আফগানিস্তানে এবার মানবাধিকার কমিশন বিলুপ্ত

আপডেট: মে ১৭, ২০২২, ২:২৭ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


আফগানিস্তানের মানবাধিকার কমিশনসহ দেশটির সাবেক মার্কিন-সমর্থিত সরকারের পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ বিলুপ্ত করেছে তালেবান সরকার। সোমবার (১৬ মে) তালেবান সরকারের এক কর্মকর্তা এই তথ্য জানিয়েছেন।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

মানবাধিকার কমিশন ছাড়া যে চারটি বিভাগ তালেবান বিলুপ্ত করেছে, তার মধ্যে হাই কাউন্সিল ফর ন্যাশনাল রিকনসিলিয়েশন (এইচসিএনআর), জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ, আফগান সংবিধান বাস্তবায়নের তত্ত্বাবধান কমিশন রয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, আর্থিক সংকটের মুখে পাঁচটি বিভাগকে তালেবান অপ্রয়োজনীয় মনে করায় তারা তা বিলুপ্ত করেছে। গত বছরের আগস্টে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে তালেবান।

দেশটির ক্ষমতা দখলের পর গত শনিবার তালেবান প্রথম বার্ষিক জাতীয় বাজেট ঘোষণা করে। এই বাজেটে বড় ধরনের ঘাটতি রয়েছে। ঘাটতির পরিমাণ ৪৪ বিলিয়ন আফগানিস।

এ প্রসঙ্গে তালেবান সরকারের উপমুখপাত্র ইন্নামুল্লা সামাঙ্গানি রয়টার্সকে বলেন, এই বিভাগগুলোকে প্রয়োজনীয় বলে মনে করা হয়নি। তাই বিভাগগুলোকে বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। বিভাগগুলো বিলুপ্ত করা হয়েছে।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তানের ক্ষমতায় ছিল তালেবান । ওই সময় আফগানিস্তানে কট্টর শাসনব্যবস্থা জারি করা হয়। প্রায় ২০ বছর ধরে যুদ্ধের পর গত বছরের আগস্টে আফগানিস্তান ত্যাগ করে মার্কিন বাহিনী। বিদেশি বাহিনী দেশ ছাড়ার পরই দেশটির ক্ষমতা দখল করে তালেবান।

ক্ষমতা দখলের পর তালেবান বিশ্বকে আশ্বস্ত করেছিল যে এবার তারা নমনীয় শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করবে। কিন্তু নারী, মানবাধিকারসহ নানা ইস্যুতে তালেবানকে কঠোর পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে। সম্প্ররতি নারীদের বাইরে যেতে পুরো শরীর বোরকায় ঢাকা বাধ্যতামূলক করে আদেশ জারি করে তালেবান সরকার।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ