আবারো বাড়ছে পেঁয়াজের দাম

আপডেট: অক্টোবর ২০, ২০১৯, ১:০২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


গত দুই দিন থেকে আবারো বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। বর্তমানে কেজি প্রতি ১০ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। পুনরায় দাম বাড়ার কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন, মজুদ কম আর ইন্ডিয়ান পেঁয়াজের সরবরাহ অনেক বেশি কমায় বাজারে দাম বেড়েছে। বর্তমানে ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকা আর দেশি ৯৫ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
গতকাল শনিবার নগরীর সাহেববাজার ও আড়ৎগুলোতে খোঁজ নিয়ে এই তথ্য পাওয়া গেছে। পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন, পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৮৫ থেকে ৯০ এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৮০ থেকে ৮৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। খুচরা বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দেশি ৯৫ থেকে ১০০ এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৮৫ থেকে ৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কিন্তু গত কয়েকদিন আগেও পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজি ১০ টাকা কম ছিলো।
ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, দেশিয় সিন্ডিকেট ও ভারতীয় পেঁয়াজের আমদানি কমায় বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। প্রতিদিন ইন্ডিয়া থেকে সোনামসজিদে পেঁয়াজ প্রবেশ করে কয়েকশ’ ট্রাাক কিন্তু কয়েকদিন থেকে মাত্র ৩০ থেকে ৩৫ ট্রাক পেঁয়াজ ঢুকছে। আর এই সুযোগটা কাজে লাগিয়েছে কিছু অসাধু সিন্ডিকেট।
সাহেববাজারের পেঁয়াজের পাইকারি ব্যবসায়ী আবুল কালাম আজাদ জানান, এখন ইন্ডিয়ান পেঁয়াজের আমদানি নেই বললেই চলে। আজ বানেশ্বর হাটে ৩২শ থেকে ৩৭শ টাকা মণে দেশি পেঁয়াজ কিনতে হয়েছে। আমরা দাম কমাবো কীভাবে? আমদানি বেশি হলে তবেই দাম কমার সম্ভবনা আছে।
ব্যবসায়ী আরিফ হোসেন জানান, মাঝে দাম কিছুটা স্বাভাবিক ছিলো। কিন্তু কয়েকদিন থেকে আবারো দেশি পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেঁয়েছে। এমন বেশি দাম হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, কিছু সিন্ডিকেট এতে জড়িত থাকতে পারে। তবে কিন্তু কৃষকের কাছে ও হাটেও তেমন পেঁয়াজ নেই। তাই বাইরে থেকে আমদানি ও নতুন পেঁয়াজের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে।
পেঁয়াজ কিনতে আসা ফারহানা আকতার জানান, পেঁয়াজের বিষয়ে কিছু বুঝতে পারছি না। রান্নায় মনে হচ্ছে পেঁয়াজ বাদেই খেতে হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ