আফগানিস্তানে গৃহযুদ্ধ নিয়ে যা বললো তালেবান

আপডেট: জুলাই ২৩, ২০২১, ৬:৪৬ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


আফগানিস্তানের সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান দাবি করেছে তারা একচেটিয়া ক্ষমতা চায় না। কিন্তু তারা কাবুল নতুন সমঝোতার সরকার ছাড়া এবং প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি পদত্যাগের আগে শান্তি অর্জিত হবে না বলে জোর দিয়েছে। মার্কিন বার্তা সংস্থা এসোসিয়েটেড প্রেস (এপি)-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন তালেবান মুখপাত্র সুহাইল শাহীন।
আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যকার আলোচনায় সশস্ত্র গোষ্ঠীটির প্রতিনিধি দলে রয়েছে সুহাইল শাহীন। এপিকে দেওয়া তার সাক্ষাৎকারে গোষ্ঠীটির বিভিন্ন অবস্থানের কথা উঠে এসেছে।
শাহীন জানান, সংঘাতে লিপ্ত সব পক্ষের জন্য গ্রহণযোগ্য একটি নতুন সমঝোতার সরকার কাবুলে দায়িত্ব নেওয়া এবং ঘানি সরকার পদত্যাগ করলে তালেবানরা অস্ত্র সমর্পণ করবে।
তালেবানের পাঁচ বছর ক্ষমতার পর্যালোচনা সহকারে তিনি বলেন, আমি এটি স্পষ্ট করে বলতে চাই যে, আমরা একচেটিয়া ক্ষমতায় বিশ্বাস করি না। কারণ অতীতে আফগানিস্তানে যারাই এটি করতে চেয়ে তারা সফল হয়নি। তাই আমরা আবারও সেই ফর্মুলার পুনরাবৃত্তি করতে চাই না।
তবে ঘানির শাসন অব্যাহত রাখার বিষয়ে কোনও আপস করতে রাজি নয় তালেবান। আফগান প্রেসিডেন্টকে যুদ্ধের উস্কানিদাতা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। শাহীন অভিযোগ করেছেন, মঙ্গলবার ঈদুল আজহার ভাষণে তালেবানের বিরুদ্ধে আক্রমণ পরিচালনার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
তালেবান মুখপাত্র, আশরাফ ঘানির শাসন করার অধিকারকে নাকচ করে দিয়েছেন। ২০১৯ সালের নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগও তিনি তুলে ধরেছেন। ওই নির্বাচনের পর ঘানি ও প্রতিদ্বন্দ্বি আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ উভয়েই নিজেদের প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন। সমঝোতার পর আব্দুল্লাহ সরকারের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি এবং দেশটির পুনর্মিলন কাউন্সিলের প্রধান।
দোহায় চলমান শান্তি আলোচনাকে ভালো শুরু হিসেবে উল্লেখ করেছেন সুহাইল শাহীন। কিন্তু তিনি বলেছেন, ঘানি ক্ষমতায় থাকাকালে সরকারের অস্ত্রবিরতি চাওয়া তালেবানের আত্মসমর্পণ দাবি করার শামিল। তিনি বলেন, তারা পুনর্মিলন চায় না, তারা চায় আত্মসমর্পণ।যে কোনও অস্ত্রবিরতির আগে আমাদের ও অন্য আফগানদের কাছে গ্রহণযোগ্য নতুন সরকারের বিষয়ে একটি সমঝোতা হতে হবে। তাহলে কোনও যুদ্ধ হবে না।
তালেবান মুখপাত্র বলেন, আপনারা জানেন, আমিসহ কেউ-ই গৃহযুদ্ধ চায় না।
যারা গোষ্ঠীটির উত্থান নিয়ে ভীত তাদের আশ্বস্ত করার প্রতিশ্রুতি আবারও তুলে ধরেছেন শাহীন। তিনি জানান, তালেবানের পক্ষ থেকে তাদের ভয়ের কোনও কারণ নাই এবং তাদেরকে হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।
তিনি আরও জানান, কিন্তু আফগানিস্তানে অর্থনীতি দরিদ্র বলে কেউ যদি পশ্চিমে রাজনৈতিক আশ্রয় চায় সেটা তাদের বিষয়।
শাহীন জানান, কাবুলে সামরিক অভিযানে তাদের কোনও পরিকল্পনা নেই এবং এখন পর্যন্ত প্রাদেশিক রাজধানীগুলোর দখল নেওয়া থেকে তারা নিজেদের সংযত রেখেছেন।
কিন্তু তিনি হুঁশিয়ারি জানিয়ে বলেন, নতুন জেলাগুলো দখলের ফলে তাদের হাতে যেসব অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম এসেছে তাতে চাইলেই তালেবান প্রাদশিক রাজধানীগুলো দখল করতে পারবে।
সুহাইল শাহীন দাবি করেন, যুদ্ধক্ষেত্রে তালেবানের বেশিরভাগ সাফল্য আলোচনার মাধ্যমে এসেছে, লড়াই করে নয়।
তথ্যসূত্র: আল জাজিরা, বাংলাট্রিবিউন