আত্রাই নদী থেকে অবৈধ বালু তোলার ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেটের স্ব-প্রণোদিত মামলা

আপডেট: নভেম্বর ২৬, ২০২২, ২:১৬ অপরাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি :


নাটোরের সিংড়ায় আত্রাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু তোলার ঘটনায় বিভিন্ন গণ-মাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর এবার স্ব-প্রণোদিত মামলা গ্রহণ করলেন নাটোরের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট।
গত মাসে কয়েকটি বে-সরকারি টেলিভিশন ও জাতীয় পত্রিকায় ‘নাটোরের আত্রাই থেকে বালু উত্তোলন’ শিনোরামে প্রতিবেদন প্রকাশ এবং প্রচারিত হয়।

শুক্রবার নাটোরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু সাঈদ স্ব-প্রণোদিত হয়ে মামলা আমলে গ্রহণ করে নাটোরের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেসনের (পিবিআই) বিশেষ পুলিশ সুপারকে তদন্ত করার নির্দেশ দেন এবং আগামী ২৭ ডিসেম্বর তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেয়ার নির্দেশ দেন।

একইভাবে নাটোরের সিংড়ার উপর দিয়ে বহমান অন্য যেকোনো নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হলে তা বন্ধের জন্য প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

নাটোরের সিংড়া আমলি আদালতের স্টেনোগ্রাফার আবুল হাসান বলেন, বেশ কিছু গণমাধ্যমে প্রচার ও প্রকাশিত আত্রাই থেকে অবৈধভাবে বালু তোলার সংবাদটি আমুল আদালতের নজরে আসে। ওই সংবাদটি বিশ্লেষণ করে আমলি ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট এটা স্পষ্ট ভাবে প্রতীয়মান হয় যে,

কোনো ধরনের অনুমোদন ছাড়াই নাটোরে সিংড়ায় আত্রাই নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু তুলছেন শেরকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেল।

তবে অপরাধটির সাথে আরও কারা জড়িত এবং কাদের দ্বারা ও সহযোগিতায় সংঘটিত হচ্ছে তা প্রাথমিক অনুসন্ধানের মাধ্যমে নিরূপণ করা প্রয়োজন এবং তদন্তের মাধ্যমে আসামিদের শনাক্ত করা প্রয়োজন মনে করে তা তদন্তের নির্দেশ দেন ম্যাজিস্ট্রেট।

তদন্তকারী কর্মকর্তাকে তদন্তকালে আসামিদের শনাক্তকরণ, অপরাধ সংগঠনের সুনির্দিষ্ট নিরূপণ, সাক্ষীদের জবানবন্দি গ্রহণ, ঘটনাস্থলের খসড়া মানচিত্র ও সূচিপত্র প্রস্তুত করারও আদেশ দেন এই আদালত। পাশাপাশি অবৈধ বালু উত্তোলনের কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি পাওয়া গেলে তার জব্দ করতে বলেন আদেশে।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেসন (পিবিআই) নাটোরের বিশেষ পুলিশ সুপার মো. শরীফ উদ্দিন আহমেদ বলেন, তিনি ছুটিতে থাকার কারণে আদালতের আদেশের বিষয়ে জানতে পারেননি। তবে আদেশের কপি হাতে পেলে আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ