আফগানিস্তানসহ বিশ্বের তিন দেশে ইদ পালিত

আপডেট: মে ১, ২০২২, ৯:১৮ অপরাহ্ণ

ফাইল ছবি

সোনার দেশ ডেস্ক:


সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে সাধারণত যেদিন ইদ হয়, এশিয়ার দেশগুলোতে হয় তার পরের দিন। কিন্তু এবছর যেন কিছুটা বিপরীত চিত্রই দেখা গেলো। সৌদির আগেই পবিত্র ইদুল ফিতর উদযাপন করছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ আফগানিস্তান। রোববার (১ মে) আফগানদের পাশাপাশি ইদ উদযাপন করছে বিশ্বের আরও দুটি দেশের মানুষ। খবর খালিজ টাইমসের।
শনিবার (৩০ এপ্রিল) শেষ রাতে আফগানিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট ঘোষণা দিয়েছে, দেশটির বিভিন্ন প্রদেশে পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। এ কারণে রোববারই ইদুল ফিতর উদযাপন করবে দেশটি। আফগানিস্তানের ভারপ্রাপ্ত সরকারের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ এক টুইটে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
আফগান সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ফারাহ, গজনি, কান্দাহার ও ঘোর প্রদেশের মোট ২৭ জন ব্যক্তি শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখেছেন এবং কমিটির কাছে তার প্রমাণ জমা দিয়েছেন।
আফগানিস্তান ছাড়া আফ্রিকার দুটি দেশ- নাইজার এবং মালিও রোববার ইদ উদযাপন করছে।
তবে শনিবার শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, বাহরাইন, কুয়েত, ইয়েমেনের মতো দেশগুলোতে রোববার রমজান মাসের শেষ দিন এবং সোমবার ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হবে।
এর আগে ইদের দিনক্ষণ ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া ও সিঙ্গাপুর। ইদুল ফিতর উপলক্ষে একটি বিবৃতিতে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল ইমাম কাউন্সিল। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দেশটিতে রমজানের মাসের শেষ দিন হবে আগামী রোববার (১ মে) এবং শাওয়াল মাসের প্রথম দিন, অর্থাৎ ইদুল ফিতর উদযাপিত হবে আগামী সোমবার (২ মে)।
এছাড়া, এশিয়ার মধ্যে সবার আগে ইদুল ফিতরের দিন ঘোষণা করেছে সিঙ্গাপুর। দেশটির মজলিস উগামা ইসলাম বা ইসলামী ধর্মীয় পরিষদ (এমইউআইএস) জানিয়েছে, তারা আগামী সোমবার ইদ উদযাপন করবে।
ইউরোপের দেশ ফ্রান্সেও সোমবার ইদুল ফিতর উদযাপিত হবে।
সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে পবিত্র রমজান বা শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলো কি না তা জানতে বাংলাদেশের মানুষের আগ্রহের অন্ত নেই। মাস দুটোর শুরু চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল হলেও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে সাধারণত যেদিন রোজা শুরু বা শেষ হয়, বাংলাদেশে হয় তার পরের দিন। ফলে শনিবার ওইসব দেশে চাঁদ দেখা গেলো কি না তা জানতে অধীর ছিলেন বহু মানুষ।
সৌদি আরবে এ বছর রোজা পালন শুরু হয়েছিল গত ২ এপ্রিল। আর তার পরের দিন, অর্থাৎ ৩ এপ্রিল থেকে রোজা শুরু হয়েছিল বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়াসহ এশিয়ার বেশিরভাগ দেশে। এসব দেশে ২৯ রোজা হলে সোমবার (২ মে) এবং ৩০ রোজা হলে মঙ্গলবার (৩ মে) ইদুল ফিতর উদযাপিত হতে পারে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ