদ্যোগে উপজেলা সদরে আত্রাই নদীর কোল ঘেঁষে রাবেয়া পল্লির মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে প্রতিষ্ঠিত এ ব্যতিক্রমধর্মী বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকেই অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুদের প্রাক প্রাথমিক, প্রাথমিক ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা প্রদানে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে এ বিদ্যালয়ে ৯১ জন্য অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী শিক্ষাগ্রহণ করছে। এসব শিশুদের শিক্ষা প্রদানের জন্য নিরলস ভাবে কাজ করছেন নিবেদিত প্রাণ শিক্ষকগণ। এদের কেউই কোন বেতন-ভাতা পান না। সবাই স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে সমাজের জন্য অতি প্রয়োজনীয় এ দ্বায়িত্ব পালন করে চলেছেন। এ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক ওবায়দুল হক বাচ্চুর সহধর্মিনী রেবেকা সুলতানা প্রধান শিক্ষিকার দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই জাতীয় সংসদের হুইপ শহীদুজ্জামান সরকার ও স্থানীয় মহাদেবপুর ও বদলগাছী আসনের সাংসদ ছলিম উদ্দিন তরফদার সেলিম এ প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শন করেছেন এবং এ এলাকায় অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষার একমাত্র এ প্রতিষ্ঠানটির গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতার জন্য উদ্যোগ গ্রহণের আশ^াস দিয়েছেন। তবে এ আশ^াসের দ্রুত বাস্তবায়ন দেখতে চান এসব অসহায় শিশুদের শিক্ষায় দীর্ঘদিন ধরে বিনা বেতনে শ্রম দিয়ে আসা শিক্ষক-কর্মচারীরা।
প্রধান শিক্ষিকা রেবেকা সুলতানা আরো বলেন, স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবসসহ বিভিন্ন জাতীয় দিবসে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্বাভাবিক শিশুদের পাশাপাশি অংশ নিয়ে অটিস্টিক শিশুরাও অনেক সাফল্য অর্জন করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। তাই অবহেলা করে অটিস্টিক শিশুদের ঘরের কোণে লুকিয়ে না রেখে তাদেরকে বিদ্যালয়ে আনার জন্য পিতা-মাতার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ওবায়দুল হক বাচ্চু বলেন, এ বিদ্যালয়ের বেশিরভাগ শিক্ষার্থী দরিদ্র পরিবারের সন্তান। তাই তাদের পরিবারের পক্ষে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার ভাড়া যোগাড় করা কঠিন হয়ে পড়ে। এজন্য তিনি একটি পরিবহনের জন্য সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে আবেদন জানিয়েছেন।
অটিজম বিষয়ে মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আম আক্তারুজ্জামান আলাল জানান, অটিজম শিশুরা হলো নিজের মধ্যে মগ্ন থাকা মানুষ। এদের মস্তিস্কের ¯œায়ুগুলো ঠিকমতো কাজ করে না। ফলে সামাজিক যোগাযোগ রক্ষা করতে পারে না। এদেরকে ডাকলেও এরা খেয়াল করে না। এরা এক কথা বারবার বলে এবং এক হাতের খেলনা স্বাভাবিকভাবে অন্য হাতে পার করতে পারে না। ১৮ মাস থেকে ৩ বছরের মধ্যে যেসকল শিশুর এসব লক্ষণ প্রকাশ পায় তারাই অটিজন শিশু।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেবুন নাহার বলেন, অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়টি অটিজম শিশুদের শিক্ষার ক্ষেত্রে স্থানীয়ভাবে ব্যাপক অবদান রাখলেও শিক্ষার প্রয়োজনী উপকরণ ও শিক্ষকদের বেতনভাতা না থাকায় চরম দুর্ভোগে আছেন। তবে সারা বাংলাদেশে অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী শিশুর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রতিটি উপজেলায় সরকারিভাবে একটি করে বিদ্যালয় হলে এসব শিশুদের শিক্ষার সুযোগ নিশ্চিত হতো।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ